Daily Sunshine

রাজশাহীর কেন্দ্রগুলোতে উপচে পড়া ভিড় চারদিনে টিকা নিলেন ৪১ হাজার

Share

স্টাফ রিপোর্টার : রাজশাহী বিভাগে গত ৪ দিনে করোনা প্রতিষেধক ভ্যাকসিনের প্রথম ডোজ নিয়েছেন ৪১ হাজার নাগরিক। এদের মধ্যে রাজশাহী জেলার ৬ হাজার ৫০৬ জন। দিন গড়াবার সাথে কেন্দ্রগুলোতে ভ্যাকসিন প্রত্যাশীদের উপচে পড়া ভিড় বাড়ছে। শহরে ভ্যাকসিন নিতে আগ্রহীর সংখ্যা বৃদ্ধি পেলেও উপজেলাগুলোতে এই প্রবণতা কম। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন রাজশাহী জেলার সিভিল সার্জন ডা. কাইয়ুম তালুকদার। তিনি বলেন, উপজেলা পর্যায়ে ভ্যাকসিন দেয়ার সংখ্যা বৃদ্ধি করতে আমরা প্রচার প্রচারণায় গুরুত্ব দিচ্ছি।
রাজশাহী বিভাগের স্বাস্থ্যের পরিচালক ডা: হাবিবুল আহসান তালুকদার জানান, কর্মসূচির চতুর্থ দিন বুধবার ভ্যাকসিন নিয়েছেন ১৭ হাজার ৯৭১জন, তৃতীয় দিন মঙ্গলবার ভ্যাকসিন নিয়েছেন মোট ১৩ হাজার ১১৪ জন, দ্বিতীয় দিন সোমবার নিয়েছেন ৬ হাজার এবং প্রথম দিন রবিবার নিয়েছেন ৪ হাজার। রাজশাহী বিভাগের ৮টি জেলাতেই প্রতিদিনই বাড়ছে ভ্যাকসিনের চাহিদা। এই বিভাগের জন্য প্রথম ধাপে মোট ৬ লাখ ৭২ হাজার ডোজ করোনা প্রতিষেধক ভ্যাকসিন এসেছে। চাহিদা অনুসারে আরো সরবরাহ করবেন সরকার।
এদিকে চতুর্থ দিন বুধবার রাজশাহী জেলায় ভ্যাকসিন নিয়েছেন মোট ৩ হাজার ৫২ জন। এদের মধ্যে ৯টি উপজেলায় নিয়েছেন ৯৩৫ জন এবং সিট কর্পোরেশন এলাকায় নিয়েছেন ২ হাজার ১১৭জন। ৩ হাজার ৫২ জনের মধ্যে পুরুষ ২ হাজার ১১৩ এবং নারী ৯৩৯জন। এর আগে জেলায় মঙ্গলবার নেয় ১হাজার ৮৯৮জন। এর মধ্যে সিটি কর্পোরেশন এলাকার ১ হাজার ১৪০জন এবং ৯টি উপজেলায় নিয়েছেন ৭৫৮জন। সোমবার রাজশাহী জেলায় ভ্যাকসিন নেয় মোট ৭৩৯ জন এবং রবিবার নেয় ৮১৬ জন।
এদিকে রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন এলাকায় গত ৪ দিনে মোট ৪ হাজার ৫ জন ভ্যকসিন নিয়েছেন। যাদের অধিকাংশই পুরুষ। বুধবার নেয় ২ হাজার ১১৭জন, মঙ্গলবার নেয় ১হাজার ১৪০ জন, সোমবার নেয় ৪৪৮জন এবং রবিবার প্রথম দিন নেয় ৩০০ জন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. এফএএম আঞ্জুমান আরা বেগম।
রাসিকের প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা জানান, প্রথম দিন ভ্যাকসিন গ্রহিতার সংখ্যা কম হলেও এখন প্রতিদিন এই সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। যারা ভ্যাকসিন নিয়েছেন তাদের সবাই সুস্থ আছেন। সিটি কর্পোরেশন এলাকার মধ্যে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতাল, বিভাগীয় পুলিশ হাসপাতাল এবং সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে ভ্যাকসিন কেন্দ্র খোলা হয়েছে।
রামেক হাসপাতালের উপপরিচালক ডা. সাইফুল ফেরদৌস জানান, প্রতিদিনই ভ্যাকসিন নেয়া মানুষের সংখ্যা বাড়ছে। জনগণের চাহিদার কথা মাথায় রেখে আমরা হাসপাতালে বুথের সংখ্যা বাড়িয়ে ৮টা করেছি। সকাল ৮ টা থেকে দুপুর ২টা ৩০ মিনিট পর্যন্ত ভ্যাকসিন দেয়া কার্যক্রম চালু থাকবে। আমাদের বুথে রেজিস্ট্রেশনের ব্যবস্থা আছে। যারা বুদ্ধিমান তারা বাড়ি থেকে রেজিস্ট্রেশন সেরে হাসপাতালে শুধু ভ্যাকসিন নিতে আসছেন। এতে উভয় পক্ষেরই সুবিধা হচ্ছে। ভ্যাকসিন নেয়াদের মধ্যে অধিকাংশই ডিফেন্সে কর্মরত। বিভাগীয় পুলিশ হাসপাতালেও ভ্যাকসিন দেয়ার বুথ রয়েছে। তার পরেও অনেকে আমাদের এখানে আসছেন। আমরা কাউকেই ফিরিয়ে দিচ্ছি না।
রাজশাহীর জেলার সিভিল সার্জন ডা. তালুকদার জানান, কেন্দ্রগুলোতে প্রতিদিনই ভ্যাকসিন গ্রহীতার সংখ্যা বাড়ছে। গত ৭ তারিখ আনুষ্ঠানিক ভাবে রাজশাহী জেলাসহ পুরো দেশের সকল জেলা ও উপজেলাগুলোতে ভ্যকসিনেশন প্রোগ্রাম উদ্বোধন করা হয়। প্রথম দুই দিন ভ্যাকসিন নেয়ার ক্ষেত্রে সাধারণ নাগরিকদের ৫৫ বছর বয়সের বাধ্যবাধকতা থকলেও তৃতীয় দিন অর্থাত মঙ্গলবার থেকে ৪০ বছর বয়সের সাধারণ মানুষও এই ভ্যাকসিনের জন্য আবেদনের সুযোগ পাচ্ছেন।
ভ্যাকসিন নেয়ার জন্য রেজিস্ট্রেশন বাধ্যতামূলক। প্রতিটি কেন্দ্রেই রেজিস্ট্রেশনের সুযোগ রাখা হয়েছে। জাতীয় পরিচয় পত্র সাথে করে নিয়ে গেলে বুথে বসে সাধারণ মানুষ ভ্যাকসিনের জন্য আবেদন করতে পারবেন। আর এতোসব সুযোগ সুবিধার কারণে প্রতিদিন ভ্যাকসিন গ্রহীতার সংখ্যা বাড়ছে।
রাহশাহীর জেলা প্রশাসক আব্দুল জলিল বলেন, আমি নিজে ভ্যাকসিন নিয়েছি। দুই দিন হয়ে গেলো, কোনো সমস্যা হয়নি। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি ভ্যাকসিন নিয়ে গুজবে কান না দিয়ে সকলকে ভ্যকসিন নিতে আহ্বান জানান।
গত ২৯ জানুয়ারি রাজশাহী জেলার জন্য প্রথম ধাপে ১৮ হাজার ভায়ালে মোট ১ লাখ ৮০ হাজার ডোজ ভ্যাকসিন গ্রহণ করেন স্থানীয় সিভিল সার্জন। যার মধ্যে রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের এলাকাবাসীর জন্য ৩০ হাজার ডোজ। রাজশাহী নগরীর ৩টি কেন্দ্র ছাড়াও প্রতিটি উপজেলার স্বাস্থ্যকেন্দ্র গুলোতে ভ্যাকসিন দেয়া হচ্ছে এবং সেখানে পৃথক বুথে রেজিস্ট্রেশনের সুযোগও রাখা হয়েছে। এক্ষেত্রে নাগরিকদের তাদের নিজ নিজ জাতীয় পরিচয় পত্র সাথে নিয়ে যেতে হবে। ভ্যাকসিনের প্রথম ডোজ নেয়ার পর অন্তত ৪ থেকে ৮ সপ্তাহের মধ্যে দ্বিতীয় ডোজ নিতে হবে।
এদিকে রাজশাহী বিভাগের অপর ৭টি জেলার মধ্যে চাঁপাইনবাবগঞ্জে নিয়েছেন ৮৫৯জন, নাটোরে ২,০৩৭জন, নওগাঁয় ৩,৪১৮জন, পাবনায় ১,৭৭৩জন, সিরাজগঞ্জে ১,৫১২জন, বগুড়ায় ১,৯৮৮জন, জয়পুরহাটে নিয়েছেন ১,২১৫জন।

ফেব্রুয়ারি ১১
০৬:৪৮ ২০২১

আরও খবর

বিশেষ সংবাদ

প্রাণ ফিরে পাচ্ছে রাবির টুকিটাকি চত্বর

প্রাণ ফিরে পাচ্ছে রাবির টুকিটাকি চত্বর

স্টাফ রিপোর্টার ,রাবি: টুকিটাকি চত্বর। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের চিরপরিচিত একটি চত্বর। প্রায় ৩৫ বছর আগে বিশ্ববিদ্যালয়টির লাইব্রেরি চত্বরে ‘টুকিটাকি’ নামের ছোট্ট একটি দোকান চালু হয়। খুব অল্প সময়ের মধ্যেই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মুখে মুখে টুকিটাকি নামটি ছড়িয়ে পড়ে। দোকানটি ভীষণ জনপ্রিয়তা পায়। ফলে সবার অজান্তেই একসময় লাইব্রেরি চত্বরটির নাম হয়ে যায়

বিস্তারিত




এক নজরে

আমাদের সাথেই থাকুন

চাকরি

আসছে ৫৫ হাজার শিক্ষক নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি

আসছে ৫৫ হাজার শিক্ষক নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি

সানশাইন ডেস্ক : মান্থলি পেমেন্ট অর্ডারভুক্ত (এমপিও) শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ৫৫ হাজার শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হবে। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অনুমতি পেলে চলতি মাসেই গণবিজ্ঞপ্তি জারি করতে পারে বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষ (এনটিআরসিএ)। এনটিআরসিএ সূত্রে জানা গেছে, সারা দেশের এমপিওভুক্ত স্কুল-কলেজ, মাদরাসা ও কারিগরি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রায় ৫৭ হাজার ৩৬০টি শূন্য পদের তালিকা

বিস্তারিত