Daily Sunshine

নিয়ামতপুরে ধান-চাল সংগ্রহ অভিযানে লক্ষ্য অর্জিত হয়নি

Share

নিয়ামতপুর প্রতিনিধি: ধানের জেলা নওগাঁর নিয়ামতপুরে সফল হয়নি বোরো সংগ্রহ অভিযান। নির্ধারিত সময় বাড়িয়েও ধান ও চালের সংগ্রহ অভিযানের লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করতে পারেনি উপজেলা খাদ্য বিভাগ। খাদ্য বিভাগ দীর্ঘ ৪ মাস ২০ দিনে মোট লক্ষ্যমাত্রার মাত্র ১ শতাংশ ধান এবং চাল চুক্তির ৫৮ শতাংশ সংগ্রহ করতে পেরেছে।
খাদ্য বিভাগ সুত্রে জানাযায়, গত ২৬ এপ্রিল বোরো সংগ্রহ অভিযান শুরুর পর গত ৩১ আগস্ট পর্যন্ত এ অভিযান চলার কথা ছিলো। কিন্তু নির্ধারিত এ ৪ মাস ৫ দিনের সময়ে বোরো সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত না হওয়ায় আরও ১৫ দিন সময় বৃদ্ধি করে ১৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সংগ্রহ অভিযানের সময়সীমা নির্ধারন করা হয়। বর্ধিত এই সময় শেষ হলেও অর্জিত হয়নি চলতি মৌসুমের বোরো সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা।
নিয়ামতপুর উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক আমিনুল কবির জানান, নিয়ামতপুর উপজেলায় চলতি বোরো সংগ্রহ অভিযানে সরাসরি কৃষকদের কাছ থেকে ২৬ টাকা কেজি দরে ৩ হাজার ৫৪০ মেট্রিক টন ধান, মিল মালিকদের কাছ থেকে ৩৬ টাকা কেজি দরে ১ হাজার ৮৩৮ মেট্রিক টন চাল সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়। চাল সরবরাহের লক্ষ্যে উপজেলার ৩৭টি মিলারের মধ্যে ৩৪টি মিল মালিক খাদ্য বিভাগের সাথে চুক্তিবদ্ধ হয়।
কিন্তু সময়সীমা শেষ হলেও ৩ হাজার ৫৪০ মেট্রিক টন ধানের স্থলে মাত্র ৩৬ মেট্রিক টন ধান, ১ হাজার ৮৩৮ মেট্রিক টনের স্থলে ১ হাজার ৯ মেট্রিক টন চাল সংগ্রহ করা হয়। এবার বাজারে ধানের দাম বেশী থাকায় প্রায় ৩৪ জন মিল মালিক চুক্তিবদ্ধ হলেও অনেক মিল মালিকই চুক্তি অনুযায়ী চাল দিতে পারেনি এবং লটারীতে অনেক কৃষকই ধান দিতে আসেনি। এ কারনেই সফল হয়নি বোরো সংগ্রহ অভিযান।
উপজেল খাদ্য বিভাগের একটি সুত্র জানায়, যেসব মিল মালিক চুক্তি অনুযায়ী চাল সরবরাহ করেনি, তাদের তালিকা করা হচ্ছে। চুক্তি ভঙ্গকারী এসব মিল মালিকদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নেয়া হবে কি না, তা খাদ্য অধিদপ্তরই নির্ধারণ করবে।
উপজেলা চালকল মালিক সমিতির সভাপতি আব্দুল মান্নান জানান, বাজারে ধানের মূল্য অনুযায়ী ধান কিনে চাল তৈরী করতে প্রতি কেজি চালের দাম পড়ছে ৩৮ থেকে ৪০ টাকা। কিন্তু সরকারী সংগ্রহ মূল্য ৩৬ টাকা। সরকারী সংগ্রহ অভিযানে ধানের সাথে তুলনা করা হলে চালের দাম নির্ধারন করা উচিৎ ছিলো ৪০ থেকে ৪২ টাকা। বাজারে ধানের দাম বেশী থাকায় ৩৬ টাকা কেজি দরে চাল সরবরাহ করতে ব্যাপকভাবে লোকসান গুনতে হয় মিল মালিকদের। এজন্যই এবার মিল মালিকরা চুক্তি অনুযায়ী চাল সরবরাহ করতে পারেনি।
চুক্তি ভঙ্গকারী মিল মালিকদের বিরুদ্ধে খাদ্য বিভাগ কোন ব্যবস্থা গ্রহন করার প্রসঙ্গে আব্দুল মান্নান বলেন, মিল মালিকদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহন করার আগে লটারীতে নাম উঠেও যারা ধান সরবরাহ করেনি, তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে। কারন একই দেশে দুধরনের আইন হতে পারে না।
তিনি বলেন, মিল মালিকদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার আগে কি কারনে তারা চুক্তি ভঙ্গ করেছে বা কি কারণে চাল সরবরাহ করতে পারেনি, খাদ্য বিভাগের তা পর্যালোচনা করে দেখা উচিৎ।

অক্টোবর ০৬
০৬:৫১ ২০২০

আরও খবর

পত্রিকায় যেমন

বিশেষ সংবাদ

নগরীর পুরাতন বইয়ের বাজার, কেমন আছেন দোকানীরা?

নগরীর পুরাতন বইয়ের বাজার, কেমন আছেন দোকানীরা?

আবু সাঈদ রনি: সোনাদীঘি মসজিদের কোল ঘেষে গড়ে উঠেছে রাজশাহীর ঐতিহ্যবাহী পুরাতন বইয়ের দোকান। নিম্নবিত্ত ও অস্বচ্ছল শিক্ষার্থীদের একমাত্র আশ্রয়স্থল এই পুরাতন লাইব্রেরী। মধ্যবিত্তরা যে যায় না ঠিক তেমনটিও না। কি নেই এই লাইব্রেরীতে? একাডেমিক, এডমিশন, জব প্রিপারেশনসহ সব ধরনের বই রাখা আছে সারি সারি সাজানো। নতুন বইয়ের দোকানের সন্নিকটে

বিস্তারিত




এক নজরে

আমাদের সাথেই থাকুন

চাকরি

চাকুরির নিয়োগ দিচ্ছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়

চাকুরির নিয়োগ দিচ্ছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়

সানশাইন ডেস্ক : রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে বিভিন্ন পদে জনবল নিয়োগ দেয়া হবে। রাবির নিজস্ব ওয়েবসাইটে এই নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়েছে। পদের নাম: কম্পিউটার অপারেটর পদ সংখ্যা: ০১ টি। বেতন: ১২৫০০-৩০২৩০ টাকা। পদের নাম: মেডিক্যাল টেকনােলজিস্ট (ফিজিওখেরাপি) পদ সংখ্যা: ০২ টি। বেতন: ১২৫০০-৩০২৩০ টাকা। পদের নাম: মেডিক্যাল টেকনােলজিস্ট (ডেন্টাল) পদ সংখ্যা:

বিস্তারিত