Daily Sunshine

ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীদের কাছে অতিরিক্ত অর্থ আদায় করছে কম্পিউটার দোকানগুলো

Share

স্টাফ রিপোর্টার : শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও শিক্ষার্থীদের ঘিরে শিক্ষানগরী রাজশাহীর বেশিরভাগ অর্থনৈতিক কর্মকান্ড পরিচালিত হয়। বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের ভর্তি, আবেদন, ফরমপূরণ, চাকুরীর আবেদন, ফটোকপিসহ যাবতীয় সেবাকে কেন্দ্র করে নগরীতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এলাকায় ও বাজার এলাকায় গড়ে উঠেছে কম্পিউটার সার্ভিস দোকানগুলো। সেবা প্রদানের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে প্রাপ্ত আয় দিয়ে জীবিকা চলে তাদের।
তবে বিভিন্ন মৌসুমে অর্থাৎ চাকুরীর আবেদন, ভর্তি আবেদন, ভর্তি প্রক্রিয়া সম্পন্নসহ বিভিন্ন কাজের জন্য শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত অর্থ আদায় করে এই কম্পিউটার সার্ভিস সেন্টারগুলো।
করোনার কারনে দীর্ঘদিন বন্ধ ছিল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও সংশ্লিষ্ট কাজকর্ম। তবে রোববার থেকে শুরু হয়েছে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি কার্যক্রম। জানা গেছে, একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে ২০০ টাকা থেকে ৫০০ টাকা পর্যন্ত নিচ্ছে এই সার্ভিস দোকানগুলো। যা তাদের খরচের তুলনায় নূন্যতম ৫ থেকে ১০ গুন বেশি।
রাজশাহী কলেজের সামনে লোকনাথ স্কুল মার্কেট এলাকায় গড়ে উঠেছে এমন বেশ কিছু দোকান। একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির জন্য এখন তাদের ব্যবসা রমরমা। কিন্তু শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে ভর্তি ফরম পূরণ, কলেজ ফি ও তার স্টুডেন্ট কপি প্রিন্টসহ ভর্তি প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে ২০০ টাকা থেকে ৫০০ টাকা পর্যন্ত নিচ্ছেন তারা।
শিক্ষার্থীরা বলছেন, এই সকল কাজের জন্য তাদের সর্বোচ্চ ৫০ টাকাও খরচ হয়না। কিন্তু তারা ২০০ টাকা থেকে ৫০০ টাকা আদায় করছেন।
গতকাল মঙ্গলবার শিক্ষার্থীদের অভিযোগের ভিত্তিতে এই মার্কেটটিতে গতকাল মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে অভিযান চালিয়েছে ভ্রাম্যমান আদালত। ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালকে রুবেল আহমেদের নেতৃত্বে এ অভিযান পরিচালনা করা হয়। এ সময় হিমা কম্পিউটার এ্যান্ড সার্ভিসিং সেন্টার নামের এক দোকানকে ৪ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।
ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালকে রুবেল আহমেদ বলেন, এই দোকান থেকে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে অনেক বেশি অর্থ আদায় করা হচ্ছে। আমাদের কাছে এর সুনির্দিষ্ট অভিযোগ ও প্রমাণস্বরুপ ভিডিও রয়েছে। তাই তাদেরকে সতর্ক করে ৪ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এছাড়াও অন্যান্য দোকানগুলোকেও সাবধান করে দেওয়া হয়েছে বলে জানান তিনি।
এদিকে, ভ্রাম্যমান আদালত চলে যাওয়ার পরে আবারো শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত অর্থ আদায়ের অভিযোগ পাওয়া গেছে। নওগাঁর মান্দা উপজেলা থেকে রাজশাহী কলেজে ভর্তি হতে আসা শিক্ষার্থী রবিউল ইসলাম রনি বলেন, আমার কাছে ৫০০ টাকা চেয়েছিল। আমার এক বড় ভাই অনুরোধ করে ২০০টাকা দিয়েছে। আরও অনেকের কাছেই ৫০০ টাকা করে নিতে দেখেছে বলে জানায় রনি।

সেপ্টেম্বর ১৬
০৫:২৮ ২০২০

আরও খবর

পত্রিকায় যেমন

বিশেষ সংবাদ

ডিগ্রী থাকলেও মিলছেনা যোগ্য চাকরি

ডিগ্রী থাকলেও মিলছেনা যোগ্য চাকরি

শাহ্জাদা মিলন: বাংলাদেশের অন্যতম বিভাগীয় শহর রাজশাহী। সিল্কসিটি, আমের রাজধানী হিসেবে পরিচিত সারা দেশে রাজশাহী। তবে এসব পরিচয় ছাপিয়ে রাজশাহী ‘শিক্ষা নগরী’ হিসেবে সবচেয়ে বেশি পরিচিত। অসংখ্য নামিদামি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রয়েছে এখানে। এর সুফলে রাজশাহীতে বছর বছর বাড়তে ডিগ্রিধারী মানুষের সংখ্যা। তবে সেই অনুপাতে বাড়ছে না কর্মসংস্থান। রাজশাহীতে রয়েছে রাজশাহী

বিস্তারিত




এক নজরে

আমাদের সাথেই থাকুন

চাকরি

সরকারি চাকরি প্রার্থীর বয়সে ছাড়

সরকারি চাকরি প্রার্থীর বয়সে ছাড়

সানশাইন ডেস্ক : করোনা মহামারিতে সাধারণ ছুটিতে স্বাভাবিক জীবনযাত্রার সঙ্গে স্থগিত ছিল সরকারি-বেসরকারি চাকরির নিয়োগ প্রক্রিয়া। এ কয়েক মাসে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি পায়নি দেশের শিক্ষিত বেকার জনগোষ্ঠী। অংশ নিতে পারেনি কোনো নিয়োগ পরীক্ষাতেও। অনেকেরই বয়স পেরিয়ে গেছে ৩০ বছর। স্বাভাবিকভাবেই সরকারি চাকরির আবেদনে সুযোগ শেষ হয়ে যায় তাদের। তবে এ দুর্যোগকালীন

বিস্তারিত