Daily Sunshine

পন্ডিত রঘুনাথ দাসের ১৯তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ

Share

স্টাফ রিপোর্টার : বিবেক যেখানে রাজনীতি ও লোভের কাছে জিম্মি হয়ে পড়ে সেখানে গুণীজন বা দেশ বরেণ্য মানুষদের দিকে এ সমাজ তাকাতে সময় পায়না। অনেক ইতিহাস মিশে যায় ধূলিকণার সাথে। এমনই একটি ইতিহাস পন্ডিত রঘুনাথ দাস। নীরবে, নিভৃতে ও অন্তরালে থাকা জাতির এক স্মরণযোগ্য বরেণ্য মানুষ।
বাঙ্গালী ধ্রুপদী সঙ্গীতের ধারাকে মহিমান্বিত ও আরো আলোকিত করেছেন প্রখ্যাত শিল্পী রঘুনাথ দাস। তাঁর কর্মগুণের স্বীকৃতিস্বরূপ ১৯৯৬ সালে বাংলাদেশ, ভারত ও পাকিস্তানের সমন্বয়ে অনুষ্ঠিত আন্তর্জাতিক সংগীত সম্মেলনে ‘পন্ডিত’ উপাধিতে ভূষিত হয়েছেন।
দেশ, মাটি আর মানুষের ভালোবাসা নিয়েই বেঁচে ছিলেন প্রখ্যাত বেহালা বাদক পন্ডিত রঘুনাথ দাস। তবে সমাজ আর রাষ্ট্রের প্রতি অভিমান নিয়ে ১৮ বছর পূর্বে পাড়ি জমিয়েছেন না ফেরার দেশে। আজ বৃহস্পতিবার (৭ জানুয়ারি) এই মহান শিল্পীর ১৯তম মৃত্যুবার্ষিকী।
পন্ডিত রঘুনাথ দাসের জন্ম উত্তরবঙ্গের রাজশাহী শহরে ১৯২৬ সালের ফেব্রুয়ারিতে। পিতা স্বর্গীয় ফটিক চন্দ্র ছিলেন সঙ্গীতানুরাগী এবং যন্ত্রসঙ্গীত শিল্পী। বাবার কাছেই রঘুনাথের বেহালার হাতেখড়ি। পিতার মৃত্যুর পর পিতৃগুরু রাজশাহীর তালন্দর জমিদারি এস্টেটের সভা-বাদক যোগেশ চন্দ্র দাসের কাছে তিনি বেহালা শিখতে থাকেন।
পরে তিনি পশ্চিমবঙ্গের বর্ধমানে ওস্তাদ আকিঞ্চন দত্তের কাছে বেহালায় তালিম নেন। বর্ধমান থেকে রঘুনাথ কোলকাতায় বিশিষ্ট সরোদিয়া রাধিকা মোহন মৈত্র এবং তাঁর কনিষ্ঠ ভ্রাতা রবীন্দ্র মোহন মৈত্রর কাছে ধ্রুপদী সঙ্গীতের তালিম নেন। তিনি পুনরায় নিজ অঞ্চল রাজশাহীতে ফিরে ওস্তাদ হরিপদ দাসের কাছে তালিম নিতে থাকেন।
গুণী এই শিল্পী বাংলাদেশ বেতার রাজশাহীর শুরু থেকে এর সঙ্গে জড়িত ছিলেন। চাকুরী থেকে অবসরের পরেও হারিয়ে যেতেন সুর-তারের ইন্দ্রজালে। তাঁর হাতে বেহালার সুরের মুর্ছনা বিভোর করে তুলতো ভক্ত-অনুরাগীদের। শিল্পীর গভীর দৃষ্টির পেছনে ইতিহাসের পথ খুঁড়ে চলতো।
শিল্পী রঘুনাথ দাস জীবদ্দশায় অনেক বড় বড় সঙ্গীত সম্মেলনে অংশগ্রহণ করেছেন। ১৯৭৫ সালে ট্রান্সক্রিপশন সার্ভিস আয়োজিত জাতীয় উচ্চাঙ্গ সঙ্গীত সম্মেলনে অংশগ্রহণ করেন। ১৯৭৭ সালে ও ১৯৮২ সালে চট্টগ্রাম বেতার আয়োজিত সঙ্গীত সম্মেলন, ১৯৮২ সালের ১০ ডিসেম্বর ঢাকা শিল্পকলা একাডেমী মঞ্চে বেহালায় উচ্চাঙ্গ সঙ্গীত পরিবেশন ও একই বছর ট্রান্সক্রিপশন সার্ভিসের অনুষ্ঠানে অংশ গ্রহণ করেন তিনি। এছাড়াও ১৯৮৩ সালে বহির্বিশ্ব কার্যক্রম সঙ্গীত অনুষ্ঠানে দর্র্শকদের উপস্থিতিতে অংশগ্রহণ করেন।
শিল্পী রঘুনাথ দাস বাংলাদেশ টেলিভিশনের একজন নিয়মিত তালিকাভূক্ত শিল্পী ছিলেন। বাংলাদেশ সরকার আয়োজিত প্রথম ভারত, পাকিস্তান, নেপাল ও বাংলাদেশের শিল্পী সমন্বয়ে সংগীত সম্মেলনেও শিল্পী বেহালায় রাগ সঙ্গীত বাজানোর সুযোগ পান।
সঙ্গীত জগতে এই শিল্পীর অবদান অনস্বীকার্য ও গৌরবের। কাজের স্বীকৃতিস্বরুপ নানা সম্মাননা ও পুরস্কারে ভূষিত হয়েছেন পন্ডিত রঘুনাথ দাস। ১৯৯২ সালের ৯ জুন ঢাকায় আয়োজিত শিল্পকলা একাডেমীর পক্ষ থেকে পেয়েছেন গুণীজন সংবর্ধনা। বাংলাদেশ সোসিওকালচারাল সেন্টার ঢাকা’র আয়োজনে রাজা হোসেন খান স্মৃতি পদক পেয়েছেন ১৯৯৪ সালে। দিনাজপুর নবরূপী গোষ্ঠীর পক্ষ থেকে ওস্তাদ কসির উদ্দিন পদক ও ১৯৯০ সালে রাজশাহী হিন্দোল সংস্কৃতিক গোষ্ঠী আয়োজিত ওস্তাদ মোজাম্মেল হোসেন স্মৃতি পদক প্রদান করা হয় এই মহান শিল্পীকে।
শিল্পী রঘুনাথ দাস বাল্য ও কৈশরে রাজশাহী ভোলানাথ বিবি হিন্দু একাডেমী স্কুলে পড়াশুনা করেছেন। ১৯৯৮ সালের ৭ এপ্রিল ঐ স্কুলের পক্ষ থেকে শিল্পীকে সংবর্ধনা জ্ঞাপন করা হয়। ১৪০৪ বঙ্গাব্দের ১ বৈশাখ রাজশাহী সম্মিলিত সাংস্কৃতিক পরিষদের বৈশাখী উৎসবে শিল্পীকে বিশেষভাবে সংবর্ধিত করা হয়। সঙ্গীত জগতে তাঁর এই অবদানের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে গণশিল্পী সংস্থা স্বীকৃতিস্বরূপ সঙ্গীত জগতের আর এক দিকপাল ‘শিল্পী সাধন সরকার’ এর নামাঙ্কিত স্মৃতিসম্মাননা পুরস্কার প্রদান করে। ২০০২ সালের ৭ জানুয়ারি ইহকালের মায়া ত্যাগ করে চিরতরে বিদায় নেন পন্ডিত রঘুনাথ দাস।

জানুয়ারি ০৭
০৪:৪১ ২০২১

আরও খবর

বিশেষ সংবাদ

পাথর কুড়িয়ে চলে সংসার

পাথর কুড়িয়ে চলে সংসার

স্টাফ রিপোর্টার, রাবি : ভোর ছয়টা। মাঘের কনকনে শীত। কুয়াশার চাদরে আবৃত চারপাশ। রোদ নেই, উল্টো মৃদু বাতাস বইছে। বাংলাবান্ধা ইউনিয়ন সংলগ্ন জিরো পয়েন্ট স্থলবন্দরের পাশে মহানন্দা নদীতে নিজেদের কাজে ব্যস্ত সময় পার করছেন শত শত শ্রমিক। নদীর স্বচ্ছ জলে তারা সকলেই পাথর কুড়োচ্ছেন। হিমালয় থেকে উদ্ভূত হয়ে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের

বিস্তারিত




এক নজরে

আমাদের সাথেই থাকুন

চাকরি

৪১ও ৪২তম বিসিএস পরীক্ষার তারিখ ঘোষণা

৪১ও ৪২তম বিসিএস পরীক্ষার তারিখ ঘোষণা

সানশাইন ডেস্ক : ৪১তম বিসিএসের প্রিলিমিনারি এবং ৪২তম বিশেষ বিসিএসের এমসিকিউ পরীক্ষার তারিখ ঘোষণা করেছে সরকারি কর্ম কমিশন (পিএসসি)। আগামী ১৯ মার্চ সকাল ১০টা থেকে ১২টা পর্যন্ত ৪১তম বিসিএসের প্রিলিমিনারি পরীক্ষা ঢাকা, চট্টগ্রাম, রাজশাহী, খুলনা, বরিশাল, সিলেট, রংপুর ও ময়মনসিংহ কেন্দ্রে একযোগে হবে। তার আগে আগামী ২৬ ফেব্রুয়ারি বিকাল ৩টা

বিস্তারিত