Daily Sunshine

শূন্যের রেকর্ডে’ ধোনির পাশে কোহলি

Share

স্পোর্টস ডেস্ক: ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজের শেষ ম্যাচে টস করতে নেমেই মহেন্দ্র সিং ধোনির পাশে বসেন বিরাট কোহলি। ৬০তম টেস্ট নেতৃত্ব দিতে নেমে তিনি ছুঁয়েছেন ভারতকে দুটি বিশ্বকাপ এনে দেওয়া অধিনায়ককে। দ্বিতীয় দিন অধিনায়ক হিসেবে শূন্যের রেকর্ডে ধোনি ও কোহলি পাশাপাশি।
ব্যাট হাতে ভারতীয় অধিনায়ক কোহলির ফর্ম একেবারেই ধারাবাহিক নয়। চতুর্থ টেস্টের প্রথম ইনিংসে অষ্টম বলে অলরাউন্ডার বেন স্টোকসের শিকার হলেন রানের খাতা না খুলে। ইংলিশ পেসারের শর্ট বল বেশ উঁচুতে উঠেছিল। কোহলি তা বুঝতেও পেরেছিলেন, কিন্তু ততক্ষণে বল লেগেছে ব্যাটে এবং সোজা চলে যায় উইকেটকিপার বেন ফোকসের গ্লাভসে। তাতেই অযাচিত রেকর্ডে ধোনি আর কোহলি একবিন্দুতে।
ভারতের টেস্ট অধিনায়ক হিসেবে এটি ছিল কোহলির অষ্টম ডাক। সমান সংখ্যক ডাক মেরেছেন ধোনিও, যা টেস্টে কোনও ভারতীয় অধিনায়কের রেকর্ড। চলতি সিরিজে দ্বিতীয়বার শূন্য রানে ফিরলেন কোহলি। দ্বিতীয় টেস্টে স্পিনার মঈন আলীর বলে ডাক মারেন তিনি। অধিনায়ক হিসেবে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সবচেয়ে বেশি শূন্যের তালিকায় বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট সৌরভ গাঙ্গুলির পাশে এখন কোহলি, দুজনেরই ডাক ১৩টি।
২০১৪ সালের পর প্রথমবার এক সিরিজে দুইবার রানের খাতা খুলতে ব্যর্থ কোহলি। সাত বছর আগে এই লজ্জার মুখে পড়েছিলেন স্বাগতিক ইংল্যান্ডের বিপক্ষে পাতৌদি ট্রফিতে। টেস্ট ক্যারিয়ারে ডানহাতি ব্যাটসম্যানের এটি ১২তম ডাক এবং ইংল্যান্ডের বিপক্ষে পঞ্চম। তাকে পাঁচবার ফিরিয়ে প্যাট কামিন্স, মঈন আলী, স্টুয়ার্ট ব্রড ও জেমস অ্যান্ডারসনের পাশে বসলেন স্টোকস।

মার্চ ০৬
০৪:৫১ ২০২১

আরও খবর

Subcribe Youtube Channel

বিশেষ সংবাদ

কী বন্ধ, কী খোলা জেনে নিন

কী বন্ধ, কী খোলা জেনে নিন

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বৃদ্ধির প্রেক্ষাপটে ১৪ এপ্রিল থেকে ২১ এপ্রিল পর্যন্ত দেশের সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকছে, বন্ধ থাকছে যানবাহনও। বিধি-নিষেধ থাকছে সার্বিক কার্যাবলী ও চলাচলেও। সোমবার মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে। বন্ধ থাকছে: সকল সরকারি, আধা-সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত ও বেসরকারি অফিস/আর্থিক প্রতিষ্ঠান। সকল প্রকার পরিবহন (সড়ক, নৌ, রেল, অভ্যন্তরীণ

বিস্তারিত




এক নজরে

আমাদের সাথেই থাকুন

চাকরি

টিকা কার্ড নিয়ে যাতায়াত করা যাবে

টিকা কার্ড নিয়ে যাতায়াত করা যাবে

করোনাভাইরাস পরিস্থিতির অবনতির কারণে ১৪ এপ্রিল সকাল ৬টা থেকে ২১ এপ্রিল মধ্যরাত পর্যন্ত বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে। তবে এ সময়ে টিকা কার্ড নিয়ে টিকা গ্রহণের জন্য যাতায়াত করা যাবে বলে জানানো হয়েছে। সোমবার (১২ এপ্রিল) মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, অতি জরুরি প্রয়োজন

বিস্তারিত