Daily Sunshine

হাসমতউল্লাহ-রশিদে সিরিজ বাঁচালো আফগানরা

Share

স্পোর্টস ডেস্ক: প্রথম টেস্টে অধিনায়ক শন উইলিয়ামস ছিলেন জিম্বাবুয়ের জয়ের নায়ক। রোববার শেষ হওয়া দ্বিতীয় টেস্টেও তিনি ত্রাতার ভূমিকায়, এবার ইনিংস হার থেকে দলকে বাঁচালেন। তবে দলের হার এড়াতে পারেননি দ্বিতীয় ইনিংসে লিড বড় করতে না পারায়। হাসমতউল্লাহ শহীদী ও রশিদ খানের নৈপুণ্যে আফগানিস্তান ৬ উইকেটে জিতে দুই ম্যাচের সিরিজ ১-১ এ ভাগাভাগি করলো।
আবুধাবিতে শন উইলিয়ামসনের সেঞ্চুরি আর ডোনাল্ড তিরিপানোর হাফ সেঞ্চুরিতে ৮ রানের লিড নিয়ে শেষ দিন খেলতে নামে জিম্বাবুয়ে। সেটা একশর কাছাকাছি যায় তাদের ১৮৭ রানের জুটিতে। আগের দিন ৫ উইকেট নেওয়া রশিদ খান সেঞ্চুরিবঞ্চিত করেন তিরিপানোকে। প্রথম ফিফটিকে একশ করতে পারেননি মাত্র ৫ রানের জন্য। ২৫৮ বল খেলে ৯৫ রানে আফগান লেগস্পিনারের শিকার হন তিরিপানো।
ব্লেসিং মুজারাবানির সঙ্গে ৩৩ রানের জুটিতে লিড একশতে নেন উইলিয়ামস। শেষ জুটিতে তিন রান যোগ করার পথে ক্যারিয়ারে প্রথমবার দেড়শ করেন অধিনায়ক। ৩০৯ বলে ১৩ চার ও ১ ছয়ে ১৫১ রানে অপরাজিত ছিলেন উইলিয়ামস। ৩৬৫ রানে গুটিয়ে যায় জিম্বাবুয়ের দ্বিতীয় ইনিংস। আফগানিস্তানের ৪ উইকেটে ৫৪৫ রানের জবাবে প্রথম ইনিংসে ২৮৭ রান করে ফলো অনে পড়েছিল তারা।
আফগানিস্তানের টেস্ট ইতিহাসে নিজের গড়া সেরা বোলিংয়ের রেকর্ড ভেঙে দেন রশিদ। ৬২.৫ ওভারে ১৭ মেডেনসহ ১৩৭ রান দিয়ে ৭ উইকেট নেন তিনি, ম্যাচে তার উইকেট ১১টি। এর আগে তিনবার এক ইনিংসে পাঁচ উইকেট নেন। ২০১৯ সালের সেপ্টেম্বরে বাংলাদেশের বিপক্ষে ৪৯ রানে ৬ উইকেট নিয়ে এতদিন সেরা বোলিং পারফর্মার ছিলেন রশিদই।
১০৮ রানের লক্ষ্যে নেমে ইনিংসের ষষ্ঠ ওভারে দলীয় ৮ রানে জাভেদ আহমাদি (৪) আউট হন। ইব্রাহিম জাদরান ও রহমত শাহর ৮১ রানের জুটিতে আর পেছন ফিরতে হয়নি আফগানদের। টানা দুই ওভারে ২ রানের ব্যবধানে যদিও ইব্রাহিম (২৯) ও শহীদউল্লাহ (০) ফিরে যান।
জয় থেকে ৭ রান দূরে থাকতে রহমতও ৫৮ রানে উইকেট হারান। দেশের টেস্ট ইতিহাসে প্রথম ডাবল সেঞ্চুরিয়ান হাসমতউল্লাহ শহীদীর জয়সূচক শটে লক্ষ্যে পৌঁছায় আফগানরা। ৬ রানে অপরাজিত ছিলেন ম্যাচসেরার পুরস্কার জয়ী। ৪ রানে খেলছিলেন নাসির জামাল। ৪ উইকেট হারিয়ে ১০৮ রান করে আফগানিস্তান।
মাহমুদুলের সেঞ্চুরি ও বোলারদের নৈপুণ্যে জয়ে শেষ
স্পোর্টস ডেস্ক: মাহমুদুল হাসান জয়ের সেঞ্চুরিতে আয়ারল্যান্ড উলভসকে পঞ্চম ও শেষ আনঅফিসিয়াল ওয়ানডেতে ২৬১ রানের লক্ষ্য দেয় বাংলাদেশ ইমার্জিং দল। তারপর ২৩৭ রানে ৯ উইকেট তুলে নিয়ে সহজ জয়ের আভাস পাচ্ছিল তারা। কিন্তু সফরকারীদের শেষ জুটির প্রতিরোধে ম্যাচে ছড়ায় রোমাঞ্চ। শেষ পর্যন্ত জয়টা ধরা দিয়েছে ইমার্জিং দলকে। ঢাকার মিরপুরে ৫ রানে তাদের হারিয়ে সিরিজ ৪-০ তে শেষ করেছে স্বাগতিকরা।
মাহমুদুলের ১২৩ রানের দারুণ ইনিংসে ইমার্জিং দল ৪৯.৪ ওভারে ২৬০ রানে গুটিয়ে যায়। জবাবে ৫০ ওভারে ৯ উইকেটে ২৫৫ রান করে আয়ারল্যান্ডের দলটি। সেঞ্চুরিতে ম্যাচসেরা হয়েছেন মাহমুদুল, সিরিজে আরও দুটি হাফ সেঞ্চুরির ইনিংস থাকা এই ব্যাটসম্যান হয়েছেন সিরিজ সেরা খেলোয়াড়ও।
আড়াইশ ছাড়ানো স্কোরে মাহমুদুলের সঙ্গে অবদান রাখেন আনিসুল ইসলাম ইমন ও মাহিদুল ইসলাম অঙ্কন। ৩১ বলে ৮ চারে ৪১ রান করেন ইমন। অঙ্কন ৩৩ রান করেছেন ৩৯ বল খেলে। মাহমুদুলের ১৩৫ বলের ইনিংসে ছিল ৯ চার ও ৩ ছয়। উলভসের পক্ষে সর্বোচ্চ ৩ উইকেট নেন মার্ক অ্যাডাইর। দুটি করে পান রুহান প্রিটোরিয়াস ও হ্যারি টেক্টর।
লক্ষ্যে নামা আইরিশদের ৭ রানে জেরেমি ললারকে (০) ফিরিয়ে দেন শফিকুল ইসলাম। এই ধাক্কা অবশ্য অ্যাডাইর ও স্টিফেন ডোহেনির জুটিতে কাটিয়ে ওঠে সফরকারীরা। ৯৭ রানের জুটি গড়েন তারা। অ্যাডাইর ৪৫ রানে ফেরার পর ডোহেনি একা হাতে লড়াই করেছেন। ৯৯ বলে ৮১ রানে তিনি বিদায় নেন।
দল অবশ্য তখনও লক্ষ্য থেকে প্রায় একশ রান দূরে। সাইফ হাসান মিডল অর্ডালে ভাঙন ধরালেও নেইল রক আইরিশদের জয়ের স্বপ্ন জাগান। ব্যক্তিগত ৩৫ রানে তাকে শফিকুল ফেরালেও শেষ জুটিতে বেন হোয়াইট ও পিটার চেজ দাঁড়িয়ে যান। তাদের ১০ বলে ১৪ রানে শেষ ওভারে সফরকারীদের লক্ষ্য ১১ তে নামে। রেজাউর রহমানের বুদ্ধিদ্বীপ্ত বোলিংয়ে ৫ রানের বেশি নিতে পারেনি দশম উইকেটের এই জুটি। হোয়াইট ৬ ও চেজ ১০ রানে অপরাজিত ছিলেন। বাংলাদেশের পক্ষে অধিনায়ক সাইফ সর্বোচ্চ ৩ উইকেট নেন। দুটি করে পান শফিকুল ও তানভির ইসলাম।

মার্চ ১৫
০৫:৫১ ২০২১

আরও খবর

Subcribe Youtube Channel

বিশেষ সংবাদ

কী বন্ধ, কী খোলা জেনে নিন

কী বন্ধ, কী খোলা জেনে নিন

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বৃদ্ধির প্রেক্ষাপটে ১৪ এপ্রিল থেকে ২১ এপ্রিল পর্যন্ত দেশের সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকছে, বন্ধ থাকছে যানবাহনও। বিধি-নিষেধ থাকছে সার্বিক কার্যাবলী ও চলাচলেও। সোমবার মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে। বন্ধ থাকছে: সকল সরকারি, আধা-সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত ও বেসরকারি অফিস/আর্থিক প্রতিষ্ঠান। সকল প্রকার পরিবহন (সড়ক, নৌ, রেল, অভ্যন্তরীণ

বিস্তারিত




এক নজরে

আমাদের সাথেই থাকুন

চাকরি

টিকা কার্ড নিয়ে যাতায়াত করা যাবে

টিকা কার্ড নিয়ে যাতায়াত করা যাবে

করোনাভাইরাস পরিস্থিতির অবনতির কারণে ১৪ এপ্রিল সকাল ৬টা থেকে ২১ এপ্রিল মধ্যরাত পর্যন্ত বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে। তবে এ সময়ে টিকা কার্ড নিয়ে টিকা গ্রহণের জন্য যাতায়াত করা যাবে বলে জানানো হয়েছে। সোমবার (১২ এপ্রিল) মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, অতি জরুরি প্রয়োজন

বিস্তারিত