Daily Sunshine

নির্বাচনে প্রার্থীদের অপরাধের রেকর্ড প্রকাশের নির্দেশ

Share

সানশাইন ডেস্ক: রাজনৈতিক দলগুলোকে নির্বাচনে দেওয়া প্রার্থীদের অপরাধের রেকর্ড সবিস্তারে ওয়েবসাইটে জানানোর নির্দেশ দিয়েছে ভারতের সুপ্রিম কোর্ট। অপরাধের রেকর্ড থাকা এসব ব্যক্তিদের কেন নির্বাচনে প্রার্থী করা হবে তার ব্যাখ্যাও দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে আদালত।
বৃহস্পতিবার বিচারপতি এফ নরিম্যানের বেঞ্চ বলেছে, ‘জয়ের সম্ভাবনাই প্রার্থী বাছাইয়ের একমাত্র মাপকাঠি হতে পারে না। বরং প্রার্থী বাছতে হবে তার গুণাগুণ বিচার করে।’ আদালত বলেছে, মনোনয়ন জমা দেওয়ার ৪৮ ঘণ্টা আগে প্রার্থীর নামে কোনো অপরাধমূলক অভিযোগ থাকলে তা দলের নিজস্ব ওয়েবসাইটে ও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে জানাতে হবে। এই বিষয়ে নির্বাচন কমিশনকে নথি দিতে হবে অন্তত ৭২ ঘণ্টা আগে। এছাড়া কেন অপরাধমূলক কাজে যুক্ত থাকার অভিযোগ সত্ত্বেও ওই ব্যক্তিকে প্রার্থী করা হয়েছে, তার ব্যাখ্যাও ওয়েবসাইটে আপলোড করতে হবে সংশ্লিষ্ট রাজনৈতিক দলকে। কোনো রাজনৈতিক দল এই নির্দেশিকা না মানলে তা আদালত অবমাননার সামিল হবে।
অ্যাসোসিয়েশন অব ডেমোক্রেটিক রিফর্ম নামের একটি সংস্থা জানিয়েছে, ২০১৪ সালের জাতীয় নির্বাচনে বিজয়ী প্রার্থীদের মধ্যে ৩৪ শতাংশের অপরাধের রেকর্ড ছিল। পরের বার অর্থাৎ, ২০১৯ সালের নির্বাচনে এ সংখ্যা বেড়ে ৪৩ শতাংশে দাঁড়ায়। কিছু এমপির বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলা ছিল রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। তবে অধিকাংশের বিরুদ্ধে চুরি, সরকারি কর্মচারীদের ওপর হামলা, হত্যা ও ধর্ষণের মামলা রয়েছে।

ফেব্রুয়ারি ১৪
০৫:০১ ২০২০

আরও খবর

পত্রিকায় যেমন

বিশেষ সংবাদ

সরকারি চাকরিতে আরও বেড়েছে ফাঁকা পদ

সরকারি চাকরিতে আরও বেড়েছে ফাঁকা পদ

সানশাইন ডেস্ক : করোনাভাইরাস মহামারীর মধ্যে সরকারি চাকরির বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ না হওয়ায় বেড়েছে চাকরিপ্রার্থীর সংখ্যা, সঙ্গে ফাঁকা পদের সংখ্যাও বাড়ছে। সরকারি চাকরিতে এখন তিন লাখ ৮৭ হাজার ৩৩৮টি পদ ফাঁকা পড়ে আছে, যা মোট পদের ২১ দশমিক ২৭ শতাংশ। জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন বলছেন, অগাস্ট মাসে কোভিড-১৯ সংক্রমণ কমে আসবে

বিস্তারিত




এক নজরে

আমাদের সাথেই থাকুন

চাকরি

সরকারি চাকরিতে আরও বেড়েছে ফাঁকা পদ

সরকারি চাকরিতে আরও বেড়েছে ফাঁকা পদ

সানশাইন ডেস্ক : করোনাভাইরাস মহামারীর মধ্যে সরকারি চাকরির বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ না হওয়ায় বেড়েছে চাকরিপ্রার্থীর সংখ্যা, সঙ্গে ফাঁকা পদের সংখ্যাও বাড়ছে। সরকারি চাকরিতে এখন তিন লাখ ৮৭ হাজার ৩৩৮টি পদ ফাঁকা পড়ে আছে, যা মোট পদের ২১ দশমিক ২৭ শতাংশ। জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন বলছেন, অগাস্ট মাসে কোভিড-১৯ সংক্রমণ কমে আসবে

বিস্তারিত