Daily Sunshine

এসেছে ৩৩ হাজার মেট্রিকটন চাল, তবুও কমছে না দাম

Share

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি: দেশে চালের বাজারে ভরা মৌসুমেও অস্থিরতা বিরাজ করতে থাকলে ভারত থেকে চাল আমদানির সিদ্ধান্ত নেয় সরকার। শুল্ক বিভাগের ছাড়পত্র নিয়ে দেশে চাল আমদানি শুরু হয় দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম চাঁপাইনবাবগঞ্জের সোনামসজিদ স্থলবন্দর দিয়ে।
চাল আমদানি শুরু হওয়ার এক মাস পেরিয়ে গেলেও নেয় কোন সুফল। উল্টো দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম চাল উৎপাদনকারী জেলা চাঁপাইনবাবগঞ্জসহ দেশের অন্যান্য খুচরা বাজারে বেড়েই চলেছে চালের দাম। বাজার স্বাভাবিক রাখতে গত ২৭ জানুয়ারি থেকে শুরু হয়ে ২৫ ফেব্রুয়ারী পর্যন্ত প্রায় ১ মাসে ভারত থেকে সোনামসজিদ স্থলবন্দর দিয়ে চাল আমদানি করা হয়েছে ৩৩ হাজার ৪১৮ মেট্রিক টন।
গত বৃহস্পতিবার পর্যন্ত এসব চাল এসেছে। পানামা সোনামসজিদ পোর্ট লিংক লিমিটেডের ম্যানেজার (অপারেশন) কামাল হোসেন তথ্যটি নিশ্চিত করেছেন।
খুচরা ব্যবসায়ীরা জানান, ভারত থেকে চাল আমদানিতে চালের বাজারে কোন প্রভাব পড়ছে না। উল্টো প্রত্যেক সপ্তাহে ১-২ টাকা করে বাড়ছে চালের দাম। অনেকেই অভিযোগ করছেন ভারত থেকে আমদানি হওয়া চাল বাজারে আসছে না।
খুচরা ব্যাবসায়ী আনিসুর রহমান জানান, বাজারে ভারতীয় চাল পাওয়া গেলেও দাম কমছে না। গত ১ মাসে কেজি প্রতি ২-৪ টাকা করে বেড়েছে প্রায় সবধরনের চালের দাম। খুচরা বাজারে আঠাশ বিক্রি হচ্ছে ৫২-৫৭ টাকা কেজি দরে।
অন্যদিকে, মিনিকেট ৬০-৬৫ ও মোটা চাল বিক্রি হচ্ছে ৪৪-৪৫ টাকা কেজি দরে। তিনি আরো জানান, ভারতীয় চালের দাম দেশী চালের তুলনায় মোটেও কম নয়। ভারতীয় আমদানি করা মোট চাল খুচরা বাজারে বিক্রি হচ্ছে ৪৫-৪৬ টাকা কেজি দরে।
ভারতীয় আমদানিকৃত চাল বাজারে না আসার অভিযোগ অস্বীকার করেন চাল আমদানিকারক তাসনিম এন্টার প্রাইজের স্বত্বাধিকারী বাবুল ইসলাম। তিনি বলেন, ভারতেই চালের দাম বেশি। স্বর্ণা-৫ ভারত থেকে টন প্রতি নিতে হচ্ছে ৩৭৫ ডলার দামে।
এছাড়াও কাটারি, নাজির, মিনিকেটের দাম পড়ছে টন প্রতি ৪৫০-৪৮০ ডলার। এমনকি স্থলবন্দরে ডিউটি চার্জ ২৫ শতাংশ ধরা হচ্ছে। ট্রাক ভাড়াসহ যাবতীয় খরচ ধরতে গিয়ে দেশী চালের দামের সমপরিমাণ হয়ে যাচ্ছে ভারতীয় আমদানি করা চালের দাম। ভারতীয় আমদানি করা চালে খুচরা ব্যবসায়ীরা তেমন আগ্রহী নয় বলেও জানান তিনি।
পানামা সোনামসজিদ পোর্ট লিংক লিমিটেডের ম্যানেজার (অপারেশন) কামাল হোসেন জানান, মেসার্স তাসনিম এন্টারপ্রাইজ, নজরুল অটো রাইস মিল, মেসার্স ঘোষ এন্টারপ্রাইজসহ কয়েকটি আমদানীকারক প্রতিষ্ঠান এসব চাল আমদানি করেছে। চালগুলোর মধ্যে রয়েছে নন বাশমতি, কাটারি, নাজির, মিনিকেট, স্বর্ণা-৫, রত্নাসহ আউশ চাল। এক মাসে ৩৩ হাজার মেট্রিক টন চাল আমদানি করেও চালের দাম বাড়তে থাকাকে অযোক্তিক বলে মনে করছেন চাল ব্যবসায়ীরা।

ফেব্রুয়ারি ২৮
০৫:৪২ ২০২১

আরও খবর

Subcribe Youtube Channel

বিশেষ সংবাদ

ঈদের আগে ৫০ লাখ পরিবার পাচ্ছে আর্থিক সহায়তা

সানশাইন ডক্সে; করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ওয়েভে ক্ষতিগ্রস্ত ৫০ লাখ গরিব পরিবারকে আর্থিক সহায়তা দেওয়ার চিন্তা করছে সরকার। প্রত‌্যকে পরিবারকে ২৫০০ টাকা করে দেওয়া হবে। ঈদের আগে মোবাইলের মাধ্যমে সুবিধাভোগী পরিবারের হাতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঈদ উপহার হিসেবে এ অর্থ পৌঁছে দেওয়া হবে বলে অর্থ বিভাগ সূত্রে জানা গেছে। সূত্র জানায়, সম্প্রতি

বিস্তারিত




এক নজরে

আমাদের সাথেই থাকুন

চাকরি

টিকা কার্ড নিয়ে যাতায়াত করা যাবে

টিকা কার্ড নিয়ে যাতায়াত করা যাবে

করোনাভাইরাস পরিস্থিতির অবনতির কারণে ১৪ এপ্রিল সকাল ৬টা থেকে ২১ এপ্রিল মধ্যরাত পর্যন্ত বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে। তবে এ সময়ে টিকা কার্ড নিয়ে টিকা গ্রহণের জন্য যাতায়াত করা যাবে বলে জানানো হয়েছে। সোমবার (১২ এপ্রিল) মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, অতি জরুরি প্রয়োজন

বিস্তারিত