Daily Sunshine

প্রতিপক্ষের খেলোয়াড়কে গাধা বললেন মেসি!

Share

স্পোর্টস ডেস্ক: মেসিকে থামানো কষ্টকর। তারপরও অনেক সময় মেসিকে আটকে রাখার চেষ্টা করা হয়-হোক সেটা বার্সেলোনা হোক কিংবা আর্জেন্টিনার জার্সিতে। তাকে ঘিরেই প্রতিপক্ষ পরিকল্পনা সাজায়। মেসিকে আটকানোর চেষ্টায় থাকেন প্রতিপক্ষের একাধিক ফুটবলার।
শনিবার প্রাক মৌসুম প্রস্তুতি ম্যাচে নেস্টিকের বিপক্ষে আবারও বার্সার জার্সি গায় চাপিয়েছিলেন মেসি। এই ম্যাচ থেকেই আবারও তিনি নেতৃত্ব পেয়েছেন। খেলতে নামলেও মনটা বোধ হয় তেমন ভালো ছিল না মেসির। মাত্র ৪৫ মিনিট মাঠে ছিলেন। এর মাঝে বেশ কয়েকবার তাকে মেজাজ হারাতে দেখা গেছে। যদিও মাঠ এবং মাঠের বাইরে ভীষণ শান্ত স্বভাবের মানুষ হিসেবে মেসি পরিচিত।
প্রস্তুতি ম্যাচে নেস্টিক মিডফিল্ডার হাভিয়ের রিবেলেসের ওপর দায়িত্ব ছিল মেসিকে মার্কিং করার। মেসিকে আটকাতে গিয়ে বারবার তিনি ধাক্কাধাক্কি করছিলেন। ম্যাচ শেষে এক সাক্ষাৎকারে রিবেলেস নিজেই জানালেন যে, মেসি তার ওপর খেপে গিয়েছিলেন। রাগে গজগজ করতে করতে মেসি তাকে বলেন, ‘গাধা করছটা কি! সারাক্ষণ লাথি মেরে আমাকে থামাতে চাও?’ রিবেলেস জবাবে মেসিকে বলেছিলেন, ‘তোমার মতো সেরা খেলোয়াড়কে এভাবে ছাড়া তো থামানোর আর কোনো উপায় নেই’।
এখানেই আসলে মেসির শ্রেষ্ঠত্ব। প্রতিপক্ষ খেলোয়াড়দের সম্মান আদায় করে নেওয়া ফুটবলাররাই তো আসল বিশ্বতারকা। মেসি তাদের অন্যতম একজন। এখন দেখার, নতুন মৌসুমে বার্সার হয়ে মাঠে কেমন পারফর্ম করেন মেসি।

সেপ্টেম্বর ১৫
০৬:২২ ২০২০

আরও খবর

পত্রিকায় যেমন

বিশেষ সংবাদ

নতুন রূপ পাচ্ছে রাজশাহীর ঐতিহ্যবাহী সোনাদীঘি

নতুন রূপ পাচ্ছে রাজশাহীর ঐতিহ্যবাহী সোনাদীঘি

স্টাফ রিপোর্টার : রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটনের উদ্যোগে মহানগরীর ঐতিহ্যবাহী সোনাদীঘি নতুন রূপ পেতে যাচ্ছে। একই সাথে সোনাদীঘি ফিরে পাচ্ছে তার হারানোর ঐতিহ্য। সোনাদীঘিকে এখন অন্তত তিন দিক থেকে দেখা যাবে। দিঘিকে কেন্দ্র করে গড়ে তোলা হবে পায়ে হাঁটার পথসহ মসজিদ, এমফি থিয়েটার (উন্মুক্ত মঞ্চ) ও তথ্যপ্রযুক্তি

বিস্তারিত




এক নজরে

আমাদের সাথেই থাকুন

চাকরি

সরকারি চাকরি প্রার্থীর বয়সে ছাড়

সরকারি চাকরি প্রার্থীর বয়সে ছাড়

সানশাইন ডেস্ক : করোনা মহামারিতে সাধারণ ছুটিতে স্বাভাবিক জীবনযাত্রার সঙ্গে স্থগিত ছিল সরকারি-বেসরকারি চাকরির নিয়োগ প্রক্রিয়া। এ কয়েক মাসে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি পায়নি দেশের শিক্ষিত বেকার জনগোষ্ঠী। অংশ নিতে পারেনি কোনো নিয়োগ পরীক্ষাতেও। অনেকেরই বয়স পেরিয়ে গেছে ৩০ বছর। স্বাভাবিকভাবেই সরকারি চাকরির আবেদনে সুযোগ শেষ হয়ে যায় তাদের। তবে এ দুর্যোগকালীন

বিস্তারিত