Daily Sunshine

প্রতিবন্ধী ২ সন্তানকে নিয়ে রাস্তায় কিসমত আরা

Share

আসাদুজ্জামান নূর : বুদ্ধি ও শারীরিক প্রতিবন্ধী ২ সন্তানের জননী কিসমত আরা বেগম। বয়স ৫৫ না ৬০ ঠিকভাবে বলতে পারেন না। বিলাসবহুল জীবন নয়, শুধু খেয়ে পরে বেঁচে থাকতেই পথে পথে ঘুরছেন এই অসহায় মা। মায়ের সঙ্গী হয়েছেন প্রতিবন্ধী রাকিব (২৫) ও সাকিব (২৩)।
দুই সন্তান রাকিব ও সাকিবকে ঠিক মত খেতে দিতেও পারেন না তিনি। তাদের পেটের খিদে মেটাতেই ভিক্ষাবৃত্তি বেছে নেন কিসমত আরা।
বেশির ভাগ সময় থাকেন রাজশাহী নগরীর নিউ মার্কেট এলাকায়। পথের মানুষগুলোর দিকে তাকিয়ে একটু সহানুভূতি কামনা করেন। কখনো কিছু টাকা মেলে, আবার কখনো মেলে না। তবুও সন্তানদের নিয়ে দিনভর পথে পথে ঘোরেন। যেন বাড়িতে ফেরার সময় কিছু চাল, ডাল ও সবজি কিনতে পারেন।
নগরীর দড়িখরবোনা এলাকায় বস্তির ছোট্ট একটা ঘরে দুই সন্তান ও বৃদ্ধ স্বামীকে নিয়ে থাকেন। স্বামী আমিন উদ্দিন মন্ডলের দ্বিতীয় স্ত্রী তিনি। তাই বয়সের পার্থক্যটাও বেশি। ৯০ অতিক্রম করা আমিন উদ্দিন মন্ডল একসময় রিকশা চালাতেন। বয়স বাড়ার সাথে সাথে কর্মক্ষমতা হারান। এখন ঘরেই থাকেন। ঠিকমতো চলাফেরাও করতে পারেন না। ফলে সংসারের ভার এখন কিসমত আরার কাঁধে।
রাকিব ও সাকিব জন্মের পর থেকেই প্রতিবন্ধী। শারীরিক ও মানসিক প্রতিবন্ধী হওয়ায় কোলে, পিঠে অথবা হুইল চেয়ারে টানা ছাড়া উপায় নেই। দুজনের কেউই কথা বলতে পারে না। তাদের নাওয়া-খাওয়া, প্রসাব-পায়খানা সবই সামলান কিসমত আরা।
ভারাক্রান্ত বদনে কিসমত আরা বেগম জানান, জন্মের পরেই প্রতিবন্ধকতার লক্ষণ দেখা দেয়। তারা ভেবেছিলেন, ধীরে ধীরে বসতে শিখবে, হাঁটতে শিখবে। কিন্তু আর হাঁটতে-বসতে পারলো না তারা। কিছুটা বড় হওয়ার পরে কিছুদিন ডাক্তার ও কবিরাজ দেখিয়েছেন। অর্থের অভাবে পরে হাল ছেড়ে দিয়েছেন। এখন রাস্তায় ঘোরেন জীবিকার সন্ধানে।
মা কিসমত আরা জানান, কোন সাহায্য পেলে উপকৃত হতেন তারা। নামমাত্র পাওয়া ভাতা দিয়ে তার সংসার চলেনা। তাই চিকিৎসা করাতে পারেন না দুই সন্তানের। অনেকে সাহায্যের কথা বললেও সেটার দেখা মেলেনা। ডাক্তার কবিরাজ দেখার মত সামর্থ নেই। সবাই সাহায্য করলে ভালোমত চিকিৎসা করাতে পারতেন বলে জানান তিনি।
কিসমত আরা বলেন, ‘স্বামীও অসুস্থ, অভাবের সংসার। এই পোলা দুইটা নিয়া কি করবো? তাই ভিক্ষা করি। লোকে খারাপ কথা বুলে, গালি দেয় তাও কিছু বলতে পারি না। সকালে আসি, সারাদিন রাস্তায় রাস্তায় হাঁটাহাঁটি করি। দিনে ভিক্ষা করে কিছু টাকা পাই, রাতে বাড়িতে চাল-সবজি কিনা নিয়ে যাই। কপালে যা জোটে তাই খাই। না জুটলে না খাইয়াই রাতদিন পার হয়।’

জানুয়ারি ২৬
০৭:৩৬ ২০২১

আরও খবর

বিশেষ সংবাদ

প্রাণ ফিরে পাচ্ছে রাবির টুকিটাকি চত্বর

প্রাণ ফিরে পাচ্ছে রাবির টুকিটাকি চত্বর

স্টাফ রিপোর্টার ,রাবি: টুকিটাকি চত্বর। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের চিরপরিচিত একটি চত্বর। প্রায় ৩৫ বছর আগে বিশ্ববিদ্যালয়টির লাইব্রেরি চত্বরে ‘টুকিটাকি’ নামের ছোট্ট একটি দোকান চালু হয়। খুব অল্প সময়ের মধ্যেই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মুখে মুখে টুকিটাকি নামটি ছড়িয়ে পড়ে। দোকানটি ভীষণ জনপ্রিয়তা পায়। ফলে সবার অজান্তেই একসময় লাইব্রেরি চত্বরটির নাম হয়ে যায়

বিস্তারিত




এক নজরে

আমাদের সাথেই থাকুন

চাকরি

আসছে ৫৫ হাজার শিক্ষক নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি

আসছে ৫৫ হাজার শিক্ষক নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি

সানশাইন ডেস্ক : মান্থলি পেমেন্ট অর্ডারভুক্ত (এমপিও) শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ৫৫ হাজার শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হবে। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অনুমতি পেলে চলতি মাসেই গণবিজ্ঞপ্তি জারি করতে পারে বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষ (এনটিআরসিএ)। এনটিআরসিএ সূত্রে জানা গেছে, সারা দেশের এমপিওভুক্ত স্কুল-কলেজ, মাদরাসা ও কারিগরি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রায় ৫৭ হাজার ৩৬০টি শূন্য পদের তালিকা

বিস্তারিত