Daily Sunshine

ফ্লাইওভারের নিচে ব্লক বসানো ও সড়ক প্রস্তুতকরণ কাজ পরিদর্শন করলেন মেয়র লিটন

Share

স্টাফ রিপোর্টার : রাজশাহী মহানগরীর বুধপাড়া এলাকায় নির্মিত ফ্লাইওভারের নিচে ব্লক বসানো এবং মনিচত্বর থেকে সদর হাসপাতাল পর্যন্ত সড়ক ফোরলেনে উন্নীতকরণ কাজ পরিদর্শন করেছেন রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এ এইচ এম খায়রুজ্জামান লিটন। সোমবার দুপুরে এসব কাজ পরিদর্শন করেন মেয়র। এ সময় মেয়র কাজের অগ্রগতিসহ সার্বিক বিষয়ে খোঁজখবর নেন ও তদারকি করেন।
১৮৯ কোটি ৩৪ লাখ ৫৯ হাজার টাকা ব্যয়ে রাজশাহী মহানগরীর রাজশাহী-নওগাঁ প্রধান সড়ক হতে মোহনপুর-রাজশাহী-নাটোর সড়ক পর্যন্ত পূর্ব-পশ্চিম সংযোগ সড়ক নির্মাণ (২য় সংশোধিত) প্রকল্পের আওতায় আলিফ লাম মীম ভাটার মোড় হতে ছোট বনগ্রাম, মেহেরচন্ডী, বুধপাড়া, মোহনপুর হয়ে চৌদ্দপায়া হয়ে বিহাস পর্যন্ত ৬ দশমিক ৭৯৩ কিলোমিটার ৪ লেন সংযোগ সড়ক নির্মাণ কাজ করা হচ্ছে। প্রকল্পটির আওতায় ফ্লাইওভার নির্মাণ কাজ শেষ হয়েছে। এখন ফ্লাইওভারের পাশে ব্লক বসানো ও সড়কের কিছু অংশের কার্পেটিং কাজ চলমান রয়েছে। এছাড়া প্রকল্পের আওতায় সড়কের দুই পাশে ফুটপাথ, ১টি ব্রীজ, ৮টি কালভার্ট, আইল্যান্ড, ট্রাফিক কাঠামো ইত্যাদি নির্মাণ করা হয়েছে। স্বল্প সময়ের মধ্যে নির্মিত সড়কটি আনুষ্ঠানিকভাবে চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করা হবে। এই সড়কের কারণে মহানগরীর ক্রমবর্ধমান যানজট পরিস্থিতির উল্লেখযোগ্য উন্নতি সাধিত হচ্ছে। একই সাথে প্রকল্প এলাকায় আবাসনসহ আর্থ-সামাজিক অবকাঠামো উন্নয়ন শুরু হয়েছে।
প্রকল্পের কাজ পরিদর্শনকালে রাসিকের নির্বাহী প্রকৌশলী গোলাম মোর্শেদ, ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান রিথিন এন্টারপ্রাইজের কর্ণধার তৌরিদ আল মাসুদ রনি প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
অন্যদিকে মনিচত্বর থেকে সদর হাসপাতাল পর্যন্ত সড়ক প্রশস্তকরণ কাজ পরিদর্শন করেছেন মেয়র খায়রুজ্জামান লিটন। ২ কোটি ৮১ লাখ ১০ হাজার ৮৪৮ টাকা ব্যয়ে মনিচত্বর থেকে সদর হাসপাতাল পর্যন্ত ফোরলেন সড়ক এবং বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের সীমানা প্রাচীর ও ফুটপাত নির্মাণ করা হচ্ছে। একইসময়ে নির্মাণ হচ্ছে ড্রেনও। প্রকল্পের কাজ আগামী ২০২১ সালের মার্চে শেষ হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

সেপ্টেম্বর ১৫
০৬:২১ ২০২০

আরও খবর

পত্রিকায় যেমন

বিশেষ সংবাদ

ডিগ্রী থাকলেও মিলছেনা যোগ্য চাকরি

ডিগ্রী থাকলেও মিলছেনা যোগ্য চাকরি

শাহ্জাদা মিলন: বাংলাদেশের অন্যতম বিভাগীয় শহর রাজশাহী। সিল্কসিটি, আমের রাজধানী হিসেবে পরিচিত সারা দেশে রাজশাহী। তবে এসব পরিচয় ছাপিয়ে রাজশাহী ‘শিক্ষা নগরী’ হিসেবে সবচেয়ে বেশি পরিচিত। অসংখ্য নামিদামি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রয়েছে এখানে। এর সুফলে রাজশাহীতে বছর বছর বাড়তে ডিগ্রিধারী মানুষের সংখ্যা। তবে সেই অনুপাতে বাড়ছে না কর্মসংস্থান। রাজশাহীতে রয়েছে রাজশাহী

বিস্তারিত




এক নজরে

আমাদের সাথেই থাকুন

চাকরি

সরকারি চাকরি প্রার্থীর বয়সে ছাড়

সরকারি চাকরি প্রার্থীর বয়সে ছাড়

সানশাইন ডেস্ক : করোনা মহামারিতে সাধারণ ছুটিতে স্বাভাবিক জীবনযাত্রার সঙ্গে স্থগিত ছিল সরকারি-বেসরকারি চাকরির নিয়োগ প্রক্রিয়া। এ কয়েক মাসে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি পায়নি দেশের শিক্ষিত বেকার জনগোষ্ঠী। অংশ নিতে পারেনি কোনো নিয়োগ পরীক্ষাতেও। অনেকেরই বয়স পেরিয়ে গেছে ৩০ বছর। স্বাভাবিকভাবেই সরকারি চাকরির আবেদনে সুযোগ শেষ হয়ে যায় তাদের। তবে এ দুর্যোগকালীন

বিস্তারিত