Daily Sunshine

তানোরে দ্বিতীয় দফা বন্যায় ডুবছে ফসল

Share

টিপু সুলতান, তানোর: টানা ভারি বর্ষণ উজানের পানিতে রাজশাহীর তানোরে বন্যার পানি বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে রোপা আমনের শতশত একর ফসলী জমি পানিতে তলিয়ে গেছে। এর আগেও প্রথমবার বন্যায় তলিয়ে গিয়েছিল ফসলী জমি। পুনরায় কয়েকদিন ধরে ভারী ও গুড়িগুড়ি বৃষ্টির কারণে দ্বিতীয় দফায় ডুবেছে ফসলী জমি। এতে করে চরম দিশেহারা হয়ে পড়েছেন উপজেলার কৃষকরা। কারন যে সমস্ত ফসলী জমি ডুবেছে সে সব জমিতে আর ধান হওয়ার কোনই সম্ভবনা দেখছেনা কৃষকরা।
এছাড়াও পৌর এলাকার কুঠিপাড়া শীতলি পাড়া ড্রেন পাড়াসহ বেশ কিছু বাড়িতে ঢুকে পড়েছে বন্যার পানি। তবে অবাক করার ব্যাপার কৃষি দপ্তর মাত্র ৮ হেক্টর ফসলী জমি ঢুবেছে বলে সংশ্লিষ্ট বিভাগে প্রতিবেদন দিয়েছেন এমন তথ্যই প্রদান করেছেন।
ক্ষতিগ্রস্থ একাধিক কৃষকের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, এর আগের বন্যায় ফসলী জমি ঢুবেছিল । কয়েকদিনের ভারী গুড়িগুড়ি বৃষ্টিতে পুনরায় জমি ঢুবেছে। গতবার বিভিন্ন এলাকা থেকে অধিক দামে চারা সংগ্রহ করে ধানের রোপণ করা হয়েছিল। কিন্তু এবার আর কোন উপায় নেই। কোন ভাবেই ধান রোপণ করা যাবেনা। তানোর পৌর এলাকার তালন্দ গ্রামের তরুণ কৃষক মামুন ভাগড়া জানান, তালন্দ নাপিত পাড়া গোকুলগ্রামের নিচ পাড়া পর্যন্ত প্রায় ৫০ থেকে ৬০ একর জমির ধান পানিতে তলিয়ে গেছে। তারমধ্যে আমার নিজের আছে পাচ বিঘা। এসব দুবার করে তলিয়েছে।
উপজেলার কামারগা মালার মোড় এলাকার আব্দুল্লাহ জানান অনেক কৃষকের দুবার করে জমি ঢুবেছে। টানা বৃষ্টি হলেই হাতিনান্দা, ছাঐড়, মোহাম্মাদ আলীপুর, মিরাপুর,পাড়িশো,কাঁমারগা, দমদমা, শ্রীখন্ডাসহ পুরো ইউপি এলাকার ফসলী জমিতে বন্যার পানি উঠে পড়েছে। বিঘাপ্রতি ৮ হাজার টাকা খরচ হয়েছে, অল্প সময়ের মধ্যে ধানের শীষ বের হত। এখন কিছুই করার নাই।
এছাড়াও উপজেলার চান্দুড়িয়া, কামারগাঁ ও তানোর পৌরসভা এবং কলমা ইউপির চন্দনকোঠা, আজিজপুর, কুজিশহর এলাকার বেশির ভাগ ফসলী জমিতে বন্যার পানি।
তানোর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা শামিমুল ইসলাম বলেন, প্রথম বন্যায় ২০০ হেক্ট্রর জমি, দ্বিতীয়বার বন্যায় প্রাথমিক ভাবে ৮ হেক্টর জমির ফসল ক্ষতির পরিমাণ ধরা হয়েছে। বন্যার পানি নেমে গেলে সঠিক ভাবে ক্ষতির পরিমাণ নির্নয় করা যাবে।

অক্টোবর ০৫
০৬:১৮ ২০২০

আরও খবর

পত্রিকায় যেমন

বিশেষ সংবাদ

নগরীর পুরাতন বইয়ের বাজার, কেমন আছেন দোকানীরা?

নগরীর পুরাতন বইয়ের বাজার, কেমন আছেন দোকানীরা?

আবু সাঈদ রনি: সোনাদীঘি মসজিদের কোল ঘেষে গড়ে উঠেছে রাজশাহীর ঐতিহ্যবাহী পুরাতন বইয়ের দোকান। নিম্নবিত্ত ও অস্বচ্ছল শিক্ষার্থীদের একমাত্র আশ্রয়স্থল এই পুরাতন লাইব্রেরী। মধ্যবিত্তরা যে যায় না ঠিক তেমনটিও না। কি নেই এই লাইব্রেরীতে? একাডেমিক, এডমিশন, জব প্রিপারেশনসহ সব ধরনের বই রাখা আছে সারি সারি সাজানো। নতুন বইয়ের দোকানের সন্নিকটে

বিস্তারিত




এক নজরে

আমাদের সাথেই থাকুন

চাকরি

চাকুরির নিয়োগ দিচ্ছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়

চাকুরির নিয়োগ দিচ্ছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়

সানশাইন ডেস্ক : রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে বিভিন্ন পদে জনবল নিয়োগ দেয়া হবে। রাবির নিজস্ব ওয়েবসাইটে এই নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়েছে। পদের নাম: কম্পিউটার অপারেটর পদ সংখ্যা: ০১ টি। বেতন: ১২৫০০-৩০২৩০ টাকা। পদের নাম: মেডিক্যাল টেকনােলজিস্ট (ফিজিওখেরাপি) পদ সংখ্যা: ০২ টি। বেতন: ১২৫০০-৩০২৩০ টাকা। পদের নাম: মেডিক্যাল টেকনােলজিস্ট (ডেন্টাল) পদ সংখ্যা:

বিস্তারিত