Daily Sunshine

রাজশাহীতে বাড়ছে করোনা সংক্রমণ

Share

স্টাফ রিপোর্টার : শীতের আবহ সৃষ্টির সঙ্হে রাজশাহীতেও বাড়তে শুরু করেছে করোনা সংক্রমণ। বেড়েছে ঠান্ডাজনিত রোগ, গণপরিবহনে মানা হচ্ছে না স্বাস্থ্যবিধি। পরিবহনের দরজা-জানালা বন্ধ থাকা, সামাজিক অনুষ্ঠান পিকনিক ভ্রমণ বেশি হওয়ায় সংক্রমণ বাড়ছে বলে সংশ্লিদের অভিমত। এ পরিস্থিতে মানুষের মধ্যে বাড়ছে উৎকণ্ঠা-উদ্বেগ।
সর্বশেষ বুধবার রাজশাহী বিভাগের করোনা পরিসংখ্যানে মোট ৫৪ জন রোগী সনাক্ত হয়েছে। গত মাসে একদিনে সনাক্ত রোগী ছিলো মাত্র ১৬ জন। মাত্র এক মাসের ব্যবধানে সনাক্ত রোগী বেড়েছে সাড়ে তিনগুন। বুধবারের সর্বশেষ তথ্য মিলে রাজশাহী বিভাগে এখন মোট সনাক্ত রোগীর সংখ্যা ২১ হাজার ৮৫০ জন। এরমধ্যে একদিনেই নতুন করে মোট ৫৪ জন সনাক্ত হয়েছে।
রাজশাহী বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. গোপেন্দ্রনাথ আচার্য্য জানান, বিভাগে এ পর্যন্ত সর্বোচ্চ ৩২৭ জন করোনা রোগী মারা গেছেন। সুস্থ হয়েছেন ১৩ জন। মোট ২০ হাজার ২৬৭ জন সুস্থ হয়েছেন। বিভাগজুড়ে বর্তমানে হাসপাতালে ভর্তি আছেন ২ হাজার ৫৬২ জন করোনা রোগী।
এদিকে সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ায় শঙ্কায় রয়েছে রাজশাহীর স্বাস্থ্য বিভাগ। তাই কার্যকর কোনো টিকা না আসা পর্যন্ত করোনাভাইরাস মহামারীকে বাগে আনা মুশকিল বলছেন বিশেষজ্ঞরা। মাস্ক ও সামাজিক স্বাস্থ্য সুরক্ষার সঠিক ব্যবহার করতে তাগিদ দেওয়া হচ্ছে।
রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগের আবাসিক চিকিৎসক ডা. পার্থ মণি ভট্টাচার্য বলেন, ‘শীতে তাপমাত্রা ও কম আর্দ্রাতা করোনাভাইরাসকে আরও বেশি সময়ের জন্য বেঁচে থাকার সুযোগ করে দেবে। সেই সঙ্গে ভিটামিন ডি-এর ঘাটতি ও রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যাওয়ার ফলে করোনাভাইরাস মানুষের ওপর আরও বেশি প্রভাব ফেলতে পারে। শীতকালে নিউমোনিয়া, হাঁপানি ও অন্যান্য সর্দিজনিত রোগের কারণে করোনায় মৃত্যুর হারও বাড়তে পারে। তাই স্বাস্থ্যবিধি মেনে থাকতে হবে।
মেডিসিন বিভাগের অধ্যাপক মাহাবুবুর রহমান বাদশা জানান, শীতে সংক্রমণ বাড়ার আশঙ্কা থাকে। কয়েকটি কারণে শীতে সংক্রমণ বাড়তে পারে। আর্দ্রতা কমে যাওয়ায় খুব দ্রুত ড্রপলেট শুকিয়ে যাবে। মাস্ক না পরলে কাশি, সর্দির সঙ্গে আসা জীবাণু বাতাসে বেশি সময় ভাসমান থাকবে। এ ছাড়া শীতে ধুলা-বালি বেড়ে যায়। ধুলা-বালি জীবাণুর বাহক হিসেবে কাজ করে। মাস্ক পড়া ও সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা ছাড়া এখন কোনো বিকল্প নেই।
রাজশাহী বিভাগীয় স্বাস্থ্য দফতরের পরিচালক ডা. গোপেন্দ্র নাথ আচার্য্য বলেন, করোনার দ্বিতীয় পর্যায় মোকাবেলায় সকল প্রস্তুতি রয়েছে। আগের চেয়ে অনেক বেশি চিকিৎসক ও নার্সদের প্রশিক্ষণ দিয়ে প্রস্তুত রাখা হয়েছে। করোনা রোগিদের জন্য আট জেলায় আপাতত এক হাজার ২৮৭টি বেড প্রস্তুত রাখা হয়েছে। প্রয়োজনে তা আরও বাড়ানো হবে।
ডা. গোপেন্দ্র নার্থ আরো বলেন, রাজশাহী বিভাগে করোনাভাইরাস পরীক্ষার জন্য পাঁচটি ল্যাব রয়েছে। এর মধ্যে রাজশাহীতে দুইটি, বগুড়ায় দুইটি ও সিরাজগঞ্জে একটি। পাঁচটি ল্যাবে প্রতিদিন ৯৪০ জনের নমুনা পরীক্ষা করা সম্ভব হবে।
এ পরিস্থিতে করোনাকে অবহেলা না করে সুস্থ থাকতে সবাইকে মাস্ক পরার তাগিদ দিয়েছেন রাজশাহী জেলা প্রশাসক আব্দুল জলিল। তিনি বলেন, এখন আমরা করোনা ভাইরাসের সেকেন্ড ওয়েভ অতিক্রম করছি। তাই যাতে কেউ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত না হই সেজন্য আমাদের মাস্ক পরতে হবে। যাতে আমরা সুস্থ থাকতে পারি। আমাদের সুস্থ থাকতে মাস্ককে ভ্যাকসিন হিসেবে ব্যবহার করতে হবে।
আব্দুল জলিল বলেন, আমরা সব সরকারি দফতর ও বিপণীবিতানগুলোতে ‘নো মাস্ক, নো সার্ভিস’ কার্যক্রম চালু করেছি। এই কার্যক্রম চালু রাখতেও আমরা সর্বাত্মক চেষ্টা করছি। যাতে কেউ মাস্ক না পরে বিপণীবিতানগুলোতে না আসে।

নভেম্বর ১৯
০৬:৫৩ ২০২০

আরও খবর

পত্রিকায় যেমন

বিশেষ সংবাদ

শীতের আমেজে আহা…ভাপা পিঠা

শীতের আমেজে আহা…ভাপা পিঠা

রোজিনা সুলতানা রোজি : প্রকৃতিতে এখন হালকা শীতের আমেজ। এই নাতিশীতোষ্ণ আবহাওয়ায় ভাপা পিঠার স্বাদ নিচ্ছেন সবাই। আর এই উপলক্ষ্যটা কাজে লাগচ্ছেন অনেক ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী। লোকসমাগম ঘটে এমন মোড়ে ভাপা পিঠার পসরা সাজিয়ে বসে পড়ছেন অনেকেই। ভাসমান এই সকল দোকানে মৃদু কুয়াশাচ্ছন্ন সন্ধ্যায় ভিড় জমাচ্ছেন অনেক পিঠা প্রেমী। রাজশাহীর বিভিন্ন

বিস্তারিত




এক নজরে

আমাদের সাথেই থাকুন

চাকরি

৭ ব্যাংকের সমন্বিত নিয়োগ পরীক্ষা স্থগিত

৭ ব্যাংকের সমন্বিত নিয়োগ পরীক্ষা স্থগিত

সানশাইন ডেস্ক: সাত ব্যাংকের সিনিয়র অফিসার পদের সমন্বিত নিয়োগ পরীক্ষা (২০১৮ সালভিত্তিক) স্থগিত করা হয়েছে। আগামী ৫ ডিসেম্বর রাজধানীর ৬৭টি কেন্দ্রে এ পরীক্ষা হওয়ার কথা ছিল। শনিবার (২৮ নভেম্বর) ব্যাংকার্স সিলেকশন কমিটির (বিএসসি) সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। যে সাতটি ব্যাংকের নিয়োগ পরীক্ষার স্থগিত করা হয়েছে সেগুলো হলো হলো—সোনালী

বিস্তারিত