Daily Sunshine

রাজশাহী হবে অনন্য নগরী

Share

স্টাফ রিপোর্টার : স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মোঃ তাজুল ইসলাম বলেছেন, রাজশাহীর অবকাঠামো উন্নয়ন এবং জনগণের কল্যানে সকল কাজ করছেন রাসিক মেয়র খায়রুজ্জামান লিটন। রাজশাহীর উন্নয়ন কাজ যেভাবে চলছে, আগামীতে রাজশাহী দেশসেরা অনন্য মহানগরীতে পরিণত হবে। রাজশাহী অঞ্চলের আর্থ-সামাজিক, উজ্জ্বল ইতিহাস, ঊর্বর ভূমি, ঐতিহাসিক দর্শনীয় স্থান এবং পারিপার্শ্বিক অবস্থাসহ এর উপযোগিতা কাজে লাগাতে হবে।
শনিবার দুপুরে রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের চলমান উন্নয়ন কাজ পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের একথা জানান। এ সময় মন্ত্রীর সাথে ছিলেন রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন ও স্থানীয় সরকার বিভাগের সিনিয়র সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ। মন্ত্রী শনিবার সকাল থেকে রাত অবধি রাজশাহীর বিভিন্ন অবকাঠামো ও পরিচ্ছন্ন নগর দেখে অভিভুত হন। তিনি সন্তোষ প্রকাশ করেন।
এলজিআরডি মন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, রাজশাহীর উপযোগিতা অনুযায়ী অনেক উন্নয়ন করা সম্ভব। জনবসতি, অবকাঠামো ও যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন ঘটিয়ে সুন্দর নগরী হিসেবে গড়ে তোলার উপযুক্ত জায়গা এটি। এ অঞ্চলে যে উন্নয়ন অব্যাহত রয়েছে তা বাস্তবায়িত হলে এ শহর দেশের মধ্যে একটি অনন্য নগরীতে রূপান্তরিত হবে।
রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র অত্যন্ত পরিকল্পিতভাবে উন্নয়ন করার চেষ্টা করে যাচ্ছেন উল্লেখ করে মোঃ তাজুল ইসলাম বলেন, রাজশাহীর উন্নয়নের জন্য মন্ত্রণালয় থেকে ইতোমধ্যে অনেক বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে এবং উন্নয়নের স্বার্থ প্রয়োজনে আরও বরাদ্দ দেয়া হবে বলে।
তিনি আরো বলেন, নগরীর ভবিষ্যতে অর্থনৈতিক এবং সামাজিক উন্নয়নের জন্য সিটি কর্পোরেশন থেকে কোন প্রকল্প নেয়া হলে সে গুলোকে বিবেচনায় নিয়ে যাচাই-বাছাই করে অনুমোদন দেয়া হবে। তবে যে কোন প্রকল্প গ্রহণের সময় জনগণের বিষয়টি মাথায় রেখে করতে হবে। কারণ সকল উন্নয়নই মানুষের কল্যাণের জন্য।
সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, রাজশাহী নগরী এবং আশপাশের মানুষের নিকট সুপেয় পানি সরবরাহের জন্য একটি ওয়াটার ট্রিটমেন্ট প্লান্ট প্রকল্প নেয়া হয়েছে এবং ইতোমধ্যে কার্যক্রম শুরু হয়েছে। রাজশাহীর অবকাঠামোগত উন্নয়ন, যোগাযোগ ব্যবস্থাসহ সামগ্রিকভাবে মানুষের জীবন মানোন্নয়নে যা যা করা দরকার তার সবই করা হবে বলে জানান তিনি।
আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদে নির্বাচনে বিএনপির অংশগ্রহণের প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের উত্তরে স্থানীয় সরকার মন্ত্রী বলেন, নির্বাচনে অংশগ্রহণ করার অধিকার প্রত্যেক নাগরিকের অধিকার যেমনি রয়েছে তেমনি না করারও অধিকার রয়েছে। বিএনপি নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবে কি করবে না সেটা তাদের দলীয় সিদ্ধান্তের বিষয়।
সাংবাদিকদের অপর এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, দেশের সকল পৌরসভার অবকাঠামো উন্নয়নের জন্য একটি মাস্টার প্ল্যান প্রণয়ন করা হয়েছে এবং এর কাজ চলমান রয়েছে। এই মাস্টর প্ল্যানের মাধ্যমে যাতে করে দীর্ঘমেয়াদি চাহিদা পূরণ করে টেকসই উন্নয়ন করা যায় সে জন্য কাজ করা হচ্ছে।
এ সময় মন্ত্রী বলেন, দেশের নাগরিক হিসেবে শহর, গ্রাম-গঞ্জে যে যেখানেই বসবাস করুক না কেন সবাই রাষ্ট্রের প্রদেয় সকল নাগরিক সুবিধা পাবেন। সবার উন্নত জীবন ব্যবস্থা করতে পারলেই বাংলাদেশে উন্নত হবে। এজন্য সবাইকে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন সংরক্ষিত আসনের এমপি আদিবা আঞ্জুম মিতা, স্থানীয় সরকার বিভাগের যুগ্মসচিব (নগর উন্নয়ন -১ অধিশাখা) মোহাম্মদ নূরে আলম সিদ্দিকী, উপসচিব সিটি কর্পোরেশন – ২) মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম, রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার সুজায়েত ইসলাম, জেলা প্রশাসক আব্দুল জলিল প্রমুখ।
প্রস্তাবিত বঙ্গবন্ধু রিভারভিউ সিটি এলাকা পরিদর্শন : এদিকে প্রস্তাবিত বঙ্গবন্ধু রিভারভিউ সিটি এলাকা পরিদর্শন করেছেন ও স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী মোঃ তাজুল ইসলাম এমপি। শনিবার বিকাল বিকাল থেকে সাড়ে ৬টা পর্যন্ত পদ্মা নদীতে স্প্রিডবোর্ড যোগে পরিদর্শন করেন তিনি। এ সময় মন্ত্রীর সাথে ছিলেন রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন ও স্থানীয় সরকার বিভাগের সিনিয়র সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ।
পরিদর্শনকালে উপস্থিত ছিলেন সংরক্ষিত আসনের এমপি আদিবা আঞ্জুম মিতা, স্থানীয় সরকার বিভাগের যুগ্মসচিব (নগর উন্নয়ন -১ অধিশাখা) মোহাম্মদ নূরে আলম সিদ্দিকী, উপসচিব ( সিটি কর্পোরেশন – ২) মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম, রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার সুজায়েত ইসলাম, জেলা প্রশাসক আব্দুল জলিল প্রমুখ।
ফোরলেন সড়ক উদ্বোধন ও বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্প পরিদর্শন : রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের নির্মিত একটি ফোরলেন সড়কের শুভ উদ্বোধন ও চলমান বিভিন্ন উন্নয়ন কার্যক্রম পরিদর্শন করেছেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম এমপি। শনিবার রাসিকের ফোর লেন সড়ক উদ্বোধনসহ চলমান বিভিন্ন উন্নয়ন কার্যক্রম পরিদর্শন করেন মন্ত্রী। এ সময় মন্ত্রীর সঙ্গে ছিলেন রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মাননীয় মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন।
শনিবার দুপুর সাড়ে ১২টায় কাদিরগঞ্জে মহান মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক, জাতীয় চার নেতার অন্যতম শহীদ এ.এইচ.এম কামারুজ্জামানের কবরে পুষ্পস্তক অর্পণ করেন এলজিআরডি মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম এমপি। এরপর পৃথকভাবে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন স্থানীয় সরকার বিভাগের সিনিয়র সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ। পুষ্পস্তবক অর্পণের পর দোয়া ও মোনাজাত করা হয়। এ সময় শহীদ এ.এইচ.এম কামারুজ্জামানের সুযোগ্য সন্তান রাসিক মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন, কাউন্সিলর ও কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
এরপর বারো রাস্তার মোড়ে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে ফলক উন্মোচন করে ১৮৯ কোটি ৩৪ লাখ ৫৯ হাজার টাকা ব্যয়ে মহানগরীর রাজশাহী-নওগাঁ প্রধান সড়ক হতে মোহনপুর-রাজশাহী-নাটোর সড়ক পর্যন্ত পূর্ব-পশ্চিম সংযোগ সড়ক নির্মাণ প্রকল্পের আওতায় নির্মিত আলিফ লাম মীম ভাটার মোড় হতে বিহাস পর্যন্ত ৬ দশমিক ৭৯৩ কিলোমিটার ৪ লেন সংযোগ সড়কের উদ্বোধন করেন মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম এমপি। রাসিক মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটনের সভাপতিত্ব অনুষ্ঠিত অনুষ্ঠানে বিশেষ ছিলেন স্থানীয় সরকার বিভাগের সিনিয়র সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ। অনুষ্ঠানের শুরুতে কাউন্সিলরবৃন্দের পক্ষ থেকে মন্ত্রীকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানানো হয়।
উল্লেখ্য, প্রকল্পের আওতায় ফোর সড়কের দুই পাশে ফুটপাথ, ১টি ব্রীজ, ৮টি কালভার্ট, মিডিয়ান ও ট্রাফিক কাঠামো নির্মাণ করা হয়েছে। প্রকল্পটির আওতায় ২৯ কোটি ২৮ লাখ ৭৭ হাজার ৫৩২ টাকা ব্যয়ে ১২০ মিটার দৈর্ঘ্য র‌্যাম ২০২ দশমিক ৫০ মিটারের ফ্লাইওভার নির্মাণ করা হয়েছে। রাজশাহীর প্রথম ফ্লাইওভার নগরবাসীর নজর কেড়েছে।
সড়ক উদ্বোধনের পর রাজশাহী বিশ^বিদ্যালয়ের প্রধান ফটকের সামনে রাসিকের আধুনিক সেকেন্ডারি ট্রান্সফার স্টেশনের (এসটিএস) কার্যক্রম, ১৬৪ কোটি ১৯ লাখ ২৯ হাজার টাকা ব্যয়ে আলুপট্টি মোড় থেকে তালাইমারি মোড় পর্যন্ত সড়ক ফোরলেনে উন্নীতকরণ, সড়কের দুই পাশে ২.২০ মিটার চওড়া ফুটপাথ এবং আইল্যান্ড নির্মাণ কাজ, ১৬ তলা বিশিষ্ট সিটি সেন্টার নির্মাণ, ঐতিহ্যবাসী সোনাদিঘি সংস্কার ও সৌন্দর্য্য বর্ধন কাজ, মনিচত্বর থেকে সদর হাসপাতাল পর্যন্ত সড়ক প্রশস্তকরণের লক্ষ্যে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের সীমানা প্রাচীর, ড্রেন ও ফুটপাত নির্মাণ কাজ পরিদর্শন করেন এলজিআরডি মন্ত্রী।
এছাড়া ১২৬ কোটি ৩৯ লাখ ৯৯ হাজার টাকা ব্যয়ে উপশহর থেকে নগর ভবন, মালোপাড়া মোড় হয়ে সাগরপাড়া মোড় পর্যন্ত সড়ক প্রশস্তকরণ প্রকল্পের আওতায় নগর ভবন থেকে মহিলা কলেজের সামনে হয়ে মালোপাড়া পুলিশ ফাঁড়ি হয়ে রাণীবাজার পর্যন্ত সড়ক প্রশস্তকরণ কাজ এবং নাহার একাডেমি এলাকায় ড্রেনের পাশে নির্মিত দৃষ্টিনন্দন সড়ক পরিদর্শন করেন এলজিআরডি মন্ত্রী।
এছাড়া মন্ত্রী পদ্মপাড়ে শাহ মখদুম মাজারের সামনে দৃষ্টিনন্দন ব্রিজ পরিদর্শন করেন। এরপর হযরত শাহ মখদুম মাজার জিয়ারত করেন। এরপর কয়েরদারা এলাকায় ড্রেনের পাশে নির্মিত সড়ক এবং রাসিক কর্তৃক সৌন্দর্যবর্ধনকৃত সপুরা বিসিক মঠপুকুর পরিদর্শন করেন তিনি।
উন্নয়ন প্রকল্পের কাজ পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের এলজিআরডি মন্ত্রী বলেন, রাজশাহীর অবকাঠামো উন্নয়ন এবং জনগণের কল্যানে সকল কাজ করছেন রাসিক মেয়র খায়রুজ্জামান লিটন। রাজশাহীর উন্নয়ন কাজ যেভাবে চলছে, আগামীতে রাজশাহী দেশসেরা অনন্য মহানগরীতে পরিণত হবে।
এরআগে সকাল ১০টা ৫০ মিনিটে ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্সের বিমানযোগে রাজশাহীর হযরত শাহ মখদুম বিমানবন্দরে এসে পৌছালে এলজিআরডি মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম এমপিকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান রাসিক মেয়র ও মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি খায়রুজ্জামান লিটন। এরপর সার্কিট হাউসে মন্ত্রীকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান সিটি কর্পোরেশনের কাউন্সিলরবৃন্দ। দুপুর ১২টায় সার্কিট হাউসে স্থানীয় সরকার বিভাগের আওতায় রাজশাহী বিভাগে চলমান উন্নয়ন কার্যক্রম নিয়ে সংশ্লিষ্ট দপ্তর ও সংস্থার সাথে মতবিনিময় করেন তিনি।
পরিদর্শনকালে স্থানীয় সরকার বিভাগের সিনিয়র সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ, রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনার ড. হুমায়ুন কবীর, জেলা প্রশাসক আব্দুল জলিল, রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের কাউন্সিলরবৃন্দ, প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ড. এবিএম শরীফ উদ্দিন সহ কর্মকর্তাবৃন্দ ও গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

মার্চ ১৪
০৬:১৯ ২০২১

আরও খবর

Subcribe Youtube Channel

বিশেষ সংবাদ

২০৩০ সালে রমজান মাস হবে দুইটি

২০৩০ সালে রমজান মাস হবে দুইটি

আর মাত্র একদিন পরই শুরু হবে আত্মশুদ্ধি ও সিয়াম-সাধনার মাস রমজান। বছরের এই একটি মাসে আমরা আমলের মাধ্যমে সওয়াবকে ৭০ গুণ বাড়িয়ে নিতে পারি। ইংরেজি বর্ষপঞ্জি অনুযায়ী বছরে একবারই আসে রমজান মাস। কিন্তু কেমন হবে যদি বছরে দুইটি রমজান মাস হয়? হ্যাঁ- আগামীতে এমনই একটি বছর আসবে যেটিতে রমজান মাস

বিস্তারিত




এক নজরে

আমাদের সাথেই থাকুন

চাকরি

টিকা কার্ড নিয়ে যাতায়াত করা যাবে

টিকা কার্ড নিয়ে যাতায়াত করা যাবে

করোনাভাইরাস পরিস্থিতির অবনতির কারণে ১৪ এপ্রিল সকাল ৬টা থেকে ২১ এপ্রিল মধ্যরাত পর্যন্ত বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে। তবে এ সময়ে টিকা কার্ড নিয়ে টিকা গ্রহণের জন্য যাতায়াত করা যাবে বলে জানানো হয়েছে। সোমবার (১২ এপ্রিল) মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, অতি জরুরি প্রয়োজন

বিস্তারিত