Daily Sunshine

রাজশাহীর বাজারে সবজির দামে আগুন

Share

স্টাফ রিপোর্টার : দফায় দফায় বেড়েই চলেছে সবজিসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের দাম। তবে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে সংঘটিত ধর্ষণের প্রতিবাদে দেশজুড়ে চলমান বিভিন্ন কর্মসূচির কারনে দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির বিষয়টি আলোচনায় আসছে না। মূল্যবৃদ্ধির আগুন লেগেছে রাজশাহীর বাজারেও। ক্রমাগত বেড়েই চলেছে সব রকমের সবজির দাম। এছাড়াও অতিমাত্রায় বেশি দামে বিক্রি হয়েছে শীতকালীন শাক-সবজি।
শুধু কাঁচা মরিচ ও পেঁয়াজের নয়, দফায় দফায় দাম বেড়ে কয়েক সপ্তাহের ব্যবধানে বিভিন্ন ধরনের সবজির কেজি ১০০ ছুঁইছুঁই। শুক্রবার রাজশাহীর সাহেববাজারসহ বিভিন্ন কাঁচাবাজার ঘুরে এসব তথ্য জানা গেছে।
বাজারে সব রকমের সবজির দাম কেজি প্রতি ১০ থেকে ৪০ টাকা বেড়েছে। সবজির তুলনায় দাম কম মাছ-মাংসের। বেশ কিছু সবজির দাম ১০০ টাকা ছাড়িয়েছে। সেখানে পোল্ট্রি মুরগি ১২০ টাকা কেজিতে বিক্রি হয়েছে। ক্রেতারা বলছেন, দাম বেশি হওয়ায় সবজি খাওয়া কমিয়ে দিচ্ছেন তারা, তুলনামূলক দাম কম হওয়ায় কিনছেন মাছ-মাংস।
নগরীতে বেগুন কেজি প্রতি ১০ টাকা বেড়ে ৭০ টাকা, পটল ১৫ টাকা বেড়ে ৫০ টাকায় ও গত সপ্তাহে ৬০ টাকায় বিক্রি হওয়া করলা বিক্রি হয়েছে ১০০ টাকা কেজিতে। আর ৫ টাকা বেড়ে বহুল ব্যবহৃত সবজি আলু বিক্রি হয়েছে প্রতি কেজি ৪৫ টাকায়। কেজিতে ১০ টাকা করে বৃদ্ধি পেয়ে ঢেঁড়স ৫০ টাকা ও বরবটি ৬০ টাকায় বিক্রি হয়েছে।
আদা-রসুনের দাম অপরিবর্তিত থাকলেও আরেক দফা বেড়েছে পেঁয়াজ ও কাঁচা মরিচের দাম। বাজারে দেশি পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছে ৯০ টাকায়। আর কাঁচা মরিচের দাম কেজি প্রতি ২৫০ টাকা ছাড়িয়েছে।
পেঁয়াজ ও মরিচ বিক্রেতা শাহীনুর ইসলাম বলেন, ইন্ডিয়ান পেঁয়াজ বাজারে না থাকায় দেশি পেঁয়াজের চাহিদা বাড়ছে। আর বন্যায় রাজশাহীর মোহনপুর, পুঠিয়া ও বাগমারা এলাকা ডুবে যাওয়ায় কাঁচা মরিচসহ সব সবজির দাম আরও বাড়বে।
এদিকে, বাজারে শীতকালীন সবজির আমদানী হলেও অতিরিক্ত চড়া দামে বিক্রি হয়েছে; যা নিম্ন আয়ের মানুষের ক্রয় ক্ষমতার বাইরে। শীতকালীন সবজির মধ্যে গাজর ৮০ টাকা, শিম ৪০ টাকা, ফুলকপি ৯০ টাকা, মিষ্টি কুমড়া ৪৫ টাকা ও টমেটো ১২০ টাকা কেজিতে বিক্রি হয়েছে।
সবজির দাম ক্রমাগত বাড়লেও দাম বেড়ে স্থির রয়েছে চালের বাজার। চালের বাজারে কাটারিভোগ কেজিতে ৩ টাকা বেড়ে ৫৫ টাকা, আটাশ ৫২ টাকা, স্বর্ণা ৪৮ টাকা, নাজিরশাইল ৬০ টাকা, বাসুমতি ৬৫ টাকা, মিনিকেট ৫৫ টাকা, আতপ চাল ৮০ টাকা কেজিতে বিক্রি হয়েছে।
এছাড়াও মাংসের মধ্যে ব্রয়লার ১২০ টাকা, সোনালী ১৯০ টাকা, দেশি মুরগি ৩৬০ টাকা, লেয়ার জাতভেদে ১৯০ টাকা ও ২২০ টাকা কেজিতে বিক্রি হয়েছে। পাশাপাশি রাজহাঁস ও পাতিহাঁস পূর্বের মতই ৩৫০ টাকা ও ২৫০ টাকা দরে বিক্রি হয়েছে। গরুর মাংস আগের চেয়ে ১০ টাকা বেড়ে ৫৫০ টাকায় বিক্রি হলেও খাসির মাংস গত সপ্তাহের ন্যায় ৮০০ টাকাতেই বিক্রি হয়েছে।
মুরগি কিনতে আসা রফিকুল ইসলাম বলেন, সবজির দাম যে পরিমাণে বাড়ছে সেই টাকা দিয়ে মাছ-মাংস খাওয়া যাবে।
ডিমের মধ্যে হাঁসের ডিম হালি প্রতি ৩ টাকা বৃদ্ধি পেয়ে ৪৮ টাকায় বিক্রি হলেও পোল্ট্রির ডিমের দাম অপরিবর্তিত থেকে ৩৪ টাকা ও ৩৬ টাকা হালিতে বিক্রি হয়েছে।
মাছের মধ্যে ওজন ও রকমভেদে রুই কেজিতে ৫০ টাকা কমে ২৫০ টাকা, মৃগেল ২০ টাকা বেড়ে ২২০ টাকায় বিক্রি হয়েছে। এছাড়া ইলিশ ১০০০ টাকা, পাবদা ৩৫০ টাকা, সিলভার ১৩০ টাকা, দেশি কৈ ১২০০ টাকা, চিংড়ি ১০০০ টাকা, কাতলা ৩৩০ টাকা দরে বিক্রি হয়েছে।

অক্টোবর ১০
০৬:২১ ২০২০

আরও খবর

পত্রিকায় যেমন

বিশেষ সংবাদ

নগরীর পুরাতন বইয়ের বাজার, কেমন আছেন দোকানীরা?

নগরীর পুরাতন বইয়ের বাজার, কেমন আছেন দোকানীরা?

আবু সাঈদ রনি: সোনাদীঘি মসজিদের কোল ঘেষে গড়ে উঠেছে রাজশাহীর ঐতিহ্যবাহী পুরাতন বইয়ের দোকান। নিম্নবিত্ত ও অস্বচ্ছল শিক্ষার্থীদের একমাত্র আশ্রয়স্থল এই পুরাতন লাইব্রেরী। মধ্যবিত্তরা যে যায় না ঠিক তেমনটিও না। কি নেই এই লাইব্রেরীতে? একাডেমিক, এডমিশন, জব প্রিপারেশনসহ সব ধরনের বই রাখা আছে সারি সারি সাজানো। নতুন বইয়ের দোকানের সন্নিকটে

বিস্তারিত




এক নজরে

আমাদের সাথেই থাকুন

চাকরি

চাকুরির নিয়োগ দিচ্ছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়

চাকুরির নিয়োগ দিচ্ছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়

সানশাইন ডেস্ক : রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে বিভিন্ন পদে জনবল নিয়োগ দেয়া হবে। রাবির নিজস্ব ওয়েবসাইটে এই নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়েছে। পদের নাম: কম্পিউটার অপারেটর পদ সংখ্যা: ০১ টি। বেতন: ১২৫০০-৩০২৩০ টাকা। পদের নাম: মেডিক্যাল টেকনােলজিস্ট (ফিজিওখেরাপি) পদ সংখ্যা: ০২ টি। বেতন: ১২৫০০-৩০২৩০ টাকা। পদের নাম: মেডিক্যাল টেকনােলজিস্ট (ডেন্টাল) পদ সংখ্যা:

বিস্তারিত