Daily Sunshine

চারঘাটে নৌকা চান ৩ নেতা

Share
Spread the love

মিজানুর রহমান, চারঘাট: নির্বাচন কমিশনের সদ্য ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী পৌর নির্বাচনের পঞ্চম দফায় রাজশাহীর চারঘাট পৌরসভায় ভোটগ্রহণ হবে আগামি ২৮ ফেব্রুয়ারি। নির্বাচন কমিশনের তফসিল ঘোষণার কয়েক মাস আগে থেকে নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেতে পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক একরামুল হক, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি কাজী মাহমুদুল হাসান মামুন ও ছাত্রলীগের সভাপতি আল মামুন তুষার প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন।
দলীয় সমর্থন পাওয়ার পাশাপাশি জনগণের সমর্থন আদায়েও তারা নিজস্ব অনুসারী নিয়ে ছুটে বেড়াচ্ছেন ভোটারদের দ্বারে দ্বারে। এরই মধ্যে মনোনয়ন প্রত্যাশী ৩ জনের নামের তালিকা কেন্দ্রীয় কমিটির কাছে পাঠানো হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মেরাজ উদ্দিন মোল্লা। তাই মনোনয়ন প্রত্যাশীরা আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সিনিয়র নেতাদের সঙ্গেও যোগাযোগ রেখে যাচ্ছেন।
নেতাকর্মীদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, চারঘাট পৌরসভা নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার অনেক আগে থেকেই নির্বাচনী আমেজ বিরাজ করছে পৌর এলাকায়। এরই মধ্যে নির্বাচনে প্রার্থী হতে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশিরা ব্যানার ও ফেস্টুন ঝুলিয়ে দিয়েছেন পৌর এলাকার অলিতে-গলিতে। মনোনয়ন প্রত্যাশীরা বিভিন্ন মহল্লায় ঘুরে ঘুরে ভোটারদের দৃষ্টি আকর্ষণ করার চেষ্টা করছেন।
একই সঙ্গে প্রার্থীরা দলের সিনিয়র জেলা ও কেন্দ্রীয় নেতাদের সঙ্গেও যোগাযোগ রাখছেন দলীয় সমর্থন পেতে। এবারের নির্বাচনে আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন প্রত্যাশীরা হলেন পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক একরামুল হক, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি কাজী মাহমুদুল হাসান মামুন ও ছাত্রলীগের সভাপতি আল মামুন তুষার। তবে মনোনয়ন প্রত্যাশিদের মধ্যে পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক একরামুল হক প্রচারণায় অনেকটাই এগিয়ে রয়েছেন।
কারন হিসেবে স্থানীয়দের ভাষ্য একরামুল হক ১৯৯১ সালে এসএসসি পাশ করার পর থেকে ছাত্র রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। এরপর চারঘাট এম এ হাদী কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি এবং পৌর আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক হিসেবে ন্যায়, নিষ্টা ও সততার সঙ্গে কাজ করায় দলীয় নেতাকর্মী ছাড়াও একরামুল হকের রয়েছে পৌর এলাকায় ব্যাপক জনপ্রিয়তা। তিনি ২০০১ সাল থেকে ২০০৮ সাল পর্যন্ত বিএনপি জামায়াত জোটের নেতাকর্মী দ্বারা ব্যাপক নির্যাতন সহ্য করেছেন তিনি।
এছাড়াও ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি নির্বাচনে দলীয় প্রার্থীর পক্ষে প্রচারণার সময় উপজেলার শলুয়া ও পরানপুর এলাকায় ককটেল হামলায় গুরুতর আহত হোন। অপরদিকে মহামারী করোনাকালেও একরামুল হক দিন রাত সমানতালে পৌর এলাকার বিভিন্ন পাড়া মহল্লায় বাড়ীতে বাড়ীতে গিয়ে খাদ্য সামগ্রী তুলে দিয়েছেন। প্রচন্ড ঠান্ডা উপেক্ষা করে নেতাকর্মীদের সঙ্গে নিয়ে ব্যাক্তিগত ভাবে শীতবস্ত্র বিতরণ করে চলেছেন। এতো কিছুর পরেও তিনি বঙ্গবন্ধুর আদর্শের পথ থেকে একটুও বিচ্যুত হননি। এসব দিক বিবেচনা করে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন একরামুল হকই পাবেন বলে আশা করেছেন দলের একটি বড় অংশ।
দলীয় সূত্র জানায়, চারঘাট পৌর আওয়ামীলীগের বর্ধিত সভার সিদ্ধান্ত মোতাবেক রেজুলেশন করে তিনজন নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশী নেতার নাম জেলা কমিটির কাছে পাঠানো হয়েছে। এই তালিকায় প্রথমে রয়েছে পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক একরামুল হক, দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছেন উপজেলা যুবলীগের সভাপতি কাজী মাহমুদুল হাসান। এছাড়া তৃতীয় স্থানে রয়েছে উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আল মামুন তুষার।
অনুসন্ধানে জানা যায়, ১৯৯৮ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় চারঘাট পৌরসভা। প্রতিষ্ঠার দুইবছর পর ২০০১ সালে পৌরসভার প্রথম নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী আনোয়ার হোসেন নির্বাচিত হন। এরপর ২০০৫ সালে দ্বিতীয় নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী আনোয়ার হোসেনকে পরাজিত করে বিএনপি প্রার্থী জাকিরুল ইসলাম মেয়র নির্বাচিত হন। এরপর ২০১০ সালের তৃতীয় নির্বাচনে আওয়ামী লীগ থেকে দলীয় মনোনয়ন পান আনোয়ার হোসেন এবং বিএনপি থেকে মনোনয়ন পান জাকিরুল ইসলাম বিকুল। এ নির্বাচনে বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করে বিজয়ী হোন আওয়ামী লীগের সাবেক সাংসদ রায়হানুল হকের স্ত্রী নারগিছ খাতুন। এরপর ২০১৫ সালের পৌরসভার চতুর্থ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পান নার্গিছ খাতুন এবং বিএনপি থেকে মনোনয়ন পান জাকিরুল ইসলাম বিকুল। ওই নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী নির্বাচন নিয়ে স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা দ্বিধা বিভক্ত হয়ে পড়েন।
বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে নারগিছ খাতুন দলীয় প্রার্থীর বিপক্ষে ভোট করে আবারও দলীয় মনোনয়ন পাওয়ায় ক্ষুব্ধ হয় স্থানীয় নেতাকর্মীরা। ফলে ওই নির্বাচনে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন পেয়েও বিএনপির প্রার্থীর জাকিরুল ইসলামের কাছে পরাজিত হন আওয়ামীলীগের নারগিছ খাতুন। পরাজিত হবার পর থেকে অনেকটা আড়ালে আবডালে চলে যান সাবেক মেয়র নারগিছ খাতুন।
এরপর আসনটি পুনরুদ্ধারে মাঠে নামেন পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক একরামুল হক। ওই নির্বাচনের পর থেকে সমানতালে চালিয়ে যাচ্ছেন প্রচার-প্রচারনা। ফলে শক্ত একটি বলয় তৈরী করতে সক্ষম হয়েছেন একরামুল হক। ফলে এবার দলীয় মনোনয়ন পেতে একরামুল হক তৃণমূলের আস্থায় পরিনত হয়েছেন।
বিষযটি সম্পর্কে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সাবেক সাংসদ মেরাজ উদ্দিন মোল্লা বলেন, পৌর আওয়ামী লীগ বর্ধিত সভার মাধমে একটি তালিকা জেলায় পাঠিয়েছিল। ওই তালিকা আমরা কেন্দ্রীয় কমিটির কাছে পাঠিয়েছি।
এছাড়াও সাবেক মেয়র নারগিছ খাতুন দলীয় প্রধান প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা বরাবর একটি আবেদন করেছেন। এখন কে পাবেন দলীয় মনোনয়ন সেটি দেখার বিষয়।

জানুয়ারি ২২
০৭:০৮ ২০২১

আরও খবর

বিশেষ সংবাদ

প্রাণ ফিরে পাচ্ছে রাবির টুকিটাকি চত্বর

প্রাণ ফিরে পাচ্ছে রাবির টুকিটাকি চত্বর
Spread the love

Spread the loveস্টাফ রিপোর্টার ,রাবি: টুকিটাকি চত্বর। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের চিরপরিচিত একটি চত্বর। প্রায় ৩৫ বছর আগে বিশ্ববিদ্যালয়টির লাইব্রেরি চত্বরে ‘টুকিটাকি’ নামের ছোট্ট একটি দোকান চালু হয়। খুব অল্প সময়ের মধ্যেই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মুখে মুখে টুকিটাকি নামটি ছড়িয়ে পড়ে। দোকানটি ভীষণ জনপ্রিয়তা পায়। ফলে সবার অজান্তেই একসময় লাইব্রেরি চত্বরটির নাম

বিস্তারিত




এক নজরে

আমাদের সাথেই থাকুন

চাকরি

৪১তম বিসিএস প্রিলিমিনারি পরীক্ষা ১৯ মার্চ

৪১তম বিসিএস প্রিলিমিনারি পরীক্ষা ১৯ মার্চ
Spread the love

Spread the loveসানশাইন ডেস্ক : ৪১তম বিসিএসের প্রিলিমিনারি পরীক্ষা নির্ধারিত সময়ে নেয়ার পক্ষে মত দিয়েছে বাংলাদেশ সরকারি কর্ম কমিশন। এই পরীক্ষা ১৯ মার্চ নেয়ার দিন ধার্য করেছে পিএসসি। বুধবার বিকেলে পিএসসিতে এক অনির্ধারিত সভায় যথাসময়ে এই পরীক্ষা নেয়ার মত দেয়া হয়। পরীক্ষা পেছানোর বিষয়ে এ অনির্ধারিত সভায় কোনো আলোচনা হয়নি।

বিস্তারিত