Daily Sunshine

রোপা আমনে স্বপ্ন বুনছে কৃষক

Share

স্টাফ রিপোর্টার : চলতি বছর আউশ ধানে কৃষকরা চরমভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছেন। সেই ক্ষতি পুষিয়ে নিতে নতুন করে রোপা আমন চাষে নেমেছেন চাষিরা। লাভের আশায় বুক বেঁধেছেন রাজশাহীর কৃষকরা। মাঠে মাঠে এখন ব্যস্ত সময় পার করছেন কৃষক।
জেলার কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের দেওয়া তথ্য মতে, গত বছর রাজশাহীতে ৭৪ হাজার ৯৮১ হেক্টর জমিতে রোপা আমন ধানের চাষ হয়। এবার রোপা আমন আবাদের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছিলো ৭৬ হাজার ৫০০ হেক্টর। তবে চলতি মৌসুমে ৭৭ হাজার ৫৭০ হেক্টর রোপ আমনের চাষাবাদ হয়েছে। যা লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ১ হাজার ৭০ হেক্টর বেশি।
অধিদপ্তরের তথ্যানুযায়ী, রাজশাহীতে চলতি মৌসুমে সব চেয়ে বেশি রোপা আমন ধানের চাষ হচ্ছে বরেন্দ্র অঞ্চলখ্যাত জেলার গোদাগাড়ী উপজেলায়। এখানে ২৪ হাজার ৬২৫ হেক্টর জমিতে চাষাবাদ হয়েছে। এছাড়াও তানোরে ২২ হাজার ৪৩৫ হেক্টর, পুঠিয়ায় ৫ হাজার ৮৭০ হেক্টর, পবায় ৯ হাজার ১৩৫ হেক্টর, মতিহারে ২০ হেক্টর, দুর্গাপুরে ৫ হাজার ৩৫০ হেক্টর, বাঘায় ১ হাজার ৩৫০ হেক্টর, চারঘাটে ৪ হাজার ২৩৫ হেক্টর ও বাগমারায় ৭৯০ হেক্টর জমিতে রোপা আমন ধানের চাষ হয়েছে।
কৃষকদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, আউশের ক্ষতি পোষাতে এবার রোপা আমন চাষাবাদে তারা বেশি আগ্রহ দেখাচ্ছেন। মাঝে মধ্যে বৃষ্টিপাত হলেও আবহাওয়া অনুকুলে থাকায় এবারও রোপা আমনের বাম্পার ফলন হবে বলে আশাবাদী তারা।
সংশ্লিষ্টরা বলছেন, গত বছর আউশ মৌসুমে ধানের দাম ভাল পাওয়ায় চলতি মৌসুমে কৃষকরা ধান চাষের দিকে আগ্রহী হয়ে উঠেছেন। বিগত কয়েক বছরে একের পর এক ধান চাষ করে কৃষকগণ লোকসানে পড়ে ধান চাষ করা থেকে এক প্রকার মুখ ফিরিয়ে নিয়েছিল। বিকল্প হিসেবে কৃষি জমিতে মাছ চাষ করার জন্য পুকুর খনন, বাগান করা ও শাক-সবজি চাষের দিকে ঝুঁকে পড়ে। কিন্তু আউশ ধানের দাম ভাল পাওয়ায় এই মৌসুমে রোপা আমন চাষে বেশি আগ্রহ দেখাচ্ছেন চাষিরা।
জেলার গোদাগাড়ী উপজেলার ধানচাষি আব্দুস সামাদ বলেন, বোরো মৌসুমে ধানের দাম ভালো পাওয়ায় গত বছরের চাইতে এবার বেশি রোপা আমন আবাদ করেছি। বন্যায় এক বিঘা জমির আউশ তলিয়ে গেছে। সেই ক্ষতি পোষাতে এবার ৫ বিঘা জমিতে রোপা আমন আবাদ করেছি। ধান গাছের পুষ্টতা ও পাতা দেখে ভালো ফলন হবে বলে জানান তিনি।
একই উপজেলার ধান চাষি আব্দুল্লাহ আল মামুন জানান, এবার সাড়ে ৭ বিঘা জমিতে রোপা আমনের আবাদ করেছি। ধানের বর্তমান পরিস্থিতি দেখে ভালো ফলনের আশা করছি। তবে গত বছর আমাদের উপজেলাতে কারেন্ট পোকার সংক্রমণ দেখা গিয়েছিলো। তাতে ধানের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছিলো। এই পোকার সংক্রমণ থেকে বাঁচাতে অগ্রিম কোন ব্যবস্থা নিলে আমরা ধানের বাম্পার ফলন পাবো ।
তানোর উপজেলার ধান চাষি গোলাম মোস্তফা বলেন, বোরো মৌসুমে ধানের দাম পেয়ে বেশি করে আউশের আবাদ করি। কিন্তু বন্যায় আউশ তলিয়ে গেছে। এতে অনেক ক্ষতি গ্রস্থ হয়েছি। এখন ঋণ নিয়ে আবার নতুন করে ৫ বিঘা জমিতে রোপা আমনের চাষ করেছি।
রাজশাহী কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক শামছুল হক বলেন, আবহাওয়ার প্রতিকূলতার কারণে রাজশাহীতে বিশেষ করে গোদাগাড়ী ও পবা উপজেলাতে পোকার আক্রমণ বেশি দেখা যাচ্ছে। এ নিয়ে কৃষকদের মাঝে বিভিন্ন জায়গায় সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে উঠান বৈঠক ও সমাবেশ নানান পরামর্শ দিচ্ছেন কৃষি কর্মকর্তারা।
কারেন্ট পোকা দমনের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, তানোর গোদাগাড়ীর কৃষকরা কারেন্ট পোকা সম্পর্কে চেনেন এবং জানেন। এছাড়া কারেন্ট পোকা দমনের কৌশলগুলো সম্পর্কেও তারা অবহিত আছেন। এ নিয়ে বিগত কয়েক বছর ধরে তাদেরকে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে। আমরা আশা করছি এ বছর কারেন্ট পোকা ধানের তেমন ক্ষতি করতে পারবে না। যেহেতু বৃষ্টি হচ্ছে; আবহাওয়া ভালো, তাই চলতি মৌসুমে ধানের ভালো ফলন হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন এই কর্মকর্তা।

সেপ্টেম্বর ৩০
০৬:৫৮ ২০২০

আরও খবর

পত্রিকায় যেমন

বিশেষ সংবাদ

দুরারোগ্য মিনিংগোসেলে আক্রান্ত শিশু ইমলা

দুরারোগ্য মিনিংগোসেলে আক্রান্ত শিশু ইমলা

স্টাফ রিপোর্টার: দুরারোগ্য মিনিংগোসেল রোগ নিয়ে পৃথিবীতে আসা শিশু আয়াতী খাতুন ইমলা। বয়স মাত্র ১০ মাস। ছোট্ট এই শিশুটির এখন পরিবারের সবার কোলে আদরে আদরে বেড়ে ওঠার সময়। কিন্তু দুরারোগ্য রোগ নিয়ে শিশুটির যন্ত্রণার সময় কাটে বিছানায়। তার কান্নার শব্দে কষ্ট পায় পুরো পরিবার। কিন্তু ব্যবস্থা হচ্ছে না তার চিকিৎসার।

বিস্তারিত




এক নজরে

আমাদের সাথেই থাকুন

চাকরি

প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগে বিজ্ঞপ্তি

সানশাইন ডেস্ক : দেশের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে সহকারী শিক্ষক নিয়োগে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর। এ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে প্রায় ৩৫ হাজার শিক্ষক নিয়োগ করা হবে বলে জানিয়েছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। সোমবার (১৯ অক্টোবর) প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর থেকে প্রকাশিত বিজ্ঞপ্তি থেকে জানা যায়, সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে রাজস্বখাতভুক্ত ‘সহকারী শিক্ষক’

বিস্তারিত