Daily Sunshine

তদন্তে এসে চা-নাস্তা খেয়েই ফিরে গেলেন খাদ্য অধিদপ্তরের পরিচালক

Share

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি: অনিয়ম-দুর্নীতির তদন্তে এসে ঘটনাস্থলে না গিয়ে চা-নাস্তা খেয়ে তদন্ত কাজ শেষ করেছেন খাদ্য অধিদপ্তরের প্রশাসন বিভাগের পরিচালক আব্দুল্লাহ আল মামুন। এবছরের গত ১৯ জুলাই স্থানীও ও জাতীয় কয়েকটি গণমাধ্যমে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর এলএসডির কর্মকর্তার বিরুদ্ধে সরকারি খালি বস্তা কেনায় অনিয়মের অভিযোগে সংবাদ প্রকাশের পর এর তদন্ত কাজ শুরু করে খাদ্য অধিদপ্তর।
বৃহস্পতিবার চাঁপাইনবাবগঞ্জে তদন্ত কাজে আসেন খাদ্য অধিদপ্তরের প্রশাসন বিভাগের পরিচালক আব্দুল্লাহ আল মামুন। তবে মূল ঘটনাস্থলে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর এলএসডি পরিদর্শনে যাননি তিনি। এমনকি অনিয়ম-দুর্নীতির তদন্তের বিষয়ে সার্কিট হাউজে তার অবস্থানের খবর পেয়ে বৃহস্পতিবার বিকেলে কয়েকজন সংবাদকর্মী উপস্থিত হয়। দীর্ঘসময় অপেক্ষা করেও তিনি এবং জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক অন্তরা মল্লিক কেউই এবিষয়ে কোন কথা না বলেই তড়িঘড়ি করে সার্কিট হাউস ত্যাগ করেন।
সন্ধ্যায় সদর এলএসডিতে গিয়ে দেখা যায়, সেখানকার কর্মকর্তা-কর্মচারীরা সকলেই মূল প্রবেশমুখে অবস্থান করছেন।
কারণ জানতে চাইলে তারা বলেন, খাদ্য অধিদপ্তরের পরিচালক স্যারের পরিদর্শনে আসার কথা। তাই আমরা সকলে দরজায় দাঁড়িয়ে, স্যারকে অভ্যর্থনা জানানোর জন্য। সকাল থেকে আসছে আসছে বলে শুনতে পাচ্ছি আর অপেক্ষা করছি, কিন্তু এখনো আসেননি। কয়েক মিনিট আগে জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক অন্তরা মল্লিক স্যারের গাড়ি সদর এলএসডি’র সামনে দিয়ে চলে গেলো। পরে সন্ধ্যা ৬টা ১৫ মিনিটের দিকে মূল দরজা বন্ধ করে দেয়া হয়। এমনকি সন্ধ্যা ৬টা ৩০ মিনিট পর্যন্ত খাদ্য অধিদপ্তরের প্রশাসন বিভাগের পরিচালক আব্দুল্লাহ আল মামুন চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর এলএসডি পরিদর্শনে আসেননি।
এর আগে এদিন সকাল ১০টায় রাজশাহীর আঞ্চলিক খাদ্য নিয়ন্ত্রককে সঙ্গে নিয়ে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা পরিদর্শনে আসেন আব্দুল্লাহ আল মামুন। এরপর তিনি অনিয়ম-দুর্নীতির মূল ঘটনাস্থল সদর খাদ্য গুদাম পরিদর্শন না করেই রহনপুর, নাচোল, আমনুরা গুদাম পরিদর্শন করেন।
এসময় তিনি আইয়ান জুট মিল ও হাফসা জুট মিল হতে সরবরাহকৃত খালি বস্তার মান যাচাই করেন এবং অধিকাংশ বস্তা পুরাতন ও নিম্ন মানের দেখতে পান। বেলা ৩টার দিকে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সার্কিট হাউজে আসেন এবং সদর গুদামের বিপুল পরিমাণ বস্তা যাচাই না করে সদর এলএসডি’র আপ্যায়নে অংশগ্রহণ করেন।
সূত্র জানায়, ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সিহাব উদ্দীন আইয়ান জুট মিল ও হাফসা জুট মিলের প্রায় ৪ লক্ষ পুরাতন ও নিম্নমানের বস্তা কেনার ১০ লক্ষ টাকা উৎকোচ নিয়েছেন। উৎকোচের টাকা তার বিশ্বস্ত সহচর খাদ্য গুদামের সাথে সার্বক্ষণিক সম্পৃক্ত ব্যবসায়ী মেসার্স গফুর রাইস মিলের মালিক রাজীবের ব্যাংক একাউন্টের মাধ্যমে প্রহণ করেছেন।
খাদ্য অধিদপ্তরের প্রশাসন বিভাগের পরিচালকের তদন্ত কাজ ও পরিদর্শনের বিষয়ে মুঠোফোনে ফোন দিয়েও জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক অন্তরা মল্লিক ফোন রিসিভ করেননি।
তবে মুঠোফোনে অনেকবার চেষ্টা করেও খাদ্য অধিদপ্তরের প্রশাসন বিভাগের পরিচালক আব্দুল্লাহ আল মামুনের নম্বর বন্ধ পাওয়া যায়।

অক্টোবর ১৪
০৬:১৮ ২০২০

আরও খবর

পত্রিকায় যেমন

বিশেষ সংবাদ

নগরীর পুরাতন বইয়ের বাজার, কেমন আছেন দোকানীরা?

নগরীর পুরাতন বইয়ের বাজার, কেমন আছেন দোকানীরা?

আবু সাঈদ রনি: সোনাদীঘি মসজিদের কোল ঘেষে গড়ে উঠেছে রাজশাহীর ঐতিহ্যবাহী পুরাতন বইয়ের দোকান। নিম্নবিত্ত ও অস্বচ্ছল শিক্ষার্থীদের একমাত্র আশ্রয়স্থল এই পুরাতন লাইব্রেরী। মধ্যবিত্তরা যে যায় না ঠিক তেমনটিও না। কি নেই এই লাইব্রেরীতে? একাডেমিক, এডমিশন, জব প্রিপারেশনসহ সব ধরনের বই রাখা আছে সারি সারি সাজানো। নতুন বইয়ের দোকানের সন্নিকটে

বিস্তারিত




এক নজরে

আমাদের সাথেই থাকুন

চাকরি

চাকুরির নিয়োগ দিচ্ছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়

চাকুরির নিয়োগ দিচ্ছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়

সানশাইন ডেস্ক : রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে বিভিন্ন পদে জনবল নিয়োগ দেয়া হবে। রাবির নিজস্ব ওয়েবসাইটে এই নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়েছে। পদের নাম: কম্পিউটার অপারেটর পদ সংখ্যা: ০১ টি। বেতন: ১২৫০০-৩০২৩০ টাকা। পদের নাম: মেডিক্যাল টেকনােলজিস্ট (ফিজিওখেরাপি) পদ সংখ্যা: ০২ টি। বেতন: ১২৫০০-৩০২৩০ টাকা। পদের নাম: মেডিক্যাল টেকনােলজিস্ট (ডেন্টাল) পদ সংখ্যা:

বিস্তারিত