Daily Sunshine

আগামী বছর হবে এশিয়া কাপ, আয়োজক শ্রীলঙ্কা

Share

স্পোর্টস ডেস্ক: করোনা মহামারির কারণে উদ্ভূত পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে এক বছর পিছিয়ে গেল এশিয়া কাপ। বৃহস্পতিবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি নিশ্চিত করেছে এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিল (এসিসি)। এসিসি’র নির্বাহী বোর্ডের মিটিং শেষে এমন সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে বলে বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।
চলতি বছরের সেপ্টেম্বরে অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল এশিয়া কাপের এবারের আসর। কিন্তু ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা, দেশভিত্তিক কোয়ারেন্টিন বাধ্যবাধকতা, স্বাস্থ্য ঝুঁকি এবং বাধ্যতামূলক সামাজিক দূরত্বের কথা মাথায় রেখে সিদ্ধান্ত বদলাতে বাধ্য হয়েছে এসিসি। নতুন সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, ২০২১ সালে অনুষ্ঠিত হবে এশিয়া কাপ। আগামী বছরের জুন মাসেই আসর আয়োজনের প্রস্তুতি নেওয়ার কথা জানিয়েছে সংগঠনটি। এছাড়া আসন্ন আসরের আয়োজক দেশের ক্ষেত্রেও এসেছে পরিবর্তন।
পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি) এশিয়া কাপের আসন্ন আসরের আয়োজক স্বত্ব শ্রীলঙ্কা ক্রিকেটের (এসএলসি) হাতে তুলে দিয়েছে। ফলে ২০২১ সালে এশিয়া কাপ আয়োজন করবে শ্রীলঙ্কা। তবে এর বদলে ২০২২ এশিয়া কাপের আয়োজক হবে পিসিবি।
এর আগে ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ড (বিসিসিআই) প্রেসিডেন্ট সৌরভ গাঙ্গুলী এবারের এশিয়া কাপ বাতিলের ইঙ্গিত দিয়েছিলেন। এ নিয়ে তীব্র প্রতিক্রিয়া জানায় পিসিবি। কারণ, এশিয়া কাপ বাতিল বা স্থগিতের সিদ্ধান্ত জানানোর এখতিয়ার শুধু এসিসি’র সভাপতির।
এসিসি’র বর্তমান সভাপতি বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) প্রধান বর্তমানে চিকিৎসা নিতে লন্ডনে অবস্থান করছেন। সেখানে তার অস্ত্রোপচার সফলভাবে সম্পন্ন হয়েছে বলে জানিয়েছে বিসিবি। এর মধ্যেই এশিয়া কাপ পিছিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত জানা গেল।

জুলাই ১০
০৫:৫২ ২০২০

আরও খবর

পত্রিকায় যেমন

বিশেষ সংবাদ

শীঘ্রই শেষ হচ্ছে করোনার প্রকোপ!

শীঘ্রই শেষ হচ্ছে করোনার প্রকোপ!

সানশাইন ডেস্ক : গোটা বিশ্বকে ভালোই ভুগিয়েছে ছোট্ট একটি জীবাণু। বিশ্বের নানা দেশ ও অঞ্চলে আধিপত্য বিস্তার করে এই ভাইরাস এখন অনেকটা সহনীয় হয়ে এসেছে বলে জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। তাদের দাবি, এখন ৪০ শতাংশ মানুষ করোনা আক্রান্ত হলেও তাদের কোনো উপসর্গ প্রকাশ পাচ্ছে না। আর এতেই আশার কথা শোনাচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা। এদিকে,

বিস্তারিত




এক নজরে

আমাদের সাথেই থাকুন

চাকরি

সরকারি চাকরিতে আরও বেড়েছে ফাঁকা পদ

সরকারি চাকরিতে আরও বেড়েছে ফাঁকা পদ

সানশাইন ডেস্ক : করোনাভাইরাস মহামারীর মধ্যে সরকারি চাকরির বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ না হওয়ায় বেড়েছে চাকরিপ্রার্থীর সংখ্যা, সঙ্গে ফাঁকা পদের সংখ্যাও বাড়ছে। সরকারি চাকরিতে এখন তিন লাখ ৮৭ হাজার ৩৩৮টি পদ ফাঁকা পড়ে আছে, যা মোট পদের ২১ দশমিক ২৭ শতাংশ। জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন বলছেন, অগাস্ট মাসে কোভিড-১৯ সংক্রমণ কমে আসবে

বিস্তারিত