Daily Sunshine

প্রথমদিনে টিকা নিলেন ৫১৬ জন

Share
Spread the love

স্টাফ রিপোর্টার : রাজশাহীতে প্রথম দিন করোনার টিকা নিলেন ৫১৬ জন। এর মধ্যে রাজশাহী নগরীর তিনটি কেন্দ্রে ৩০০ জন ও জেলার নয়টি উপজেলায় ২১৬ জন করোনার টিকা নিয়েছেন। রোববার সকাল ১০টায় রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল কেন্দ্রসহ নগরীর পুলিশ লাইন হাসপাতাল, সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালসহ উপজেলার নয়টি কেন্দ্রে টিকাদান কার্যক্রম শুরু হয়।
রাজশাহীতে প্রথম টিকা নেন রাজশাহী সদর আসনের সাংসদ ফজলে হোসেন বাদশা। এরপর পর্যায়ক্রমে টিকা নেন রাজশাহীর জেলা প্রশাসক আব্দুল জলিল, হাসপাতালের পরিচালক বিগ্রেডিয়ার জেনারেল শামীম ইয়াজদানী, সিভিল সার্জন কাইয়ুম তালুকদারসহ হাসপাতালের চিকিৎসক, নার্সসহ সরকারের বিভিন্নস্তরের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা-কর্মচারীরা।টিকা নিয়েছেন সাধারণ মানুষও।তবে সাধারণ মানুষদের উপস্থিতি কম ছিলো।
রাজশাহীর সিভিল সার্জন কাইয়ুম তালুকদার জানান, প্রথম দিনে নগরীর তিনটি কেন্দ্রে ও উপজেলার নয়টি কেন্দ্রে মোট ৫১৬ জন করোনা ভাইরাসের টিকা নিয়েছেন।এখন পর্যন্ত সবাই ভালো ও সুস্থ আছেন। কারো কোনো পার্শ্ব প্রতিক্রিয়ার খবর পাওয়া যায়নি। আশা করছি কারো কোনো ধরনের সমস্যা হবে না।
পবার পারিলা থেকে টিকা নিতে এসেছেন কালচিকা গ্রামের কৃষক ইয়াকুব আলী। তিনি বলেন, আমি কৃষিকাজ করি। আমার ছেলে ঢাকায় বেক্সিমকোতে চাকরি করে। সে আমার রেজিস্ট্রেশন করে দেয়। সেই আমাকে পাঠিয়েছে করোনার টিকা নিতে। করোনার টিকা নিতে এসে আমার মধ্যে কোনো ভয়ভীতি কাজ করেনি। নগরীতে বসবাস করেন রমাচন্দ্র ঘোষ। তিনি অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ অফিসার। তিনিও করোনার টিকা নিতে এসেছেন। তিনি বলেন, করোনার টিকা নিতে কোনো ভয় নেই। করোনার টিকা নেওয়ার কারণে বরং আমি সুস্থ থাকবো। টিকা নিতে এসে সাংসদ ফজলে হোসেন বাদশা বলেন, সবাই করোনার টিকা নেন। করোনার টিকা নিতে কোনো ভয় নেই। আমি নিজে করোনার টিকা নিলাম যাতে অন্যকেও আমি করোনার টিকা নেওয়ার কথা বলতে পারি।
এদিকে রাজশাহী নগরীতে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল ও পুলিশ লাইন হাসপাতালসহ প্রতিটি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে একটি করে টিকাদান কেন্দ্র রয়েছে। প্রতিটি কেন্দ্রেই টিকাদান কার্যক্রম শুরু হয়েছে। রাজশাহীতে প্রথম পর্যায়ে ১ লাখ ৮০ হাজার ডোজ করোনার ভ্যাকসিন পৌঁছেছে। এখন পর্যন্ত করোনার ভ্যাকসিন নিতে নিবন্ধন করেছেন সাড়ে ৭ হাজার মানুষ।
এদিকে রাজশাহী বিভাগীয় পুলিশ হাসপাতালে কোভিড-১৯ টিকাদান কেন্দ্রে টিকা প্রদান কার্যক্রমের উদ্বোধন করেছেন রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন।
রবিবার সকাল সাড়ে ১১টায় রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশ আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে এই কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন রাসিক এলাকার করোনা টিকা প্রদান কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে সম্পাদনের লক্ষ্যে গঠিত কমিটির সভাপতি মেয়র লিটন। রাজশাহী বিভাগীয় পুলিশ হাসপাতালে কোভিড-১৯ টিকাদান কেন্দ্রে কনস্টেবল ফিরোজ কবির ১ম টিকা গ্রহণ করেন।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মেয়র বলেন, আজকে সারা বাংলাদেশব্যাপী করোনা ভ্যাকসিন কার্যক্রম শুরু হয়েছে। দীর্ঘ প্রতিক্ষিত ও কাঙ্খিত এ দিনটি আমাদের সামনে উপস্থিত হয়েছে। করোনা নিয়ে যে উদ্বিগ্নতা ছিল, তা দরীভূত হয়েছে। সরকারের পাশাপাশি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান সচেতনতা সৃষ্টিতে নানা উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার দূরদর্শী ও সুযোগ্য নেতৃত্বে আমরা করোনা পরিস্থিতি ভালোভাবে মোকাবেলা করছি। প্রথম দিকেই করোনার ভ্যাকসিনও পেয়েছি।
অপরদিকে রাজশাহীতে প্রথম করোনার টিকা গ্রহণ করেছেন রাজশাহী-২ (সদর) আসনের সংসদ সদস্য এবং বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা।
রবিবার সকাল ১০টায় রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ (রামেক) হাসপাতাল কেন্দ্রে তিনি করোনার টিকা নেন। এ সময় তিনি বলেন, এই ভ্যাকসিন আমার কাছে নিরাপদ মনে হয়েছে। কোন ধরনের ব্যাথা অনুভব করিনি। ভ্যাকসিন নেয়ার পর কোনরকম অস্বাভাবিকও মনে হয়নি। তাই ভয় না পেয়ে সবার প্রতি আমি আহ্বান জানাব- ভ্যাকসিন গ্রহণ করুন। করোনাকে পরাজিত করে সুস্থ থাকুন।
এমপি বাদশার টিকা নেয়ার পর তার সহধর্মিনী অধ্যাপিকা তসলিমা খাতুন, সংরক্ষিত নারী আসনের এমপি আদিবা আনজুম মিতা, জেলা প্রশাসক আবদুল জলিল, রামেক হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শামীম ইয়াজদানী, উপ-পরিচালক ডা. সাইফুল ফেরদৌস এবং সিভিল সার্জন ডা. মো. কাইয়ুম তালুকদার করোনার টিকা গ্রহণ করেন। এরপর রামেক হাসপাতালের অন্যান্য চিকিৎসক, নার্স এবং স্বাস্থ্যকর্মীরা টিকা নিতে শুরু করেন।
রাজশাহী শহরে মোট তিনটি কেন্দ্রে রবিবার টিকা প্রয়োগ শুরু হয়েছে। অন্য দুটি কেন্দ্র হলো- বিভাগীয় পুলিশ হাসপাতাল এবং সম্মিলিত সামরিক হাসপাতাল। বেলা ১২টায় পুলিশ হাসপাতালে টিকা প্রয়োগ কর্মসূচির উদ্বোধন ঘোষণা করেন রাজশাহী সিটি করপোরেশনের মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন।
সিভিল সার্জন ডা. মো. কাইয়ুম তালুকদার জানান, রাজশাহীতে উপজেলা পর্যায়ে ১০টি কেন্দ্রে টিকা প্রয়োগ শুরু হয়েছে। এর মধ্যে ৯ উপজেলার ৯টি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স রয়েছে। এর বাইরে গোদাগাড়ী উপজেলায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ছাড়াও গোদাগাড়ী ৩১ শয্যা বিশেষায়িত হাসপাতালে টিকা দেয়া হচ্ছে।
পবা উপজেলা : রাজশাহীর পবায় করোনাভাইরাসের টিকাদান কার্যক্রম শুর করা হয়েছে। রোববার বেলা ১১টার দিকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে স্থাপিত কেন্দ্রে এ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন উপজেলা পরিষদ ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান আরজিয়া বেগম।
এসময় উপজেলা নির্বাহী অফিসার শিমুল আকতার, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. রাবেয়া বশরী, ডা. তানভীর আহমেদ, ডা. প্রমা আলম, ডা. বাসের, ডা. আনোয়ার হোসেন, ডা. রহিমা, ডা. মিজান, উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. মনিরুল ইসলাম, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা প্রকৌশলী রেজাউল করিম, মুক্তিযোদ্ধা এসএম কামরুজ্জামান, হুজুরীপাড়া ইউনিয়য়ন পরিষদ চেয়ারম্যান গোলাম মোস্তফা, কর্ণহার থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আনোয়ার আলী তুহিন।
এ উপজেলায় প্রথম টিকা গ্রহণ করেন উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. রাবেয়া বশরী। এরপরেই গ্রহণ করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার শিমুল আকতার। এছাড়াও এদিন ৪৭ জনকে এ টিকা দেয়া হয়।
উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. রাবেয়া বশরী জানান, উদ্বোধনী দিনে ৪৭ জনকে কোভিট ১৯ এর টিকা দেয়া হয়েছে। তিনি আরও বলেন, প্রথম দফায় এ উপজেলায় করোনা ভ্যাকসিনের ২১ হাজার ৭৯০ ডোজ পাওয়া গেছে। যা দিয়ে ১০ হাজার ৮৯৫ জনকে টিকাদানের আওতায় আনা যাবে। প্রতিদিনই টিকা গ্রহণের সংখ্যা বাড়বে বলে আশাবদ ব্যক্ত করেন তিনি।
শিবগঞ্জ: চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ আসনের সাংসদ ডা: সামিল উদ্দিন আহম্মেদ শিমুল প্রথম করোনার ভ্যাকসিন নেয়ার মাধ্যমে এ কার্যক্রমের উদ্ধোধন করেন।
রবিবার সারা দেশের ন্যায় এ উপজেলাতেও স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ৩ টি বুথে এ কার্যক্রম শুরু হয়। পরে শিবগঞ্জ উপজেলা নির্বার্হী অফিসার সাকিব আল রাব্বি, উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. সাদিকুল বারী এবং নিববন্ধনকারী নারী পুরুষরা ভ্যাকসিন নেন। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ইউএইচএফপিও ডা. সায়রা খান জানান, প্রথম দিন ১শ জনকে ক্ষুদেবার্তা দেয়া হলেও বেলা ২টা পর্যন্ত ২৬ জন ভ্যাকসিনের প্রথম ডোজ গ্রহন করেছেন। এর আগে ১ হাজার ৭’শ ২২ ভাইল করোনা ভ্যাকসিন ইপিআই স্টোরে প্রদানের জন্য মজুদ করা হয়।
পত্নীতলা: পত্নীতলায় করোনা ভাইরাসের টিকাদান কার্যক্রমের উদ্বোধন করা হয়েছে। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স চত্বরে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আব্দুল গাফফার ফিতা কেটে এ কর্মসূচির উদ্বোধন করেন।
করোনা ভাইরাসের টিকাদান কার্যক্রমের উদ্বোধনী দিনে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ লিটন সরকার, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃপঃ কর্মকর্তা ডাঃ খালিদ সাইফুল্লাহ্, উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান খাদিজাতুল কোবরা মুক্তা, পত্নীতলা থানার ইন্সপেক্টর তদন্ত হাবিবুর রহমান, উপজেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব আব্দুল খালেক চৌধুরী সহ রেজিস্ট্রেশনকৃত উপজেলার ১শ জনকে টিকা প্রদান করা হয়।
নওগাঁ: নওগাঁ সদর হাসপাতালের নতুন ভবনের ৩য় তলায় প্রথমে জেলা প্রশাসক মোঃ হারুন অর রশিদ, পুলিশ সুপার প্রকৌশলী আব্দুল মান্নান মিয়া, সিভিল সার্জন ডাঃ এ কে এম আবু হানিফ টিকা গ্রহণের মধ্য দিয়ে এই ভ্যাকসিন প্রয়োগ কর্মসূচি শুরু হয়। পরে একে একে অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ মেহেদী হাসান তালুকদার, জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আব্দুল মালেক, জেলা মুক্তিযোদ্ধা ইউনিটের সাবেক কমান্ডার হারুন-অল রশীদ, জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী অ,ত,ম আবদুল্লাহেল বাকী, নওগাঁ জেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি নবির উদ্দিন ও জেলা বিএমএ -এর সভাপতি ডাঃ মোঃ হাবিবুর রহমানসহ অন্যান্যরা ভ্যাকসিন গ্রহন করেন।
সিভিল সার্জন অফিস সূত্রে জানা গেছে, নওগাঁ জেলায় ৮৪ হাজার ডোজ টিকা বরাদ্দ পাওয়া গেছে। যা দিয়ে ৪২ হাজার ব্যক্তিকে টিকা দেয়া যাবে। রবিবার জেলা সদরে ৫ টি বুথে মোট ১১০ জনকে টিকা প্রদান করা হচ্ছে। এছাড়াও নওগাঁর ১১টি উপজেলায় ৩৫টি বুথে এসব টিকা দেওয়া হচ্ছে। এছাড়াও জেলায় এপর্যন্ত ৬ হাজার ব্যক্তি টিকা পাওয়ার জন্য রেজিস্ট্রেশন করেছেন।
নিয়ামতপুর: নিয়ামতপুরে করোনা টিকাদান কর্মসূচীর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হয়। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে উপজেলা নির্বাহী অফিসার জয়া মারীয়া পেরেরার সভাপতিত্বে উদ্বোধনী সভায় অডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বক্তব্য রাখেন ও উদ্বোধন করেন খাদ্যমন্ত্রী বীরমুক্তিযোদ্ধা সাধন চন্দ্র মজুমদার এমপি। বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ফরিদ আহমেদ, সহকারী কমিশনার (ভূমি) নিলুফা সরকার, ওসি (তদন্ত) হুমায়ন কবির, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা অফিসার ডাঃ মোঃ তোফাজ্জল হোসেন, উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা অফিসার সেলিম উদ্দিন, বীরমুক্তিযোদ্ধা ও উপজেলা প্রেস ক্লাবের উপদেষ্টা মোঃ আব্দুস সাত্তার।
এরপর পরই উপজেলা নির্বাহী অফিসার জয়া মারীয়া পেরেরা, ওসি (তদন্ত) হুমায়ন কবির, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা অফিসার ডাঃ মোঃ তোফাজ্জল হোসেন, বীরমুক্তিযোদ্ধা ও উপজেলা প্রেস ক্লাবের উপদেষ্টা মোঃ আব্দুস সাত্তার টিকা গ্রহণ করেন।
মান্দা: নওগাঁর মান্দায় করোনাভাইরাসের টিকাদান কার্যক্রম শুর করা হয়েছে। রোববার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে স্থাপিত কেন্দ্রে এ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মোল্লা এমদাদুল হক। এসময় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুল হালিম, মান্দা উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ডা. ইকরামুল বারী টিপু, উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. বিজয় কুমার রায়, মান্দা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শাহিনুর রহমান, উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা আফম আছফানুল আরেফিন, মেডিকেল অফিসার সৌরভ চক্রবর্তী, শাহারিয়ার হাসান তামিম, আবরার ফাইয়াজ লাবিব, হিমাদ্রী শেখর সরকার প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
বাগাতিপাড়া: মহামারি করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে দেশব্যাপী ভ্যাকসিন প্রয়োগ কর্মসূচির অংশ হিসেবে নাটোরের বাগাতিপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এর উদ্বোধন করা হয়। উদ্বোধনে উপজেলায় প্রথম ভ্যাকসিন গ্রহণ করেছেন আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা: ফরিদুজ্জামান। উপজেলা হাসপাতালে করোনা ভ্যাকসিন প্রদান কেন্দ্রে উপস্থিত হয়ে তিনি এই ভ্যাকসিন গ্রহণ করেন। এরপর একই স্থানে ভ্যাকসিন গ্রহণ করেন মেডিকেল টেকনোলোজিষ্ট (ইপিআই) খন্দকার আব্দুল জলিল, আরসাদ আলী, সের স্টাফ এসএম হাসান। উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা: রতন কুমার সাহা’র সভাপতিত্বে এক আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অহিদুল ইসলাম গকুল, উপজেলা নির্বাহী অফিসার প্রিয়াংকা দেবী পাল, ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল হাদী প্রমুখ। জানা যায় বাগাতিপাড়ায় ৩৬৮০ ডোজ করোনা ভ্যাকসিন এসেছে।
রাণীনগর: রাণীনগর উপজেলায় ইউএনও আল মামুনের প্রথম টিকা নেওয়ার মধ্য দিয়ে করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) টিকাদান কর্মসূচি শুরু করা হয়েছে। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে টিকা দান কর্মসূচি শুরু করা হয়। এ উপজেলায় প্রথম ধাপে টিকা পাবেন মোট ২ হাজার ৯৮৫জন।
রাণীনগর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা.ইফতেখারুল আলম খাঁন বলেন, কর্মসূচীর প্রথম দিনে প্রথম টিকা নিয়েছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: আল মামুন। এছাড়া তিনি নিজেসহ হাসপাতালের বিভিন্ন কর্মকর্তা-কর্মচারী এবং রাণীনগর থানার ওসি মো:শাহিন আকন্দসহ ১৯জন পুলিশ সদস্য টিকা নিয়েছেন। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে তিনটি টিকা দান কেন্দ্রে এই টিকা দেওয়া হচ্ছে প্রতিদিন সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৩টা পর্যন্ত। এই উপজেলায় প্রথম ধাপে ২ হাজার ৯৮৫ জনকে টিকা দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন এই কর্মকর্তা
জয়পুরহাট: জয়পুরহাট আধুনিক জেলা হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডাঃ রাশেদ মোবারক জুয়েল প্রথম টিকা গ্রহণ করেন। উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে জেলার পাঁচটি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে একযোগে শুরু হয়ে টিকাদান কর্মসূচি চলে বিকাল ৩ টা পর্যন্ত। এই কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক শরিফুল ইসলাম।
এ সময় কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক ডাঃ রোকেয়া সুলতানা, পুলিশ সুপার সালাম কবির, সিভিল সার্জন ডাঃ ওয়াজেদ আলী, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আরিফুর রহমান ও জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেন উপস্থিত ছিলেন।
চাঁপাইনবাবগঞ্জ: চাঁপাইনবাবগঞ্জের জেলা প্রশাসক মঞ্জুরুল হাফিজ কোভিশিল্ড ভ্যাকসিন নেওয়ার মাধ্যমে উদ্বোধন হলো করোনা ভাইরাস টিকাদান কর্মসূচি। এরপর টিকা নেন সিভিল সার্জন ডাক্তার জাহিদ নজরুল চৌধুরী, আধুনিক সদর হাসপাতালের সার্জারি বিশেষজ্ঞ শহিদুল ইসলাম খান, প্রথম আলোর চাঁপাইনবাবগঞ্জের নিজস্ব প্রতিবেদক আনোয়ার হোসেন দিলু, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব রুহুল আমিন, ডাক্তার গোলাম রাব্বানী, বাংলাদেশ মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশন (বি এম এ) চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার সভাপতি ডা. দুররুল হুদা, পরিবার পরিকল্পনার উপ-পরিচালক ডা. আব্দুস সালাম । এরপর সরকারি বিভিন্ন অফিসের কর্মকর্তাদের টিকা প্রদান করা হয়। উদ্বোধনী দিনে চাঁপাইনবাবগঞ্জ আধুনিক সদর হাসপাতালে ১১৬ জনকে টিকা দেওয়ার প্রস্তুতি রয়েছে বলে জানান হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।
ভোলাহাট: রবিবার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কোভিড-১৯ টিকাদান কার্যক্রমের উদ্বোধন করা হয়। এ কার্যক্রমের প্রথম টিকা গ্রহণ করে উদ্বোধন করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মশিউর রহমান। এর পর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃ কর্মকর্তা ডাঃ আব্দুল হামিদ ও জেলা পরিষদ সদস্য পিয়ার জাহান। পর্যায়ক্রমে মোট ২৯জন টিকা গ্রহণ করেন। এর মধ্যে ২৭ জন পুরুষ ও ২জন নারী। ২টি পুরুষ ও ১ টি নারী বুথ চালু করা হয়েছে।
নাটোর: সারা দেশের মত নাটোরেও করোনা মহামারি প্রতিরোধে কোভিড-১৯ এর টিকাদান কর্মসূচীর আওতায় প্রথম দিন টিকা গ্রহন করেছেন জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, সিভিল সার্জন, বীরমুক্তিযোদ্ধা, সাংবাদিকসহ জেলায় ২০৭ জন। এখন পর্যন্ত সুরক্ষা অ্যাপসে জেলায় নিবন্ধন করেছেন ৬ হাজার ৬৭ জন।
টিকা গ্রহণের মধ্য দিয়ে টিকা প্রয়োগের উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক মো: শাহরিয়াজ। পরপর পুলিশ সুপার লিটন কুমার সাহা, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার জাহাঙ্গীর আলম, সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাঃ মঞ্জুরুর ইসলাম, সিনিয়র সাংবাদিক ইউনাইটেড প্রেস ক্লাবের সভাপতি ও বীর মুক্তিযোদ্ধা নবীউর রহমান পিপলু, ইউনাইটেড প্রেস ক্লাবের সাধারন সম্পাদক বুলবুল আহমেদ ,অ্যাডভোকেট মুক্তার হোসেনসহ ২৭ জন টিকা গ্রহন করেছেন। এসময় সদর হাসপাতালের প্রথম টিকা গ্রহন করেন সিনিয়র স্টাফ নার্স মোহাম্মদ আলী শেখ। এরপর একজন স্বাস্থ্য পরিদর্শক এবং পুলিশ লাইনসের উপ-পরিদর্শক বদিউজ্জামান। তারা টিকা গ্রহন করে কোন পার্শ্ব প্রতিক্রীয়া নেই বলে প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন। এসময় স্থানীয় নাটোর-২ আসনের সংসদ সদস্য শফিকুল ইসলাম শিমুল, সিভিল সার্জন ডাঃ কাজী মিজানুর রহমান,পৌর মেয়র উমা চৌধুরী জলি সহ আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
অপরদিকে সিংড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে উপজেলার সম্মুখ যোদ্ধা সরকারী কর্মকর্তা, পুলিশ, সাংবাদিক, স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তা, কর্মচারীদের করোনা ভ্যাকসিন টিকা প্রদানের উদ্বোধন করেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। প্রথম দিন এই উপজেলায় ৬৫ জন করোনা টিকা গ্রহন করেছেন। গুরুদাসপুর উপজেলায় কোভিড-১৯ টিকাদান কেন্দ্রের আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করেন নাটোর-৪ আসনের সংসদ সদস্য অধ্যাপক আব্দুল কুদ্দুস। এসময় ডাক্তার, নার্স, বীর মুক্তিযোদ্ধাসহ রেজিষ্ট্রেশনভুক্ত ৪১ জনকে টিকা দেওয়া হয়। সাংসদ অধ্যাপক আব্দুল কুদ্দস টিকা গ্রহণকারী ৪১ জন নারী পুরুষকে উৎসাহিত করতে শাড়ী ও লুঙ্গি প্রদান করেন। পাশাপাশি করোনামুক্ত থাকতে সবাইকে পর্যায়ক্রমে টিকা নেওয়ার আহ্বান জানিয়ে বলেন, অক্সফোর্ডের টিকা পৃথিবীর মধ্যে সবচেয়ে নিরাপদ ও গ্রহণযোগ্য। তাই এর কোনো পাশর্^প্রতিক্রিয়া নেই। লালপুর উপজেলায় প্রথম সারির করোনা যোদ্ধাদের টিকাদানের মধ্য দিয়ে কোভিড -১৯ করোনা ভাইরাসের টিকাদান কর্মসুচির উদ্বোধন করেন নাটোর -১ ( লালপুর-বাগাতিপাড়া) আসনের সংসদ সদস্য শহিদুল ইসলাম বকুল। তিনিও টিকা গ্রহনের জন্য সাধারন মানুষকে আহবান জানান। লালপুর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা একেএম শাহাব উদ্দীন জানান, এই উপজেলায় উপজেলায় প্রথম পর্যায়ে সাড়ে তিন হাজার মানুষকে এ টিকা দেয়ার জন্য বরাদ্দ করা হয়েছে। তবে এখন পর্যন্ত মাত্র ৯৩৭ জন রেজিষ্ট্রেশন করেছেন। সকলকে টিকা নেয়ার জন্য রেজিষ্ট্রেশন করতে আহবান জানানো হচ্ছে।
ধামইরহাট: নওগাঁর ধামইরহাটে আনুষ্ঠানিক ভাবে করোনার ভ্যাকসিন গ্রহণের উদ্বোধন করা হয়েছে। ১ম দিনে ভ্যাকসিন নিয়েছেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও), ধামইরহাট থানার ওসি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের প্রধান উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা গণপতি রায় প্রথম ভ্যাকসিন নিয়ে এ যাত্রার শুভ উদ্বোধন করেন। এরপর পরই ভ্যাকসিন গ্রহন করেন ধামইরহাট থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আব্দুল মমিন, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. স্বপন কুমার বিশ্বাসসহ বিভিন্ন বীর মুক্তিযোদ্ধাগণ, পুলিশ বাহিনী ও বিজিবি’র সদস্যরা। ১ম দিনে ৫৭ জন ভ্যাকসিন গ্রহণ করেছেন বলে হাসপাতাল সূত্র জানায়।
গোমস্তাপুর: চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুর উপজেলায় করোনা টিকা নিয়েছে ৮ জন। এ উপলক্ষে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আয়োজিত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃ পঃ কর্মকর্তা ডা: মাসুদ পারভেজ। উদ্বোধনী দিনে জনপ্রতিনিধিদের মধ্যে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হুমায়ুন রেজা, বীর মুক্তিযোদ্ধা মোস্তফা কামাল, চিকিৎসক নাসিরউদ্দিনসহ ৮জন ভ্যাকসিন গ্রহণ করেন। রোববার পর্যন্ত উপজেলায় মোট ২১৮ জন ভ্যাকসিন গ্রহণের জন্য রেজিস্ট্রেশন করেছেন। প্রথম দফায় ৮০৪ পিস ভ্যাকসিন বরাদ্দ পাওয়া গেছে বলে উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ জানিয়েছে।
মহাদেবপুর: সারাদেশে একযোগে করোনার টিকা শুরু হওয়ায় মহাদেবপুরে প্রথম টিকা নিলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মিজানুর রহমান মিলন। টিকা নেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আহসান হাবীব ভোদন, আওয়ামীলীগ নেতা গোলাম নূরানী আলাল, উপজেলা নির্বাচন অফিসার নজরুল ইসলাম, উপজেলা ত্রাণ কর্মকর্তা মো: মুলতান হোসেন, সদর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মাহবুবুর রহমান ধলু, এনায়েতপুর ইউপি চেয়ারম্যান মেহেদী হাসান মিঞা, চাঁন্দাশ ইউপি চেয়ারম্যান মাহমুদান নবী রিপনসহ মোট ১ শত ৬০ জন। উল্লেখ্য যে আগামী ২১ ফেব্রুয়ারী পর্যন্ত ১ম ডোজ টিকা প্রদান করা হবে বলে উল্লেখিত স্বাস্থ্য কর্মকর্তা জানান

ফেব্রুয়ারি ০৮
০৫:২৭ ২০২১

আরও খবর

বিশেষ সংবাদ

প্রাণ ফিরে পাচ্ছে রাবির টুকিটাকি চত্বর

প্রাণ ফিরে পাচ্ছে রাবির টুকিটাকি চত্বর
Spread the love

Spread the loveস্টাফ রিপোর্টার ,রাবি: টুকিটাকি চত্বর। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের চিরপরিচিত একটি চত্বর। প্রায় ৩৫ বছর আগে বিশ্ববিদ্যালয়টির লাইব্রেরি চত্বরে ‘টুকিটাকি’ নামের ছোট্ট একটি দোকান চালু হয়। খুব অল্প সময়ের মধ্যেই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মুখে মুখে টুকিটাকি নামটি ছড়িয়ে পড়ে। দোকানটি ভীষণ জনপ্রিয়তা পায়। ফলে সবার অজান্তেই একসময় লাইব্রেরি চত্বরটির নাম

বিস্তারিত




এক নজরে

আমাদের সাথেই থাকুন

চাকরি

৪১তম বিসিএস প্রিলিমিনারি পরীক্ষা ১৯ মার্চ

৪১তম বিসিএস প্রিলিমিনারি পরীক্ষা ১৯ মার্চ
Spread the love

Spread the loveসানশাইন ডেস্ক : ৪১তম বিসিএসের প্রিলিমিনারি পরীক্ষা নির্ধারিত সময়ে নেয়ার পক্ষে মত দিয়েছে বাংলাদেশ সরকারি কর্ম কমিশন। এই পরীক্ষা ১৯ মার্চ নেয়ার দিন ধার্য করেছে পিএসসি। বুধবার বিকেলে পিএসসিতে এক অনির্ধারিত সভায় যথাসময়ে এই পরীক্ষা নেয়ার মত দেয়া হয়। পরীক্ষা পেছানোর বিষয়ে এ অনির্ধারিত সভায় কোনো আলোচনা হয়নি।

বিস্তারিত