Daily Sunshine

শিক্ষার্থীর ফরম পূরণের টাকা গায়েব, রেজাল্ট পায়নি বিথি

Share

আরিফুল ইসলাম তপু, বাগাতিপাড়া: অভাবের সংসারে সকল কাজ কর্মের মাঝেও চালিয়ে যাচ্ছেন নিজের পড়াশোনা। জেএসসি পরিক্ষায় ৪ দশমিক ৫০ জিপিএ এবং ৪ দশমিক ৩৩ জিপিএ নিয়ে এসএসসি পরিক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছে। এইচএসসি পরীক্ষাতেও ভালো ফলাফল হবে বলে তার দৃঢ় আশাবাদী ছিল।
কিন্তু শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের করণিকের ভুলের কারণে শিক্ষাজীবন থেকে একটা বছর নষ্ট হয়ে গেলো নাটোরের বাগাতিপাড়ার জামনগর ইউনিয়নের কালী কাপড় সরদার পাড়া গ্রামের দিনমজুর নজরুল ইসলামের মেয়ে এবং উপজেলার বাশঁবাড়ীয়া ডিগ্রী কলেজের মেধাবী শিক্ষার্থী বিথি খাতুনের। তার বোর্ড রেজিস্ট্রেশন নম্বর ১৫১২৬৭৮৯৫৫ ও শ্রেণি রোল ৩২১।
২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের এইচএসসি দ্বিতীয় বর্ষের মানবিক বিভাগের নিয়মিত মেধাবী শিক্ষার্থী বিথি ২০২০ সালে উচ্চ মাধ্যমিক পরিক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য স্থানীয় এক শিক্ষকের মাধ্যমে গত ৪ জানুয়ারি উক্ত কলেজে ফরম পূরণ বাবদ ২ হাজার ৫০০ টাকা প্রদান করেন কলেজের করণিক আব্দুর রাজ্জাকের নিকট।
ফরম পূরণের জন্য ২ হাজার ৫০০ টাকা জমার বিপরীতে বিথির শ্রেণি রোল নম্বর ৩২১ উল্লেখিত জমা রশিদ বইয়ের ২৪১ নম্বর রশিদ তাকে দেন করণিক রাজ্জাক। এরই মধ্যে করোনা ভাইরাসের পাদুর্ভাব দেখা দিলে গত ১৭ মার্চ থেকে অনির্দিষ্ট কালের জন্য বন্ধ করে দেওয়া হয় সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। স্থগিত করা হয় সকল পরীক্ষা।
একবছর অতিবাহিত হওয়ায় সরকারি সিদ্ধান্ত হয় মেধাবী যাচাই করে অটো পাসের। কিন্তু সেই অটো পাসের ফলাফল প্রকাশ হলে অনেক আশা নিয়ে বিথি তার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে গিয়ে জানতে পারেন তার রেজাল্ট আসেনি।
এমন খবরে সে দিশেহারা হয়ে কলেজের করণিক আব্দুর রাজ্জাক এবং অধ্যক্ষ ছাবিহা সুলতানার কাছে গেলে জানতে পারেন সে নাকি ফরম ফিলাপ করেননি তাই তার প্রবেশ পত্র ও রেজাল্ট আসেনি। এমন অনাকাক্ষিত খবরে সে এবং তার পরিবারের সবাই মানসিক ভাবে ভেঙে পড়েছে।
বিথি খাতুন বলেন, আমি রাজশাহী শিক্ষা বোর্ডের অধিনে বাশঁবাড়ীয়া ডিগ্রী কলেজের ২০১৮-১৯ শিক্ষা বর্ষের এইচএসসি দ্বিতীয় বর্ষের মানবিক বিভাগের একজন নিয়মিত ছাত্রী। আমি ২০২০ সালে এইচএসসি পরীক্ষা দেওয়ার জন্য ফরম পূরণ বাবদ দুই হাজার পাঁচশত টাকা জমা দিয়ে আমার শ্রেণি রোল নম্বর ৩২১ দেওয়া জমার রশিদ নিয়ে এসেছি। জমার রশিদ বই নম্বর ২৪১। আমার রেজাল্ট না আসায় কলেজ থেকে আমাকে দোষারপ করা হচ্ছে।
করণিক রাজ্জাক আমার ফরম পূরণের ২ হাজার ৫০০ টাকা আত্মসাৎ করে আমার জীবন থেকে ১টা বছর নষ্ট করে দিয়েছেন। আমি এটার সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে আমার রেজাল্ট চাই। সেজন্য আমি বাঁশবাড়িয়া ডিগ্রী কলেজের করণিক আব্দুর রাজ্জাক আমার ফরম পূরণের ২ হাজার ৫০০টাকা আত্মসাৎ করেছে মর্মে শিক্ষামন্ত্রী, শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের সচিব, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ঢাকা, রাজশাহী মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান ও পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক এবং জেলা প্রশাসককে অবহিত করে উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর একটি অভিযোগ দাখিল করেছি।
এ বিষয়ে বাঁশবাড়িয়া ডিগ্রী কলেজের করণিক আব্দুর রাজ্জাকের কাছে জানতে চাইলে প্রথমে তিনি বলেন, এ পরীক্ষার জন্য বিথি ফরম পূরণ করেনি তাই তার রেজাল্ট আসেনি।
ফরম পূরণ বাবদ ২ হাজার ৫০০ টাকা নিয়ে টাকা জমার রশিদ দিয়েছেন কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে রাজ্জাক বলেন, না এ নজরুলের মেয়ে বিথি কলেজে আসেনি ফরম পূরণ করেনি তাকে কোনো টাকা জমার রশিদও দেওয়া হয়নি। তার বিরুদ্ধে টাকা আত্মসাতের অভিযোগটি সম্পূর্ণ মিথ্যা।
পরে আবার বলেন, বিথি নামে দুইজন পরীক্ষার্থী থাকায় এ সমস্যা হয়েছে। তবে তার সাথে আরো কথা বলে কোনো সঠিক উত্তর পাওয়া যায়নি।
বিষয়টি নিয়ে ওই কলেজের অধ্যক্ষ ছাবিহা সুলতানার কাছে প্রথমে মুঠোফোনে জানতে চাইলে তিনিও ঠিক ওই করণিক রাজ্জাকের মতো একই কথা বলে এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন। প্রতিবেদকের কথার সঠিক উত্তর না দিয়ে মুঠোফোনে কথা বলবেন না বলে জানান এবং এবিষয়ে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে এসে কথা বলতে বলেন।
মেধাবী শিক্ষার্থী নজরুলের মেয়ে বিথির রেজাল্ট আসেনি কেন পরেরদিন কলেজে গিয়ে একই প্রশ্ন করা হলে অধ্যক্ষ ছাবিহা একই কথা বলে দায় এড়িয়ে যান। তবে তিনি আরো বলেন, আমিসহ আমার সকল শিক্ষক ওই মেয়েকে বলেছি যা হওয়ার হয়েছে সামনে বছর ফরম পূরণের জন্য তোমার কোনো টাকা দিতে হবে না, আমরাই তোমার ফরম পূরণের ব্যাবস্থা করবো এনিয়ে আর কিছু করার দরকার নেই।
আমি অভিযোগটি পেয়েছি এবং তদন্তের জন্য মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসারকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন বাগাতিপাড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার প্রিয়াংকা দেবী পাল।
উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আহাদ আলী সরকার বলেন, এ ধরণের কোনো অভিযোগ এখনো তিনি পাননি।

ফেব্রুয়ারি ১৮
০৮:১১ ২০২১

আরও খবর

বিশেষ সংবাদ

প্রাণ ফিরে পাচ্ছে রাবির টুকিটাকি চত্বর

প্রাণ ফিরে পাচ্ছে রাবির টুকিটাকি চত্বর

স্টাফ রিপোর্টার ,রাবি: টুকিটাকি চত্বর। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের চিরপরিচিত একটি চত্বর। প্রায় ৩৫ বছর আগে বিশ্ববিদ্যালয়টির লাইব্রেরি চত্বরে ‘টুকিটাকি’ নামের ছোট্ট একটি দোকান চালু হয়। খুব অল্প সময়ের মধ্যেই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মুখে মুখে টুকিটাকি নামটি ছড়িয়ে পড়ে। দোকানটি ভীষণ জনপ্রিয়তা পায়। ফলে সবার অজান্তেই একসময় লাইব্রেরি চত্বরটির নাম হয়ে যায়

বিস্তারিত




এক নজরে

আমাদের সাথেই থাকুন

চাকরি

আসছে ৫৫ হাজার শিক্ষক নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি

আসছে ৫৫ হাজার শিক্ষক নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি

সানশাইন ডেস্ক : মান্থলি পেমেন্ট অর্ডারভুক্ত (এমপিও) শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ৫৫ হাজার শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হবে। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অনুমতি পেলে চলতি মাসেই গণবিজ্ঞপ্তি জারি করতে পারে বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষ (এনটিআরসিএ)। এনটিআরসিএ সূত্রে জানা গেছে, সারা দেশের এমপিওভুক্ত স্কুল-কলেজ, মাদরাসা ও কারিগরি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রায় ৫৭ হাজার ৩৬০টি শূন্য পদের তালিকা

বিস্তারিত