সর্বশেষ সংবাদ :

নিয়ামতপুরে মাছ মারা নিয়ে মারামারির ঘটনায় আহত ৫

নিয়ামতপুর প্রতিনিধি: নওগাঁর নিয়ামতপুরে মাছ মারাকে কেন্দ্র করে মারামারি আহত ৫। রবিবার রাত ২টায় উপজেলার রসুলপুর ইউনিয়নের নিমদীঘিতে বুড়াদীঘিতে মাছ মারাকে কেন্দ্র করে মারামারিতে ৫জন আহত হয়। তাহতদের নিয়ামতপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। আহতরা হলেন নিমদীঘি বুড়াদীঘি গ্রামের বরহান উদ্দিনের ছেলে আলাউদ্দিন (৫৫), আলাউদ্দিনের ছেলে গোলাম রাব্বানী (৩০), নিমদীঘি স্কুলপাড়ার আব্দুল করিমের ছেলে মোহাম্মাদ আলী (২৭), আব্দুল করিমের ছেলে ইমাম হোসেন (২৫), তইবর রহমানের ছেলে নাইম (২৫)। পুলিশ জেলেসহ ২জনকে আটক করে।
মোহাম্মাদ আলী এ প্রতিবেদককে বলেন, প্রায় ৩৪ বিঘা জলার নিমদীঘির বুড়াদীঘিতে (খাস) গত শনিবার রাত ২টায় দীঘির মালিকানা দাবীদার রবিউল ইসলামে নেতৃত্বে প্রায় ৫০/৬০জন জেলেকে নিয়ে মাছ মারা শুরু করে। আমরা জানতে পারলে সাথে সাথে থানায় ফোন করি। পুলিশ রাতেই উপ-পরিদর্শক (এসআই) শরিফুল ইসলামসহ কয়েকজন পুলিশসহ পিকআপ নিয়ে গেলে তারা পালিয়ে যায়।
পুলিশ রবিউল ইসলামের ভাগ্নে গোমস্তাপুর উপজেলার বড়দাদপুর গ্রামের ইসরাইলের ছেলে আহসান আলীসহ ২জনকে আটক করে চলে যায় এবং আমাদেরকে জালগুলো গুছিয়ে থানায় নিয়ে আসতে বলে। আমরা জাল গুছানোর সময় রবিউল ইসলামের লোকজন হঠাৎ আমাদের উপর দেশীয় অস্ত্র নিয়ে হামলা করলে আমাদের ৫জন আহত হয়। আহতদের মধ্যে আলাউদ্দিনের অবস্থা আশংকাজনক।
নিয়ামতপুর থানার অফিসার ইনচার্জ তোরিকুল ইসলাম বলেন, আমরা ঘটনা জানার সাথে সথে পিকআপ ভ্যান যোগে ফোর্স পাঠিয়ে দেই। ২ জনকে আটক করে নিয়ে আসে। পরে গোমস্তাপুর উপজেলার বড়দাদপুর গ্রামের ইসরাইলের ছেলে আহসান আলকে গ্রেফতার দেখিয়ে জেলেকে ছেড়ে দেওয়া হয়। এ রিপোর্ট লিখা পর্যন্ত মামলার প্রস্তুতি চলছে।


প্রকাশিত: ফেব্রুয়ারি ৪, ২০১৯ | সময়: ৩:৩৯ পূর্বাহ্ণ | সুমন শেখ