Daily Sunshine

রাজপথে আন্দোলনে জন্য প্রস্তুত থাকুন

Share

স্টাফ রিপোর্টার : রাজশাহীতে অনুষ্ঠিত বিভাগীয় সমাবেশ থেকে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু হুশিয়ারি দিয়ে বলেছেন, গণতন্ত্র বারবার জীবিত হয়। আর এই গণতন্ত্র ফিরে আসবে রাজপথে আন্দোলনের মাধ্যমে। নেতা-কর্মীরা রাজপথে আন্দলনের জন্য প্রস্তুত হন। শেষ রক্তবিন্দু দিয়ে হলেও বাংলাদেশের গণতন্ত্রকে পুনরুদ্ধার করতে হবে।
মঙ্গলবার বিকেলে রাজশাহীতে বিভাগীয় বিএনপির সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ সব কথা বলেন দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু। পুলিশের অনুমতি নিয়ে বিকেলে রাজশাহী নগরীর পাঠানপাড়া এলাকায় নাঈস কনভেনশন সেন্টারে নির্দলীয় নিরপেক্ষ নির্বাচনের দাবিতে এ সমাবেশের আয়োজন করে বিএনপি।
পুলিশ বাহিনীকে কটাক্ষ করে বিএনপি নেতা টুকু বলেন, বাংলাদেশ পুলিশ একটি দলের কর্মী বাহিনীতে রূপান্তরিত হয়েছে। সরকার প্রধানকে তিনি প্রশ্ন করে বলেন, গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার জন্য আপনাকে কেন পুলিশের ওপর নির্ভর করতে হবে। রাজশাহীর সমাবেশে আসতেও পদে পদে বাঁধা সৃষ্টি করা হয়েছে। সমাবেশ ঘিরে রাজশাহীর রাস্তা ফাঁকা করে দেয়া হয়েছে। বাস বন্ধের পাশাপাশি খাবারের দোকানগুলোও বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।
বিএনপির রাজশাহী বিভাগীয় সমাবেশ থেকে নেতাকর্মীদের নতুন করে আন্দোলনের প্রস্তুতি গ্রহণের আহ্বান জানিয়ে বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা টুকু বলেন, অচিরেই সরকার পতনের আন্দোলন শুরু হবে। এই আন্দোলনে সবাইকে সামিল হতে হবে। তিনি বলেন, বৃদ্ধ বয়সে প্রস্তুত আছি। জীবনের শেষবিন্দু রক্ত দিয়ে হলেও গণতন্ত্র উদ্ধারের আন্দোলনে আমি আছি। সকলে প্রস্তুতি নিন। আমাদের যৌবন শুরু হয়েছে রাজপথে, শেষ হয়েছে মুক্তিযুদ্ধ দিয়ে। ইশরাখ-তাবিথকে রেখে যাচ্ছি। তারাই তারেকের হাতকে শক্তিশালী করবে। রাজপথে আন্দলনের জন্য প্রস্তুত হন। শেষ রক্তবিন্দু দিয়ে হলেও বাংলাদেশের গণতন্ত্রকে পুনরুদ্ধার করতে হবে।
টুকু বলেন, দেশ এখন দুর্নীতিতে ভরে গেছে। ফরিদপুরের ছাত্রলীগের এক সভাপতিই দুই হাজার কোটি টাকা পাচার করেছে। তাহলে রাঘব-বোয়ালরা কত টাকা পাচার করেছে তার হিসাব দেশের জনগণ নেবে।
সমাবেশে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বিএনপি চেয়ারপারসনের অন্যতম উপদেষ্টা লে. কর্নেল (অব.) আবদুল লতিফ ঢাকা থেকে আন্দোলন জোরদার করার পরামর্শ দেন। তিনি বলেন, আমরা সাতদিনের মধ্যে সরকারের পতন দেখতে পাব। এর জন্য ঢাকার রাজপথে রক্ত দিতে হবে। রাজশাহী, রংপুর, চট্টগ্রামে আন্দোলন করে কিছু হবে না। ঢাকাকে সুসংগঠিত করতে হবে।
পরে বক্তব্য দেয়ার সময় বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য তাবিথ আউয়াল ও আন্তর্জাতিক বিষয়ক কমিটির সদস্য ইশরাক হোসেন ঢাকায় আন্দোলন জোরদার করার ঘোষণা দেন। ইশরাক বলেন, স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে আজ একটা সুন্দর পরিবেশ থাকার কথা ছিল। তার বদলে আমাদের আন্দোলনের বার্তা নিয়ে রাজশাহী আসতে হয়েছে। আমাদের আন্দোলন শুরু হয়েছে। তাবিথ আউয়াল বলেন, আজ জাতীয় ভোটার দিবস। অথচ মানুষ ভোটই দিতে পারে না। আমরা এমন অবস্থা চাই না। সে কারণে আন্দোলনের আর কোন বিকল্প নেই।
সমাবেশে বিশেষ অতিথি হিসেবে আরও বক্তব্য দেন, বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা মিজানুর রহমান মিনু, হাবিবুর রহমান হাবিব, বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব মজিবর রহমান সারোয়ার, হারুনার রশিদ এমপি, রাজশাহী বিভাগের সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু ও সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ শাহীন শওকত। এছাড়াও বক্তব্য দেন- বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য সামসুল হক প্রামানিক, চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সভাপতি ডা. শাহাদাত হোসেন, রাজশাহী জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি নাদিম মোস্তফা প্রমুখ।
বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক, রাজশাহী মহানগর বিএনপি’র সভাপতি ও সাবেক রাসিক মেয়র মোহাম্মদ মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল এর সভাপতিত্বে এবং বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির ত্রাণ ও পুনর্বাসন বিষয়ক সহ-সম্পাদক ও রাজশাহী মহানগর বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট শফিকুল হক মিলনের পরিচালনায় সমাবেশে বিশেষ অতিথি ছিলেন বিএনপি চেয়ারনপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার অন্যতম উপদেষ্ঠা, সাবেক রাসিক মেয়র ও সংসদ সদস্য জননেতা মিজানুর রহমান মিনু, বেগম জিয়ার উপদেষ্টা হাবিবুর রহমান হাবিব, বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির যুগ্ম মহাসচিব এ্যাডভোকেট মজিবুর রহমান সরোয়ার, যুগ্ম মহাসচিব ও বর্তমান সংসদ সদস্য হারুন অর রশিদ, বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক (রাজশাহী বিভাগ) ও সাবেক উপমন্ত্রী এ্যাডভোকটে এম রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু, বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির রাজশাহী বিভাগীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক এ্যাডভোকেট শাহীন শওকত ও ওবায়দুর রহমান চন্দন, বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও রাজশাহী জেলা বিএনপি’র আহ্বায়ক আবু সাঈদ চাঁদ, যুগ্ম আহবায়ক সাইফুল ইসলাম মার্শাল, বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও রাজশাহী জেলা বিএনপি’র সদস্য সাবেক সংসদ সদস্য এ্যাডভোকেট নাদিম মোস্তফা ও বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য সহিদুন্নাহার কাজি হেনা।
আমন্ত্রিত অতিথি ছিলেন বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির খুলনা বিভাগের সাংগঠনিক সম্পাদক নজরুল ইসলাম মঞ্জু, চট্টাগ্রাম মহানগর বিএনপি’র আহবায়ক শাহাদাত হোসেন, জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য তাবিথ আওয়াল ও ঢাকা দক্ষিণ সিটির মেয়র প্রার্থী বিএনপি নেতা ইঞ্জিনিয়ার ইশরাক হোসেন।
আরো উপস্থিত ছিলেন রাজশাহী জেলা বিএনপি’র সদস্য সচিব অধ্যাপক বিশ্বনাথ সরকার ও সদস্য গোলাম মোস্তফা মামুন, যুবদল কেন্দ্রীয় মোরতাজুল করিম বাদরু, মহানগর যুবদলের সাবেক সভাপতি ওয়ালিউল হক রানা ও বিএনপি নেতা আনোয়ার হোসেন উজ্জল, যুবদল কেন্দ্রীয় কমিটির রাজশাহী বিভাগীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক ও রাজশাহী জেলা যুবদলের সভাপতি মোজাদ্দেদ জামানী সুমন, সাধারণ সম্পাদক শফিকুল আলম সমাপ্ত, মহানগর যুবদলের সভাপতি আবুল কালাম আজাদ সুইট, সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুর রহমান রিমন, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি জাকির হোসেন রিমন, সাধারণ সম্পাদক আবেদুর রেজা রিপন, মহানগর মহিলা দলের যুগ্ম আহবায়ক এ্যাডভোকেট রওশন আরা পপি, অধ্যক্ষ সখিনা খাতুন, মহিলাদল কেন্দ্রীয় কমিটির রাজশাহী বিভাগীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক রোকাসানা বেগম টুকটুকি, জেলা মহিলা দলের সভাপতি এ্যাডভোকেট সামসাদ বেগম মিতালী, ছাত্রদল কেন্দ্রীয় সংসদের রাজশাহী বিভাগীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক ও রাজশাহী মহানগর ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম রবি, সভাপতি আসাদুজ্জামান জনি ও জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক শরিফুল ইসলাম জনিসহ বিএনপি, অঙ্গ ও সহযোগি সংগঠনের জাতীয় ও স্থানীয় পর্যায়ের অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।
সমাবেশের শুরুতে হাতাহাতি : রাজশাহীতে বিএনপির বিভাগীয় মহাসমাবেশ শুরুর পরপরই হাতাহাতির ঘটনা ঘটেছে। মঞ্চের সামনে বসা নিয়ে নেতাকর্মীদের মধ্যে হাতাহাতি হয়। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সমাবেশস্থলে মঞ্চের সামনে নারীদের জন্য নির্ধারিত স্থানে বসা নিয়ে সিরাজগঞ্জের কর্মীদের সঙ্গে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। তবে কেন্দ্রীয় ও স্থানীয় নেতৃবৃন্দের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি দ্রুতই নিয়ন্ত্রণে আসে।
এর আগে সকাল থেকে দলীয় কার্যালয়ের সামনে অবস্থান নিতে শুরু করেন দলটির নেতাকর্মীরা। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে সমাবেশস্থলে জনসমাগম বাড়তে থাকে।
বাধার মুখে তাবিথ আউয়াল : রাজশাহী মহাসমাবেশে যাওয়ার পথে পুলিশি বাধার মুখে পড়েছেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র প্রার্থী তাবিথ আউয়াল। মঙ্গলবার ঢাকা থেকে রাজশাহীর সমাবেশ স্থলে আসার পথে পুঠিয়াতে পুলিশ তার গাড়িবহর আটকায় এবং সেখানে তাকে রাজশাহীতে না যাওয়ার জন্য অনুরোধ জানায় পুলিশ। এ সময় পুলিশের সঙ্গে তাবিথ আওয়াল সমর্থকদের বাকবিতণ্ডা হয়। পরে তিনি সমাবেশে যোগ দেন।

মার্চ ০৩
০৬:৪৪ ২০২১

আরও খবর

Subcribe Youtube Channel

বিশেষ সংবাদ

ঈদের আগে ৫০ লাখ পরিবার পাচ্ছে আর্থিক সহায়তা

সানশাইন ডক্সে; করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ওয়েভে ক্ষতিগ্রস্ত ৫০ লাখ গরিব পরিবারকে আর্থিক সহায়তা দেওয়ার চিন্তা করছে সরকার। প্রত‌্যকে পরিবারকে ২৫০০ টাকা করে দেওয়া হবে। ঈদের আগে মোবাইলের মাধ্যমে সুবিধাভোগী পরিবারের হাতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঈদ উপহার হিসেবে এ অর্থ পৌঁছে দেওয়া হবে বলে অর্থ বিভাগ সূত্রে জানা গেছে। সূত্র জানায়, সম্প্রতি

বিস্তারিত




এক নজরে

আমাদের সাথেই থাকুন

চাকরি

টিকা কার্ড নিয়ে যাতায়াত করা যাবে

টিকা কার্ড নিয়ে যাতায়াত করা যাবে

করোনাভাইরাস পরিস্থিতির অবনতির কারণে ১৪ এপ্রিল সকাল ৬টা থেকে ২১ এপ্রিল মধ্যরাত পর্যন্ত বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে। তবে এ সময়ে টিকা কার্ড নিয়ে টিকা গ্রহণের জন্য যাতায়াত করা যাবে বলে জানানো হয়েছে। সোমবার (১২ এপ্রিল) মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, অতি জরুরি প্রয়োজন

বিস্তারিত