Daily Sunshine

বাঘায় ডিসির সভায় সুদ খোরদের নিপিড়ন নিয়ে আলোচনা

Share

নুরুজ্জামান, বাঘা: যার যখন ইচ্ছে কয়েক জনকে সঙ্গে নিয়ে খুলে বসছেন সমিতি। নামমাত্র এসব সমিতি খুলে সুদের বিনিময়ে কৃষক ও ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীসহ অনেককেই ঋণ দিচ্ছে তারা। বিনিময়ে নেয়া হচ্ছে ফাঁকা ষ্ট্যাম্প ও চেক। অনেক প্রভাবশালী ব্যক্তিও টাকার প্রাচুর্য থাকায় একই কাজ করছেন। এতে প্রতিনিয়ত চড়া সুদের ফাঁদে পড়ে বিপদগামী হচ্ছেন সুবিধা নিতে আসা অসহায় মানুষ। সম্প্রতি বাঘা উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে জেলা প্রশাসকের সাথে এক মতবিনিময় সভায় বিষয়টি আলোচনায় উঠে আসে।
ওই আলোচনায় একজন গণমাধ্যম কর্মী ও একজন শিক্ষক বলেন, বর্তমানে বাঘায় বেপরোয়া হয়ে উঠেছে সুদের ব্যবসা। বিনা লোকসানে এ ব্যবসা করে রাতা-রাতি কোটিপতি বনে যেতে মরিয়া হয়ে উঠেছেন কিছু অসাধু প্রকৃতির মানুষ। কোন নিয়ম নীতির তোয়াক্কা না করেই নিজের খেয়াল খুশি মতো উচ্চ মাত্রার লাভে সুদের ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে তারা।
শুধু তাই নয়, সুদ গ্রহিতার কাছ থেকে ফাঁকা স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর ও ফাঁকা চেক নিয়ে জিম্মি করছে তাদের। অনেক ক্ষেত্রে আসল ও কিছু সুদের টাকা পরিশোধ করলেও চক্রবৃদ্ধি সুদ দিতে না পারায় ওইদুই কাগজের বলে আইনের মারপ্যাঁচে জেলে যেতে হচ্ছে অসহায় সুদ গ্রহিতাদের।
সরেজমিন উপজেলার বিভিন্ন এলাকা ঘুরে পাওয়া গেছে সুদ ব্যবসায়ীদের নানা তথ্য। বাউসা মাঝপাড়া গ্রামে রয়েছে মাঝপাড়া উন্নয়ন সংস্থা, আড়ানীতে রয়েছে বন্ধন সমবায় সমিতি, মনিগ্রামে রয়েছে সঞ্চয় সমবায় সমিতি, আরিপপুরে রয়েছে আরিপপুর গ্রাম উন্নয়ন সংস্থা। এ রকম নামকাওয়াস্তে আরো অনেক সমিতি লক্ষ করা গেছে উপজেলার বিভিন্ন এলাকায়।
বিশেষ করে উপজেলার বাউসা, পীরগাছা, আড়ানী, মীরগঞ্জ, বাজুবাঘা, সরের হাট, আরিপপুর ও মনিগ্রামসহ উপজেলার প্রায় সব গ্রামেই চলছে সুদের ভয়াবহ আগ্রাসন। দৈনিক, সপ্তাহিক ও মাসিক হারে চলছে জমজমাট এ ব্যবসা। এসব সুদখোরদের বাড়িতে রয়েছে গ্রাহকদের স্বাক্ষর করা শত-শত ফাঁকা চেক ও ফাঁকা স্ট্যাম্প। এদের অত্যাচারে অনেকেই বাড়ী ছেড়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন। আবার অনেকেই মানবেতর জীবন যাপন করছেন। এরমধ্যে চন্ডিপুরের সাজেদুল, তেপুখুরিয়ার আবুসাইদ, আমোদপুরের লালন, আড়ানীর সুমন ও সরেরহাট কলেজের প্রভাষক আব্দুস সালাম অন্যতম।
বাঘার আমোদপুর গ্রামের স্কুল শিক্ষক আব্দুর রাজ্জাক জানান, সাধারণ মানুষ ব্যাংক লোন নিতে গেলে তাদেরকে জমির কাগজ জমা দিতে হয়। এদিক থেকে গ্রামের কোন প্রভাবশালী সুদ ব্যবসায়ী কিংবা সমিতি থেকে ঋণ নিতে জমির কাগজ জমা দিতে হয় না। তাই তারা এ সমস্ত সুদ ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে টাকা নিয়ে থাকেন। এদের মধ্যে বর্তমানে অনেকেই সুদের টাকা দিতে না পেরে বাড়ী-ঘর ছেড়ে অন্যত্র পালিয়ে বেড়াচ্ছেন।
এ নিয়ে সুদ ব্যবসায়ীরা সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলতে রাজি হননি। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বাঘার এক সুদ ব্যবসায়ী জানান, তারা দীর্ঘদিন ধরে ব্যাংক থেকে সিসি লোন নিয়ে বিভিন্ন শ্রেণি ও পেশার মানুষকে আর্থিক সহযোগিতা দিয়ে আসছেন। তাদের দাবি, মানুষ যতটা বলে-ঠিক ততটা নয়, ব্যাংক তাদের কাছে যে পরিমান সুদ নেয় তার চেয়ে সামান্য কিছু বেশি হারে তারা মানুষকে টাকা দিয়ে থাকেন।
এ প্রসঙ্গে বাঘা উপজেলা নির্বাহী নির্বাহী কর্মকর্তা শাহিন রেজা বলেন, সুদ গ্রহিতাদের নানামুখী নির্যাতন ও সুদখোরদের এমন নিপিড়ন এর কথা লোকমুখে শোনা যায়। এ বিষয়ে সু-নিদৃষ্ট অভিযোগ না থাকায় দৃশ্যমান কোন পদক্ষেপ নেওয়া সম্ভব হয় না। তবে যদি কেউ ফৌজদারি অপরাধ করে থাকে, তাহলে তাদের বিরুদ্ধে প্রচলিত আইনে ব্যবস্থা নিতে পারে পুলিশ।

জানুয়ারি ২৩
০৬:৩৯ ২০২১

আরও খবর

বিশেষ সংবাদ

প্রাণ ফিরে পাচ্ছে রাবির টুকিটাকি চত্বর

প্রাণ ফিরে পাচ্ছে রাবির টুকিটাকি চত্বর

স্টাফ রিপোর্টার ,রাবি: টুকিটাকি চত্বর। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের চিরপরিচিত একটি চত্বর। প্রায় ৩৫ বছর আগে বিশ্ববিদ্যালয়টির লাইব্রেরি চত্বরে ‘টুকিটাকি’ নামের ছোট্ট একটি দোকান চালু হয়। খুব অল্প সময়ের মধ্যেই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মুখে মুখে টুকিটাকি নামটি ছড়িয়ে পড়ে। দোকানটি ভীষণ জনপ্রিয়তা পায়। ফলে সবার অজান্তেই একসময় লাইব্রেরি চত্বরটির নাম হয়ে যায়

বিস্তারিত




এক নজরে

আমাদের সাথেই থাকুন

চাকরি

৪১তম বিসিএস প্রিলিমিনারি পরীক্ষা ১৯ মার্চ

৪১তম বিসিএস প্রিলিমিনারি পরীক্ষা ১৯ মার্চ

সানশাইন ডেস্ক : ৪১তম বিসিএসের প্রিলিমিনারি পরীক্ষা নির্ধারিত সময়ে নেয়ার পক্ষে মত দিয়েছে বাংলাদেশ সরকারি কর্ম কমিশন। এই পরীক্ষা ১৯ মার্চ নেয়ার দিন ধার্য করেছে পিএসসি। বুধবার বিকেলে পিএসসিতে এক অনির্ধারিত সভায় যথাসময়ে এই পরীক্ষা নেয়ার মত দেয়া হয়। পরীক্ষা পেছানোর বিষয়ে এ অনির্ধারিত সভায় কোনো আলোচনা হয়নি। ২০১৯ সালের

বিস্তারিত