Daily Sunshine

ভবানীগঞ্জ যানজটের বাজার

Share

মাহফুজুর রহমান প্রিন্স, বাগমারা: উপজেলা সদর ভবানীগঞ্জ বাজারে যত্রতত্র পাকিং এ ব্যাপক যানজট সৃষ্টি হওয়ায় অতিষ্ঠত হয়ে পড়েছে পথচারী স্কুল শিক্ষার্থীসহ সাধারণ মানুষ। এখানে যত্রতত্র পাকিং সড়ক ও ফুটপাথ দখল করে দোকান বসানো, রাস্তার ওপর মালামাল রাখা ও হাটের দিন রাস্তা দখল করে ট্রাক থামিয়ে মালামাল লোডিং আনলোডিং করার কারণে নিত্য যানজট লেগেই থাকে গোটা বাজারে।
সরেজমিন ঘুরে ও বাজারে আগত লোকজন ও ব্যবসায়ীদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, সম্প্রতি ভবানীগঞ্জ বাজারের রাস্তা প্রশস্থকরন করা হয়েছে। কিন্তু প্রশস্থকরণের সুবিধা পাচ্ছে না পথচারী ও বাজারে আগত লোকজনেরা। তারা বলেন, ভবানীগঞ্জ বাজারের জিরো পয়েন্ট, কলেজ মোড়, গোড়াউন মোড় ও সিএনজি ট্যান্ড এলাকায় দিন দিন যানজট প্রচন্ড আকার ধারন করেছে।
ভবানীগঞ্জ বাজারের কলেজ মোড় থেকে গোডাউন মোড় পর্যন্ত ভবানীগঞ্জ বাজারের যে বাইপাস রাস্তা আছে তা একেবারে ভাঙ্গাচোরা ও বড় বড় খানাখন্দকে ভরপুর। ফলে বিহানালী ও কাচারী কোয়ালীপাড়া এলাকার যানবহন গুলো এখন ও বাইপাস সড়কে না গিয়ে সরাসরি ভবানীগঞ্জ বাজারের মধ্যদিয়ে তাহেরপুর ও রাজশাহী এলাকার দিকে যায়। এতে বাজারের যানজট আরো তীব্র আকার ধারন করে। এছাড়াও রয়েছে বাজারের মধ্যে যত্রতত্র লোডিং আনলোডিং।
স্থানীয়রা জানান, ভবানীগঞ্জ বাজার আয়তনে খুবই ছোট। তার উপরে এ বাজারের স্বনামধন্য প্রভাবশালী ও নেতা গোছের বড় বড় ব্যবসায়ীরা সপ্তাহের বিভিন্ন দিন এমনকি হাটবারের দিনে রাস্তার উপর বড় বড় ট্রাক দাঁড় করিয়ে ঘন্টার পর ঘন্টা মালামাল লোডিং আনলোডিং করার কারণে ব্যাপক যানজটের সৃষ্টি হয়। তারা প্রভাবশালী হওয়ায় ভয়ে কেউ এর প্রতিবাদ করার সাহস পায়না।
স্থানীয় কয়েকজন শিক্ষার্থীর অভিভাবক জানান, এ বাজারের আশপাশ ঘেষে রয়েছে প্রায় ডজনের উপর বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও উপজেলা প্রশাসনের প্রায় ২২-২৩টি দপ্তর। এছাড়া রয়েছে ভুমি অফিস, সাবরেজিস্ট্রার, পৌর ভবনসহ বিভিন্ন এনজিও এবং ক্লিনিক ডায়াগনস্টিক সেন্টারসহ আরো বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান। এসব প্রতিষ্ঠানে প্রতিদিন শতশত লোকজনকে যাতায়াত করতে হয়। বিভিন্ন যানবাহন যোগে ও পায়ে হেঁটে এসব প্রতিষ্ঠানে যাতাযাতকারী লোকজনকে বাজারের এ যানজটের কারণে ব্যাপক ভোগান্তিতে পড়েন। এছাড়া সপ্তাহের সোম ও শুক্রবার হাটবারের দিন এ বাজরের মধ্যে দিয়ে চলাচল করা আরো মুসকিল হয়ে পড়ে।
হাটের ইজারাদাররা অতি মুনাফার জন্য বাজারের রাস্তা দখল করে বিভিন্ন খুরচা বিক্রেতাদের বসার জায়গা করে দেওয়ার জন্য বাজারের রাস্তা একেবারে বন্ধ হয়ে যায়।
পথচারী বেলাল উদ্দিন ও আমিনুল হক জানান, রাস্তার উপর যত্রতত্র পাকিং, রাস্তা ও ফুটপাথ দখল করে দোকান স্থাপন এবং রাস্তা ও ফুটপথে মালামাল রাখায় সৃষ্টি হচ্ছে যানজট। বাজারের রাস্তা একেবারে কম। তার উপর এ রাস্তার দুই পাশে ভ্যান, মোটরসাইকেল, অটো চার্জার, পিকআপ, শ্যালো গাড়ীসহ বিভিন্ন যানবাহন পাকিং করা ও এসব যানবাহন থেকে মালামাল ওঠানামা করায় ঘন্টার পর ঘন্টা যানজট লেগেইে থাকছে।
সিএনজি চালক রেজাউল, কুদ্দুস ও ভ্যান চালক আতাউর জানান, আমাদের গাড়ি রাখার কোথাও কোন জায়গা নেই। অথচ এ বাজারে গাড়ি প্রবেশ করার সময় পৌর ট্যাক্স দিতে হয়। তারপরও আমরা কোন সুবিধা পাচ্ছি না। আমরা বাধ্য হয়ে রাস্তার পাশে গাড়ি রাখছি।
ভবানীগঞ্জ বাজারের নিত্যযানজটের সত্যতা স্বীকার করে থানার ওসি মোস্তাক আহম্মেদ জানান, আটো রিক্সার অনুমতি দেয় পৌরকর্তৃপক্ষ। আর গাড়ি পার্কিয়ের বিষয়টিও দেখভাল করে তারাই। তারপরও এসব যানজটের বিষয়টি নিয়ন্ত্রনের উদ্যোগ নেওয়া হবে।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার শরিফ আহম্মেদ জানান, পৌর মেয়রের সঙ্গে আলোচনা করে যানজট নিরসনে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। ভবানীগঞ্জ পৌরসভার সহকারি প্রকৌশলী লিটন মিয়া বলেন, ভ্যান সিএনজি ও আটো রিক্সার ট্যান্ডের জন্য জায়গা খোজা হচ্ছে। অচিরেই আমরা ওইসব গাড়ি পাকিংয়ের জন্য জায়গা নির্ধারণ করে দিব।
পৌর মেয়র আব্দুল মালেক মন্ডল প্রায় একই মন্তব্য করে বলেন, এখানে জায়গার বড় সমস্যা। তারপরও সীমিত জায়গায় মাষ্টার প্লান করে অচিরেই কাজ শুরু করব। আশাকরি চলতি বছরের মধ্যেই ভবানীগঞ্জ বাজারকে আরো সুন্দার ও যানজট মুক্ত করা সম্ভব হবে।

ফেব্রুয়ারি ১৯
০৫:৪৭ ২০২১

আরও খবর

বিশেষ সংবাদ

প্রাণ ফিরে পাচ্ছে রাবির টুকিটাকি চত্বর

প্রাণ ফিরে পাচ্ছে রাবির টুকিটাকি চত্বর

স্টাফ রিপোর্টার ,রাবি: টুকিটাকি চত্বর। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের চিরপরিচিত একটি চত্বর। প্রায় ৩৫ বছর আগে বিশ্ববিদ্যালয়টির লাইব্রেরি চত্বরে ‘টুকিটাকি’ নামের ছোট্ট একটি দোকান চালু হয়। খুব অল্প সময়ের মধ্যেই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মুখে মুখে টুকিটাকি নামটি ছড়িয়ে পড়ে। দোকানটি ভীষণ জনপ্রিয়তা পায়। ফলে সবার অজান্তেই একসময় লাইব্রেরি চত্বরটির নাম হয়ে যায়

বিস্তারিত




এক নজরে

আমাদের সাথেই থাকুন

চাকরি

৪১তম বিসিএস প্রিলিমিনারি পরীক্ষা ১৯ মার্চ

৪১তম বিসিএস প্রিলিমিনারি পরীক্ষা ১৯ মার্চ

সানশাইন ডেস্ক : ৪১তম বিসিএসের প্রিলিমিনারি পরীক্ষা নির্ধারিত সময়ে নেয়ার পক্ষে মত দিয়েছে বাংলাদেশ সরকারি কর্ম কমিশন। এই পরীক্ষা ১৯ মার্চ নেয়ার দিন ধার্য করেছে পিএসসি। বুধবার বিকেলে পিএসসিতে এক অনির্ধারিত সভায় যথাসময়ে এই পরীক্ষা নেয়ার মত দেয়া হয়। পরীক্ষা পেছানোর বিষয়ে এ অনির্ধারিত সভায় কোনো আলোচনা হয়নি। ২০১৯ সালের

বিস্তারিত