Daily Sunshine

বাঘার চরে দু’পক্ষের সংঘর্ষে নারীসহ চারজন গুলিবিদ্ধ

Share

স্টাফ রিপোর্টার, বাঘা: রাজশাহীর বাঘার পদ্মার চরাঞ্চলে কলার বাগান পুড়িয়ে দেয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে দিদার ব্যাপারী ও মজনু দর্জি দুপক্ষের মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে।
এ ঘটনায় মজনু ব্যাপারী পক্ষে এক নারীসহ ৪ জন গুলিবিদ্ধ এবং ৩ জন গুরুত্বর আহত হয়েছেন। গুলিবৃদ্ধ চারজনকে রামেক হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে। এদের মধ্যে দু’জনের অবস্থা আশংকা জনক বলে নিশ্চিত করেন কর্তব্যরত চিকিৎসক।
অবশিষ্ঠ তিনজন স্থানীয় বাঘা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভর্তি রয়েছেন। রবিবার সকালে উপজেলার চৌমাদিয়া চরে এ ঘটনা ঘটে। পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন করেন।
স্থানীয় একাধিক সুত্রে জানা গেছে, বাঘা থানার চৌমাদিয়া চরাঞ্চলে দিদার ব্যাপারীর গম ক্ষেতের পাশে মজনু দর্জির কলার বাগান রয়েছে। বাগানে গত ২৬ ফেব্রুয়ারি সকালে দিদার ব্যাপারী তার লোকজন নিয়ে জমির আগাছা দমন করার লক্ষে আগুন দেয়। এতে পার্শ্ববর্তী মজনু ব্যাপারীর কলার বাগানে আগুন ছড়িয়ে পড়ে।
ফলে কলার বাগানে ব্যাপক ক্ষতি সাধান হয়। এরপর উভয়ের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। ঘটনার এক পর্যায় সন্ধ্যে ৭ টার সময় চৌমাদিয়া বাজারে দিদার ব্যাপারীকে চড়-থাপ্পড় মারে মজনুদর্জি।
রবিবার সকাল ১০ টার দিকে কলার বাগান মালিক মজনুদর্জি বাগান পরিচর্চা করতে গেলে গম ক্ষেত্রের মালিক দিদার ব্যাপারী তার লোকজন নিয়ে অতর্কিত মজনু দর্জির উপরে হামলা চালায়। এ খবর পেয়ে মজনুর লোকজন ঘটনাস্থালে এগিয়ে এলে তাদের সকলের উপরে পরিকল্পিত ভাবে হামলা এবং গুলিবর্ষণ করা হয়।
এতে লিটন (২৯) আব্দুর রাজ্জাক (৩৩) মরিয়ম বেগম (৪৫) ও দুলাল ব্যাপরী গুলিবিদ্ধ হয়। একই সাথে হাসুয়ার কোপ খেয়ে আহত হন ইদ্রিশ আলী (৩০) ইয়াদ আলীদর্জি (৪২) এবং ইব্রাহিম (২৮)।
বাঘা থানা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. সোলায়মান আলী জানান আহত ৭ জনের মধ্যে গুলিবিদ্ধ চারজনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রামেক হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে। এদের মধ্যে আব্দুর রাজ্জাকের পেটে এবং লিটনের বুকে গুলি লেগেছে। তাদের দুজনের অবস্থা আশাংকা জনক।
বাঘা থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নজরুল ইসলাম জানান, খবর পাওয়া মাত্র ঘটনা স্থালে পুলিশ পাঠিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন করা হয়েছে। দুপুর পর্যন্ত কোন পক্ষ অভিযোগ করেনি। তবে, তদন্ত করে এ বিষয়ে আইনী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

মার্চ ০১
০৬:১১ ২০২১

আরও খবর

Subcribe Youtube Channel

বিশেষ সংবাদ

কী বন্ধ, কী খোলা জেনে নিন

কী বন্ধ, কী খোলা জেনে নিন

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বৃদ্ধির প্রেক্ষাপটে ১৪ এপ্রিল থেকে ২১ এপ্রিল পর্যন্ত দেশের সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকছে, বন্ধ থাকছে যানবাহনও। বিধি-নিষেধ থাকছে সার্বিক কার্যাবলী ও চলাচলেও। সোমবার মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে। বন্ধ থাকছে: সকল সরকারি, আধা-সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত ও বেসরকারি অফিস/আর্থিক প্রতিষ্ঠান। সকল প্রকার পরিবহন (সড়ক, নৌ, রেল, অভ্যন্তরীণ

বিস্তারিত




এক নজরে

আমাদের সাথেই থাকুন

চাকরি

টিকা কার্ড নিয়ে যাতায়াত করা যাবে

টিকা কার্ড নিয়ে যাতায়াত করা যাবে

করোনাভাইরাস পরিস্থিতির অবনতির কারণে ১৪ এপ্রিল সকাল ৬টা থেকে ২১ এপ্রিল মধ্যরাত পর্যন্ত বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে। তবে এ সময়ে টিকা কার্ড নিয়ে টিকা গ্রহণের জন্য যাতায়াত করা যাবে বলে জানানো হয়েছে। সোমবার (১২ এপ্রিল) মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, অতি জরুরি প্রয়োজন

বিস্তারিত