Daily Sunshine

মহামারী ও রাজশাহীর যুব জনগোষ্ঠী বিষয়ক জরিপের প্রতিবেদন প্রকাশ

Share

স্টাফ রিপোর্টার: রাজশাহীতে বেসরকারী উন্নয়ন সংস্থা মাসাউস ‘মহামারী ও রাজশাহীর যুব জনগোষ্ঠী’ বিষয়ক জরিপের প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। সোমবার পবা উপজেলা মিলনায়নতে প্রতিবেদন প্রকাশ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন মাসাউস এর নির্বাহী পরিচালক মেরিনা হাঁসদা।
প্রধান অতিথি ছিলেন পবা উপজেলা নির্বাহী অফিসার শিমুল আকতার। বিশেষ অতিথি ছিলেন পবা উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আরজিয়া বেগম, যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা সঈদ আলী রেজা ও বরেন্দ্র উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ পবা উপজেলার সহকারী প্রকোশলী কামরুল আলম। এছাড়াও আদিবাসী নেতৃবৃন্দ ও শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন। একশনএইড বাংলাদেশের সহযোগিতায় কার্যক্রমটি বাস্তবায়ন করছে মাসাউস।
জরিপের ফলাফল উপস্থাপন করেন ওআইডি প্রকল্পের সৌমিক ডুমরী। এতে উল্লেখ করা হয়েছে বাংলাদেশের তরুন জনগোষ্ঠীর ওপর করোনা মহামারীর প্রভাব সম্পর্কে ধারনা পেতে সানেম, মাসাউস এবং একশন এইড বাংলাদেশের চারটি জেলা বরগুনা, সাতক্ষীরা, রাজশাহী ও কুড়িগ্রামে ১৫৪১খানার ওপর গতবছরের ডিসেম্বর মাসে এই জরিপ পরিচালনা করে। মাসাউস জরিপ করে রাজশাহী জেলার বিভিন্ন অঞ্চলে। এই জরিপে তরুণ জনগোষ্ঠীর স্বাস্থ্য, শিক্ষা, কর্মসংস্থান, সামাজিক সুরক্ষা বেষ্টনী ইত্যাদির উপর করোনা মহরামারী প্রভাব নিরুপনের চেষ্টা করা হয়।
একই সাথে এই জরিপে তরুণদের মধ্যে নাগরিক কর্মকাণ্ডে অংশগ্রহনের প্রবণতা এবং জলবায়ু পরিবর্তন সম্পর্কিত সচেতনতার মাত্রাও বুঝতে চাওয়া হয়েছে। জরিপে জেন্ডার বিষয়ক বিভিন্ন ইস্যু যেমন নারীর প্রতি সহিংসতা, নারীর কর্মসংস্থান ও ক্ষমতায়ন এবং বিভিন্ন সেবা প্রাপ্তিতে নারীর অভিজ্ঞতা সম্পর্কেও প্রশ্ন করা হয়েছে। জরিপে ইনুমেটর হিসেবে কাজ করে চারটি জেলার চারটি যুব সংগঠনের সদস্যগণ। এতে ১৫-৩৫ বছ বয়সী জনগোষ্ঠী হিসেবে চিন্থিত করা হয়।
এই জরিপে দেখা যায় ২০১৯ সালে নভেম্বরের তুলনায় ২০২০ সালে নভেম্বরে জরিপকৃত চারটি জেলায় মজুরী বা বেতনভূক্ত কর্মচারী বা কর্মকর্তাদের মধ্যে ৭০ শতাংশের আয় কমেছে, ২৮ শতাংশের আয় অপরিবর্তিত রয়েছে এবং ২ শতাংশের আয় বেড়েছে। কর্মসংস্থানে নিয়োজিতদের মধ্যে এই সময়কালে লাভ কমেছে ৮২ শতাংশের, অপরিবর্তিত রয়েছে ১৫ শতাংশের এবং বেড়েছে ৩ শতাংশের। কর্মসংস্থানে নিয়োজিত এ চারটি জেলায় করোনার সময়ে ব্যবসা বা অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড সাময়িক বা স্থায়ীভাবে বন্ধ করতে হয়েছে ৩১ শতাংশের।
জরিপে আরো উল্লেখ করা হয় অনলাইনে ক্লাসের সুযোগ পাননি এমন শিক্ষার্থীর সংখ্যা কুড়িগ্রামে ৬২ শতাংশ, সাতক্ষীরাতে ৫৬ শতাংশ, রাজশাহী ৩৯ শতাংশ এবং বরগুনায় ৪৬ শতাংশ। গড়ে চারটি জেলায় মোট ৫১ শতাংশ শিক্ষার্থী অনলাইনে ক্লাসের সুযোগ পাননি। এ চার জেলায় ৫০ শাতংশ ছাত্র এবং ৫২ শতাংশ ছাত্রী অনলাইনে শিক্ষার সুযোগ পাননি। এছাড়াও চারটি জেলার ৫২ শতাংশ ছাত্র এবং ৬৫ শতাংশ ছাত্রীর ডিজিটাল ডিভাইস ছিলোনা।
এদিকে সহিংশতা সম্পর্কে ১২৭০জন নারীকে প্রশ্ন করা হয়। এর মধ্যে ১৯ শতাংশ অবিবাহিত এবং ৮১ শতাংশ বিবাহিত। বিবাহিতদের মধ্যে ৩৭ শতাংশ নারী জানান তারা স্বামী দ্বারা নির্যাতিত হয়েছে। কুড়িগ্রামে এই হার ৪১ শতাংশ, সাতক্ষীরায় ২২ শতাংশ, রাজশাহীতে ২৮ শতাংশ এবং বরগুনায় ৫৫ শতাংশ বলে উল্লেখ করা হয়েছে। ৪০ শতাংশ নারী গণপরিবহনে যাতায়ত করতে নিরাপদ বোধ করেন। ৬৫ শতাংশ নারী জানান তাদের ব্যাংক একাউন্ট বা মোবাইল ব্যাংকিং একাউন্ট রয়েছে। পরিবার পরিকল্পনা সম্পর্কে জানে ৬৫ শতাংশ নারী। বিবাহিতরা জানে ৬৭ শতাংশ এবং অবিবাহিতরা জানে ৫৪ শতাংশ। এছাড়াও স্থানীয় পর্যায়ে যুবদের অংশ গ্রহন ৭.৬২ শাতংশ বলে উল্লেখ করা হয়েছে।

মার্চ ১৬
০৬:৩৭ ২০২১

আরও খবর

Subcribe Youtube Channel

বিশেষ সংবাদ

ঈদের আগে ৫০ লাখ পরিবার পাচ্ছে আর্থিক সহায়তা

সানশাইন ডক্সে; করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ওয়েভে ক্ষতিগ্রস্ত ৫০ লাখ গরিব পরিবারকে আর্থিক সহায়তা দেওয়ার চিন্তা করছে সরকার। প্রত‌্যকে পরিবারকে ২৫০০ টাকা করে দেওয়া হবে। ঈদের আগে মোবাইলের মাধ্যমে সুবিধাভোগী পরিবারের হাতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঈদ উপহার হিসেবে এ অর্থ পৌঁছে দেওয়া হবে বলে অর্থ বিভাগ সূত্রে জানা গেছে। সূত্র জানায়, সম্প্রতি

বিস্তারিত




এক নজরে

আমাদের সাথেই থাকুন

চাকরি

টিকা কার্ড নিয়ে যাতায়াত করা যাবে

টিকা কার্ড নিয়ে যাতায়াত করা যাবে

করোনাভাইরাস পরিস্থিতির অবনতির কারণে ১৪ এপ্রিল সকাল ৬টা থেকে ২১ এপ্রিল মধ্যরাত পর্যন্ত বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে। তবে এ সময়ে টিকা কার্ড নিয়ে টিকা গ্রহণের জন্য যাতায়াত করা যাবে বলে জানানো হয়েছে। সোমবার (১২ এপ্রিল) মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, অতি জরুরি প্রয়োজন

বিস্তারিত