Daily Sunshine

অপরাধ প্রবণতা বেড়েছে রাজশাহীতে

Share

রাজু আহমেদ : বছরের শুরুতেই রাজশাহী মহানগর ও জেলায় ১১ টি হত্যা মামলা হয়েছে। জানুয়ারি মাসের এ সংক্রান্ত মামলার মধ্যে ৩টি ছিলো নারী ঘটিত বিষয় এবং একটি ছেলের হাতে বাবা খুন। ১১টির মধ্যে ৪টি হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদ্ধার করেছে পুলিশ। এর আগে ডিসেম্বর মাসে ২ জন এবং নভেম্বরে ৪ জন হত্যার শিকার হন। আর এক বছর আগে ২০২০ সালের জানুয়ারিতে হত্যার ঘটনা ছিলো ৬টি।
এদিকে একই মাসে রাজশাহী জুড়ে মোট ১২টি ধর্ষণের ঘটনা ঘটে এবং নারী ও শিশু নির্যাতনের ঘটনা ঘটে ৩১টি। জেলা প্রশাসনের দেয়া প্রতিবেদন থেকে এমনটাই জানা গেছে। রাজশাহী জেলায় জানুয়ারিতে মোট চিহ্নিত অপরাধ সংঘঠিত হয় ৭৪৫টি। সংখ্যার হিসেবে যা বিগত মাসের তুলনায় বেশি।
জনুয়ারিতে ১১টি হত্যার মামলার মধ্যে মহানগরীর দুইটি এবং জেলার বিভিন্ন থানায় ৯টি। রাজশাহী জেলা পুলিশের মুখপাত্র ইফতেখায়ের আলম জানান, জানুয়ারি মাসে জেলার ৬টি থানায় মোট ৯টি হত্যা মামলা হয়েছে। রাজশাহী মহানগর পুলিশের মুখপাত্র রুহুল কুদ্দস জানান, রাজশাহী মহানগরীর দুইটি থানা এলকায় পৃথক ঘটনায় দুইটি হত্যামামলা হয়েছে।
বোয়ালিয়া থানার ওসি জানান, রাজশাহী মহানগরীর বোয়ালিয়া থানাধীন রাণিবাজার এলাকার একটি হোটেলে বাবুর্চি মারা যান। তিনি রাজশাহী কলেজে লেখাপড়া করতেন। ঘটনাটিকে প্রথমে আত্মহত্যা উল্লেখ করা হয়, তবে ময়নাতদন্ত শেষে প্রতিবেদনে আত্মহত্যা উল্লেখ করা হয়নি। এই ঘটনায় মৃতের বান্ধবী, হোটেলের আরেক বাবুর্চিসহ মোট ৪ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন মৃত যুবকের বাবা। বর্তমানে মামলাটি তদন্তের জন্য সিআইডিকে হস্তান্তর করা হয়েছে।
কাটাখালী থানার ওসি জানান, পৌরসভার বাখরাবাজ এলাকায় গভীর রাতে স্ত্রীকে হত্যা করে তা আত্মহত্যা রূপ দিতে ঘরের ছাদের তীরের সাথে স্ত্রীর লাশ ঝুলিয়ে দেয় স্বামী। পরে কাটাখালী থানা পুলিশের তদন্তে ২৪ ঘন্টার মধ্যেই ঘটনার রহস্য উদঘাটন করা সম্ভভ হয়। জানা যায় স্বামীর পরকীয়ার জেরে স্ত্রীকে হত্যা করা হয়।
এদিকে তানোর থানার ওসি জানান, জানুয়ারিতে ২টি হত্যা মামলা হয়েছে। এর মধ্যে একটি কোর্ট থেকে মামলা এসেছে। ছেলে বিষ খেয়ে মারা যায়। এ ঘটনায় প্রথমে রাজপাড়া থানায় ইউডি মামলা হয়। পরে মৃতের বাবা কোর্টে মামলা করেন মৃতের নানা ও মামাদের বিরুদ্ধে। অপর মামলাটিও ইউডি থেকে হত্যা মামলা হয়েছে। এঘটনায় মৃতের বন্ধুকে আসামী করে মামলা করা হয়। উভয় মামলায় আসামীদের সবাই জামিনে আছেন।
দুর্গাপুর থানার ওসি জানান, দুর্গপুরে জানুয়ারিতে দুইটি নয় একটি হত্যাকণ্ড ঘটে। স্থানীয় একটি পুকুর পাড়ে স্বামী-স্ত্রী ঘর করে থাকতেন। এর পর স্ত্রী বাপের বাড়ি গেলে স্বামী আরেক নারীকে বিয়ে করেন ঘরে তোলে। পূর্বের স্ত্রী ফিরে আসলে এ নিয়ে তাদের মধ্যে দ্বন্ধ দেখা দেয়। এ নিয়ে তাদের মাঝে ঝগড়া বাঁধে। পরিবারের দাবি পরে রাতে বিষ খায় ওই স্ত্রী। এটি হত্যা নাকি আত্মহত্যা তা জানা জায়নি। এখন পর্যন্ত পোস্টমর্টেম রিপোর্ট পাওয়া যায়নি। এঘটনায় দুইজন গ্রেফতার করা হয়েছে। মামলার তদন্তভার এখন সিআইডি কাছে। ডিসেম্বরে আরেকটি ঘটনা রয়েছে। জমি নিয়ে চাচাতো ভাইয়েরা মিলে মারামারি করে। এঘটনায় এক জন আহত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়ে ফিরে আসে এবং বাড়িতে আসরা পর মারা যায়। পরে এঘটনায় মামলা হয়। তবে এই মামলায় আসামীরা পলাতক আছে।
চারঘাট থানার ওসি জানান, প্রথম হত্যা কাণ্ডে দুই গ্রামের বাসিন্দাদের মধ্যে দ্বন্দে একজন মারা যান। মামলা হয়েছে তবে আসামীরা জামিনে রয়েছেন। অপর ঘটনাটি বহুআগের ইউডি মামলা। পরে ইউডি থেকে হত্যা মামলা হয়েছে। আসামী অজ্ঞাত থাকায় কাউকেই গ্রেফতার সম্ভব হয়নি।
মোহনপুর থানার ওসি জানান, পরকীয়ার জেরে মাস্টার্স পড়ুয়া এক যুবককে হত্যা করা হয়। অভিযুক্ত স্বামী-স্ত্রীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। মামলার ক্লও উদ্ধার হয়েছে।
পুঠিয়া থানার ওসি জানান, জানুয়ারিতে একটি হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। ছেলে তার পিতাকে হত্যা করে। জুয়ার টাকা না পেয়ে বাবাকে হত্যা করে বলে তদন্তে জানা গেছে। আসামী গ্রেফতার রয়েছে। সে হত্যার ঘটনা স্বীকার করেছে। মামলাল ক্লু উদ্ধার করা হয়েছে।
বাঘা থানার ওসি জানান, জানুয়ারিতে একটি হত্যাকাণ্ড ঘটে। বাকির টাকা তুলতে গেলে মোবাইল ফোনের দোকানের কর্মচারীকে পরিকল্পিত ভাবে নাটোরে হত্যা করা হয়। এঘটনায় তিনজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তারা ঘটনার সঙ্গে সংযুক্ত ছিল। ওসির দাবি এই হত্যাকণ্ডের ক্লু উদ্ধার করা হয়েছে এবং আসামীদের সকলকেই গ্রেফতার করা হয়েছে।
এদিকে জানুয়ারি মাসে রাজশাহী মহানগর ও জেলায় ধর্ষণের ঘটনা ঘটে ১২টি। ডিসেম্বরে এই সংখ্যা ছিল ১১টি এবং নভেম্বরে ১২টি। ২০২০ সালের জানুয়ারিতে ধর্ষণের শিকার হন ১৬ জন নারী। জানুয়ারিতে নারী ও শিশু নির্যাতনের ঘটনা ঘটে ৩১টি, ডিসেম্বরে ৩২টি, নভেম্বরে ৪১টি এবং ২০২০ সালের জানুয়ারিতে এধরণের ঘটনার সংখ্যা ছিল ৩৫টি। তবে এবছরের জানুয়ারি মাসে ঘটা ধর্ষণ ও এর মামলা সংক্রান্ত বিষয়ে কোনো তথ্য জানাতে পারেনি জেলা মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তর।
জানুয়ারিতে বিভিন্ন থানায় মাদক মাদলা হয়েছে ৪৪৭টি, ডিসেম্বরে ৪২৮টি এবং গত বছর ২০২০ এর জানুয়ারিতে মাদকের মামলা হয়েছিলো ৪৯৫টি। সব মিলিয়ে জানুয়ারি মাসে রাজশাহী জেলায় মোট চিহ্নিত অপরাধ সংঘঠিত হয় ৭৪৫টি, ডিসেম্বরে ছিলো ৬১৬টি এবং গত বছর ২০২০ সালের জানুয়ারিতে ছিলো ৭০৩টি। সংঘটিত অপরাধগুলোর মধ্যে রয়েছে, চুরি, হত্যা, চোরাচালান, দ্রুত বিচার, ধর্ষণ, নারী ও শিশু নির্যাতন, অস্ত্র আইন, সিঁথেল চুরি, মাদকদ্রব্যসহ অন্যান্য গুরুতর অপরাধ।

ফেব্রুয়ারি ২০
০৬:৩৬ ২০২১

আরও খবর

বিশেষ সংবাদ

প্রাণ ফিরে পাচ্ছে রাবির টুকিটাকি চত্বর

প্রাণ ফিরে পাচ্ছে রাবির টুকিটাকি চত্বর

স্টাফ রিপোর্টার ,রাবি: টুকিটাকি চত্বর। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের চিরপরিচিত একটি চত্বর। প্রায় ৩৫ বছর আগে বিশ্ববিদ্যালয়টির লাইব্রেরি চত্বরে ‘টুকিটাকি’ নামের ছোট্ট একটি দোকান চালু হয়। খুব অল্প সময়ের মধ্যেই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মুখে মুখে টুকিটাকি নামটি ছড়িয়ে পড়ে। দোকানটি ভীষণ জনপ্রিয়তা পায়। ফলে সবার অজান্তেই একসময় লাইব্রেরি চত্বরটির নাম হয়ে যায়

বিস্তারিত




এক নজরে

আমাদের সাথেই থাকুন

চাকরি

আসছে ৫৫ হাজার শিক্ষক নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি

আসছে ৫৫ হাজার শিক্ষক নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি

সানশাইন ডেস্ক : মান্থলি পেমেন্ট অর্ডারভুক্ত (এমপিও) শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ৫৫ হাজার শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হবে। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অনুমতি পেলে চলতি মাসেই গণবিজ্ঞপ্তি জারি করতে পারে বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষ (এনটিআরসিএ)। এনটিআরসিএ সূত্রে জানা গেছে, সারা দেশের এমপিওভুক্ত স্কুল-কলেজ, মাদরাসা ও কারিগরি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রায় ৫৭ হাজার ৩৬০টি শূন্য পদের তালিকা

বিস্তারিত