Daily Sunshine

শহরের অদূরে পর্যটনের হাতছানি

Share

শাহ্জাদা মিলন : একপাশে মোহনপুর আরেক পাশে তানোর। মাঝখানে সেতু। দুই উপজেলার মেলবন্ধন হয়েছে সেতুতে। বর্ষায় পানি বাড়লে মনে হবে বড় নদী। এখানে রয়েছে শিবনদ। ছোট শিবনদ আর বিল কুমারী দুই মিলে একাকার হয়ে যায় বর্ষায়। বিল কুমারীর তানোর অংশে রয়েছে গোল্লাপাড়া বাজার। যারা বিকেলে বাজারে আসেন কিছুক্ষণের জন্য হলেও বিলের ধারে এসে প্রাকৃতিক পরিবেশে গল্পে মেতে ওঠেন। মোহনপুর অংশে দেখা মেলে সরু সড়কের দুই ধারে বিলের হাওয়ায় জলরাশির খেলা। বিকেলে সূর্যের আলো দিঘীর পানিতে পড়লে চিক চিক সোনালী আলোয় চোখে অপরূপ দৃষ্টিতে চেয়ে থাকতে ইচ্ছে করবে সকলের। আর দুই পাড়ের গাছগুলো সড়কটিকে ঢেকে রেখেছে সূর্যের আলোর আড়ালে।
বিল কুমারীর নামকরনের কারণ জনতে চাইলে স্থানীয় কয়েকজন জানালেন, আগে এই নদীতে শিবের পূজা হতো। এটি ছিল হিন্দু এলাকা। এখানে একজন জমিদার ছিলেন। তার সাতটি মেয়ে ছিল। একদিন জমিদার স্বপ্নে দেখলেন তার সাতটি মেয়েকে এক দিনে সাত জনের সাথে বিয়ে দিতে হবে। জমিদার সেই ভাবে প্রস্তুতি নিলে ছয় বোনের বিয়ে হয়ে যায় শুধু এক মেয়ে ছাড়া। তিনি কুমারী থেকে যান। সেখান থেকেই নামকরন হয় বিল কুমারী।
রাজশাহী শহর থেকে প্রায় ২৫ কিমি দূরে মোহনপুর উপজেলা পার হয়ে কিছু দূর এগিয়ে হাতের বাম দিকে তানোর রোডে ঢুকে প্রায় ৫ কিমি দূরে এই বিলের অবস্থান। প্রতি দিন শতশত ভ্রমণপ্রিয় মানুষ ও স্থানীয়রা বিকেলে বিনোদনের জন্য এখানে ছুটে আসেন এই বিলের উপর নির্মিত সেতুতে।
স্থানীয় এনজিও কর্মী পিয়াস বলেন, বুরুজঘাট থেকে কামারগাওঁ পর্যন্ত এই বিলের আয়তন। ঈদের সময় এখানে নৌকায় বেড়ানো যায়। তখন অনেকে নৌকায় ঘুরতে এখানে বেড়াতে আসেন। স্থানীয় জেলে সমিতির মাধ্যমে এই বিলে মাছ ছাড়া হয়। বছরে একবার মাছ উৎসব হয়। অনেক বড় বড় মাছ পাওয়া যায় তখন। বর্ষা মৌসুম শেষে বিল শুকিয়ে গেলে শিব নদীর দেখা মেলে। নদীর আয়তন ছোট হওয়ায় দুই পাশে ধান লাগানো হয়।
বিলকুমারী ঘুরতে আসা রাজশাহী কলেজের মার্কেটিংয়ে দ্বিতীয় বর্ষে অধ্যয়নরত রিফাত আলামিন রাকিবসহ কয়েকজন বিষ্ময় প্রকাশ করে বরেন, রাজশাহীর এতো কাছে ভ্রমণের ভালো জায়গা রয়েছে আগে জানা ছিল না। এক বন্ধুর মাধ্যমে জেনে এখানে বেড়াতে আসা। আমরা নাটোর পাটুলে গেছি। সেখানে ট্রলারে ঘোরা যায়। নাটোরের ঐ বিলের চেয়ে এটা কোন দিক থেকেই কম না। শুনেছি সেখানেও শুষ্ক মৌসুমে ধান লাগানো হয়। আর বর্ষায় ট্রলারে নৌকায় বেড়ানোর সুবিধা। বিলকুমারীতে ট্রলার ও নৌকায় স্বল্প পরিসরে ভ্রমণের সুযোগ দেয়া উচিত। শুধু সুযোগ সুবিধা ও প্রচারের অভাবে হয়তো এই বিল পর্যটনের দিক থেকে পিছিয়ে পড়েছে।
ভ্রমণ পিপাসু তানোরের নারায়নপুর থেকে আসা কামারগাওঁ সেন্ট্রাল কলেজের প্রভাষক রেজাউল ইসলাম বলেন, আমি এখানে প্রায় আসি বেড়াতে। যদি নৌকা অথবা ট্রলারে বেড়ানোর সুযোগ দেয়া যায় এখানে অনেক লোক সমাগম বাড়বে। এখন করোনার সময়ে অনেকে বেকার রয়েছেন তাদের কর্মসংস্থান হবে।
বিলের ঘেঁষে গড়ে তোলা হয়েছে দৃষ্টিনন্দন ওহি কফি হাউজ। মোহনপুরের বাকশিমইলের অধিবাসি হোটেল মালিক জুয়েল জানালেন, একদিন ঘুরতে এসে এই জায়গাটা এত পছন্দ হয়ে যায় সেই থেকে এখানে আসার লোভ ছাড়তে পারিনি। সেই আসার লোভ থেকে এই কফি হাউজ করেছেন যেনো বিনোদন প্রেমিরা এখানে আরো বেশি আসেন। সীমাবদ্ধতার কথা জানতে চাইলে বলেন, দুই পাশের সংযোগ সড়ককের কিছু অংশ এখনো ইটের রয়ে গেছে। এই ইটের সড়ক পাকা করা ও অল্প কয়েকটি নৌকা এখানে নামানো হলে আরো লোক আসবেন বেড়াতে।
সেতুর উপরে ফুচকা চটপটির ভ্রামমাণ দোকান চালাচ্ছেন রাজশাহীর নওদাপাড়া আম চত্ত্বর থেকে আসা মুস্তাকিম। তিনি জানান, দুই বছর ধরে এখানে দোকান করছেন। বললেন, শুক্রবার ও শনিবার সরকারি ছুটি থাকায় অনেক লোক বেড়াতে আসে। ব্রিজে এপার ওপারের লোক সমাগম থাকে সন্ধ্যা পর্যন্ত। বিক্রি ভালোই হয়।
আমড়া পেয়ারার দোকানি শ্রী টিপুল চন্দ্র বলেন, বৃষ্টি হলে একটু লোক কমে যায় তাছাড়া সারা বছর বিভিন্ন এলাকা থেকে প্রতিদিন লোক আসে এই বিল ঘুরতে। বিল টিকে প্রচারের সুযোগ করে দিলে আরো মানুষ আসবে তখন আমার মতো আরো কিছু লোক দোকানের আয়ে সংসার চালাতে পারবে।

সেপ্টেম্বর ২৫
০৫:৪১ ২০২০

আরও খবর

পত্রিকায় যেমন

বিশেষ সংবাদ

কোয়ারেন্টিন ব্যর্থতায় আসতে পারে ভয়াবহ বিপদ

কোয়ারেন্টিন ব্যর্থতায় আসতে পারে ভয়াবহ বিপদ

সানশাইন ডেস্ক :  দেশে আশঙ্কাজনক হারে কোয়ারেন্টিনে থাকা মানুষের সংখ্যা কমছে। এদিকে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানিয়েছে, কোয়ারেন্টিন ব্যর্থতার কারণে আক্রান্ত বাড়ছে। আর পুরো বিশ্বের মতো বাংলাদেশেও মানুষকে কোয়ারেন্টিন না করতে পারার ব্যর্থতাকে ‘অ্যালার্মিং’ বলে মন্তব্য করেছেন বিশেষজ্ঞরা। তারা বলছেন, এমনিতেই সামনে শীতের মৌসুম। এ সময় রোগী বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে যদি

বিস্তারিত




এক নজরে

আমাদের সাথেই থাকুন

চাকরি

প্রথম শ্রেণিতে নিয়োগ পাচ্ছেন ৫৪১ জন ননক্যাডার

প্রথম শ্রেণিতে নিয়োগ পাচ্ছেন ৫৪১ জন ননক্যাডার

|সানশাইন ডেস্ক: ৩৮তম বিসিএস পরীক্ষার নন-ক্যাডার থেকে প্রথম শ্রেণির বিভিন্ন পদে ৫৪১ জনকে নিয়োগের জন্য সুপারিশ করা হয়েছে। মঙ্গলবার (২০ অক্টোবর) সরকারি কর্ম কমিশন (পিএসসি) থেকে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ৩৮তম বিসিএসের নন-ক্যাডার থেকে প্রথম শ্রেণির (৯ম গ্রেড) বিভিন্ন পদে নিয়োগের জন্য সুপারিশ করা

বিস্তারিত