Daily Sunshine

শতবর্ষী বৃদ্ধের চোখে আনন্দের অশ্রু

Share

মাহফুজুর রহমান প্রিন্স, বাগমারা: বাগমারার শতবর্ষী বৃদ্ধ আবুল কালামের চোখে আজ আনন্দ অশ্রু। জীবনের শেষ প্রান্তে এসে ভাবতেও পারেননি তিনি ভাবতেও পারেননি তার ভাগ্যে জুটবে একটি পাকাবাড়ি তাও আবার প্রধানমন্ত্রীর উপহার।
হতভাগ্য বৃদ্ধ আবুল কালামের দীর্ঘ একশটি বছর কেটে গেছে অনাদরে অবহেলে। ফরিদপুর ছিল তার পৈত্রিক নিবাস। নব্বয়ের দশকে নদী ভাঙ্গনের কবলে সর্বস্ব হারিয়ে তিনি স্ত্রী পুত্র নিয়ে বেরিয়ে পড়েন অজানার উদ্দেশ্যে। এভাবে তার কয়েকবছর কেটে যায় জেলায় জেলায় ঘুরে ঘুরে।
অবশেষে আবুল কালামের ঠাঁই হয় উপজেলার মাড়িয়া ইউনিয়নের নিমপাড়া গ্রামের এক সহৃদয়বান ব্যক্তির দেয়া একখন্ড জমিতে। এখানেই আবুল কালাম একটি কুঁড়েঘর তৈরি করে কাটিয়ে দেন আরো তিন দশক। এরি মাঝে আবুল কালামের প্রথম স্ত্রী মৃত্যুবরণ করে। ওইঘরে তার তিনটি পুত্র সন্তান থাকলেও অভাবের তাড়নোয় তারা যে যার মত বিয়ে সাদি করে সংসার নিয়ে ব্যস্ত।
জীবন চলার অবলম্বনের জন্য আবুল কালাম ছবিলা বিবি (৮০) নামে এক বৃদ্ধাকে জীবন সঙ্গী করেন। এ ছবিলা বিবিই এখন ভিক্ষা করে আবুল কালামকে ভরন পোষণ দেয়। উপজেলার যাত্রাগাছি দিঘীর পশ্চিমপাড়ে প্রধানমন্ত্রীর দেয়া আশ্রায়ন প্রকল্পের একটি বাড়ি পেয়েছেন আবুল কালাম-ছবিলা দম্পত্তি।
শনিবার এ বৃদ্ধ দম্পত্তির বাড়িতে গেলে দেখা যায় তাদের সাজানো গোছানো সুখের সংসার। দুপুরের রান্না সারতে গাছ থেকে পড়া লতা পাতা কুড়াচ্ছেন তারা। কাছে গিয়ে কুশলাদি জেনে নতুন বাড়িতে কেমন লাগছে জানতে চাইলে হুহু করে কেঁদে ফেলেন বৃদ্ধ আবুল কালাম। তিনি এ বাড়ি পেয়ে পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্য প্রাণ ভরে দোয়া করছেন বলেও জানালেন। শুধু আবুল কালামই নয় যাত্রাগাছি এ দিঘীর পাড়ে এমন আরো বারোটি পরিবারকে পূনর্বাসিত করা হবে। তাদেরকে বাড়ি বুঝে দেওয়ার কাজ চলমান রয়েছে।
উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মাসুদুর রহমান জানান, প্রথম ফেজে উপজেলার বারটি ইউনিয়নে ১৭৫টি বাড়ি নির্মাণ করে তা অসহায় দুস্ত পরিবারের মাঝে হস্তান্তর করা হয়েছে। চলতি বছর দ্বিতীয় ফেজে আরো ৭৭ টি বাড়ি নির্মাণের কাজটি চলমান রয়েছে। দ্রুত এ নির্মাণ কাজ এগিয়ে চলেছে। পর্যায়ক্রমে আমরা প্রতিটি ইউনিয়নে এভাবে বাড়ি নির্মাণের কাজ বস্তবায়ন করব এবং প্রকৃত দুস্তদের মাঝে বিতরণ করা হবে।
সরকারের খাস জমিতে এসব বাড়ি নির্মাণ করা হবে। এজন্য উপজেলার সহকারি কমিশনার (ভুমি) বিভিন্ন ইউনিয়নে খাস জমি অনুসন্ধান ও তা বাড়ি নির্মাণের উপযোগি করে তোলা হচ্ছে। তিনি আরো জানান বাড়ি নির্মাণ করতে সরকারের বরাদ্দ ১ লক্ষ ৭৫ হাজার টাকা। এ বাজেটেই আমরা চেষ্টা করছি মান সম্পন্ন ও টেকসই বাড়ি নির্মাণ করে দিতে।
মাড়িয়া ইউপি চেয়ারম্যান আসলাম আলী আসকান জানান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এ বাড়ি উপহার পেয়ে সহায় সম্বলহীন মানুষ মাথা গোঁজার ঠাই পেয়েছে। ভবানীগঞ্জ সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মজিদ জানান, প্রকৃত হকদাররাই এসব বাড়িতে থাকার সুযোগ পেয়েছে। তাদেরকে সঠিক ভাবে নির্বাচন করা হয়েছে। এসব বাড়ির কাজের মানও অত্যন্ত ভালো হচ্ছে বলে তিনি জানান।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার শরিফ আহম্মেদ জানান, ডিসি স্যারের নির্দেশনায় আমরা এ প্রকল্প সুন্দর ও সুচারুভাবে বাস্তবায়ন করার জন্য দিনরাত নিরলস ভাবে কাজ করে যাচ্ছি। আমরা এখানে আজ আছি কাল থাকবো না কিন্তু বাগমারার অসহায় দুস্ত ও গরীব মানুষ তারা সারা জীবনের জন্য একটি ঠিকানা খুজে পাবে।

মার্চ ১৪
০৬:৪৬ ২০২১

আরও খবর

Subcribe Youtube Channel

বিশেষ সংবাদ

২০৩০ সালে রমজান মাস হবে দুইটি

২০৩০ সালে রমজান মাস হবে দুইটি

আর মাত্র একদিন পরই শুরু হবে আত্মশুদ্ধি ও সিয়াম-সাধনার মাস রমজান। বছরের এই একটি মাসে আমরা আমলের মাধ্যমে সওয়াবকে ৭০ গুণ বাড়িয়ে নিতে পারি। ইংরেজি বর্ষপঞ্জি অনুযায়ী বছরে একবারই আসে রমজান মাস। কিন্তু কেমন হবে যদি বছরে দুইটি রমজান মাস হয়? হ্যাঁ- আগামীতে এমনই একটি বছর আসবে যেটিতে রমজান মাস

বিস্তারিত




এক নজরে

আমাদের সাথেই থাকুন

চাকরি

টিকা কার্ড নিয়ে যাতায়াত করা যাবে

টিকা কার্ড নিয়ে যাতায়াত করা যাবে

করোনাভাইরাস পরিস্থিতির অবনতির কারণে ১৪ এপ্রিল সকাল ৬টা থেকে ২১ এপ্রিল মধ্যরাত পর্যন্ত বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে। তবে এ সময়ে টিকা কার্ড নিয়ে টিকা গ্রহণের জন্য যাতায়াত করা যাবে বলে জানানো হয়েছে। সোমবার (১২ এপ্রিল) মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, অতি জরুরি প্রয়োজন

বিস্তারিত