Daily Sunshine

উত্তরাঞ্চলে গো খাদ্যের সংকট চরমে

Share

মাহফুজুর রহমান প্রিন্স: বন্যা ও অতি বৃষ্টির কারণে রাজশাহী ও আশপাশের বিভিন্ন জেলা ও উপজেলাগুলোতে গোখাদ্যোর তীব্র সংকট দেখা দিয়েছে। খড়ের দাম ব্যাপক বৃদ্ধি পেয়েছে। বিপাকে পড়েছে খামারী ও প্রান্তিক কৃষকরা। বাড়ির গবাদী পশুকে ঠিকমতো খাবারের যোগান দিতে না পারায় অনেকই কম দামে সেগুলো বিক্রি করে দিতে বাধ্য হচ্ছেন।
ফাঁকা ও পতিত জমিতে আগে গবাদী পশু ছেরে দিয়ে রাখা হতো। মাঠে ঘুরে ঘুরে পশুগুলো তাদের খাবার সংগ্রহ করতো। তবে বন্যা ও অতিবৃষ্টির কারণে এখন পর্যন্ত এসব জমিতে পানি জমে রয়েছে। ফলে পশুগুলোকে বাড়িতে বা গোয়ালে রেখেই খাওয়াতে হচ্ছে। এদিকে বর্ষার আগে যেখানে ১০০ আটি খরের দাম ছিলো ২০০ টাকা, এখন তা ১২শ টাকা বৃদ্ধি পেয়ে ১৫শ টাকায় গিয়ে ঠেকেছে। এতে গবাদী পশু পালকদের খরচ বৃদ্ধি পেয়েছে। বাধ্য হয়ে অনেকেই জলাবদ্ধ স্থানে গজিয়ে ওঠা কচুরিপানা সংগ্রহ করে গরুকে খাওয়াচ্ছেন। ছবিতে বাগমারা উপজেলার একটি পরিবারের নারী ও শিশুদের দেখা যাচ্ছে তারা নৌাকায় করে কচুরিপানা সংগ্রহ করে বাড়িতে নিয়ে যাচ্ছেন গবাদীপশুকে খাওয়ানোর জন্য।
মোহনপুর উপজেলার কৃষক আজফাল হোসেন জানান, তার বাড়িতে চারটি গরু ছিল। এবারে পর পর তিন দফা বন্যার কারণে আশে পাশের এলাকাগুলো তলিয়ে যাওয়ায় গোখাদ্যের চরম সংকট্ দেখা দিয়েছে। খড়ের দাম বহুগুন বেড়ে যাওয়ায় বাধ্য হয়ে একটি গরু রেখে বাকি গুলো বিক্রি করে দিতে বাধ্য হয়েছেন। একই গ্রামের নুরুল ইসলাম জানান, আগে ২০০ টাকা দিয়ে ১০০ আটি খড় কিনতাম। সেই খড় এখন ১ হাজার ৫শ টাকায় কিনতে হচ্ছে। খড়ের এই ব্যাপক মূল্য বৃদ্ধির কারণে বাধ্য হয়ে তারা খাল বিল থেকে কুচুরীপানা এনে গরুকে খাওয়াচ্ছেন।
বাগমারা উপজেলার খড় বিক্রেতা জবান আলী জানান, বন্যা ও অতি বৃষ্টির কারণে সব জায়গায় গোখাদ্যের চরম সংকট দেখা দিয়েছে। উপজেলা প্রানী সম্পদ কর্মকর্তা ডা: আতিবুর রহমান জানান, বন্যা ও অতিবৃষ্টির কারণে গোখাদ্যের এমন সংকট দেখা দিয়েছে। গবাদি পশুগুলোকে বিকল্প ভাবে খাওয়ানোর জন্য প্রানী সম্পদ দপ্তর থেকে খামারী ও প্রান্তি গরুর মালিকদের পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে। রাস্তার ধারে ফাঁকা জায়গায় ঘাসের কাটিং লাগানো ও বিকল্প উপায়ে গমের ভুষি খাওয়ার জন্য বলা হচ্ছে।

অক্টোবর ১৪
০৬:১৭ ২০২০

আরও খবর

পত্রিকায় যেমন

বিশেষ সংবাদ

নগরীর পুরাতন বইয়ের বাজার, কেমন আছেন দোকানীরা?

নগরীর পুরাতন বইয়ের বাজার, কেমন আছেন দোকানীরা?

আবু সাঈদ রনি: সোনাদীঘি মসজিদের কোল ঘেষে গড়ে উঠেছে রাজশাহীর ঐতিহ্যবাহী পুরাতন বইয়ের দোকান। নিম্নবিত্ত ও অস্বচ্ছল শিক্ষার্থীদের একমাত্র আশ্রয়স্থল এই পুরাতন লাইব্রেরী। মধ্যবিত্তরা যে যায় না ঠিক তেমনটিও না। কি নেই এই লাইব্রেরীতে? একাডেমিক, এডমিশন, জব প্রিপারেশনসহ সব ধরনের বই রাখা আছে সারি সারি সাজানো। নতুন বইয়ের দোকানের সন্নিকটে

বিস্তারিত




এক নজরে

আমাদের সাথেই থাকুন

চাকরি

চাকুরির নিয়োগ দিচ্ছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়

চাকুরির নিয়োগ দিচ্ছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়

সানশাইন ডেস্ক : রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে বিভিন্ন পদে জনবল নিয়োগ দেয়া হবে। রাবির নিজস্ব ওয়েবসাইটে এই নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়েছে। পদের নাম: কম্পিউটার অপারেটর পদ সংখ্যা: ০১ টি। বেতন: ১২৫০০-৩০২৩০ টাকা। পদের নাম: মেডিক্যাল টেকনােলজিস্ট (ফিজিওখেরাপি) পদ সংখ্যা: ০২ টি। বেতন: ১২৫০০-৩০২৩০ টাকা। পদের নাম: মেডিক্যাল টেকনােলজিস্ট (ডেন্টাল) পদ সংখ্যা:

বিস্তারিত