Daily Sunshine

উপজেলা ভোটে যাচ্ছে না বিএনপি

সানশাইন ডেস্ক : আগামী মার্চ থেকে শুরু হতে যাওয়া উপজেলা নির্বাচনে না যাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। বিগত জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সরকার ও নির্বাচন কমিশন ভোট ডাকাতি করেছে দাবি করে তিনি জানিয়েছেন, তাদের অধীনে আর কোনো নির্বাচনে যাবে না বিএনপিসহ জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট।
সোমবার বিকালে লালমনিরহাটে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে ফখরুল এসব কথা বলেন। এর আগে সদর উপজেলার রাজপুর ইউনিয়নের খলাইঘাট এলাকায় নির্বাচনী সহিংসতায় নিহত বিএনপি নেতার কবর জিয়ারত করেন দলের মহাসচিব।
গত ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হয় একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন। এতে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন মহাজোট ২৮৮টি আসনে বিজয়ী হয়েছে। যদিও বিএনপি জোট দাবি করছে আগের রাতেই ভোট দিয়ে ব্যালট বাক্স ভরে রাখা হয়। এছাড়া তাদের নেতাকর্মী ও সমর্থকদের ভোটকেন্দ্রেও যেতে দেয়া হয়নি। এই নির্বাচনে আটটি আসনে বিজয়ী জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থীরা শপথ নেবেন না বলে ইতিমধ্যে জানিয়ে দিয়েছেন। উপজেলা নির্বাচনে দলটি অংশ নেবে কি না এটা নিয়ে দুই ধরনের বক্তব্যই পাওয়া যাচ্ছিল। তবে ফখরুলের কথায় উপজেলা নির্বাচনে না যাওয়ার বিষয়টি অনেকটা স্পষ্ট হয়ে গেল।
সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘বিএনপি এই সরকার ও এই সিইসির অধীনে কোনো নির্বাচনে যাবে না। উপজেলা নির্বাচনেও নয়। দেশের মানুষ কলঙ্কিত নির্বাচন মেনে নেয়নি। দেশের মানুষের অধিকার কেড়ে নিয়েছে এই সরকার।’
ফখরুল অভিযোগ করেন, ‘সরকার জনগণের ভোটের অধিকার হরণ করে তারা বিজয় উৎসব করছে। এ সরকার ভোট ডাকাতি করা সরকার।’ ভোট ডাকাতি করে কেউ বেশিদিন থাকতে পারবে না বলেও মন্তব্য করেন তিনি।
মহাসচিব বলেন, ‘নির্বাচনের আগে থেকে বলা হয়েছিল ভোট বাতিল করে পুনরায় নিরপেক্ষ তত্ত্বাধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন করতে হবে। গত নির্বাচনে আওয়ামী লীগের সন্ত্রাসীরা বিএনপি তথা ঐক্যফ্রন্টের অনেক নেতাকর্মীকে নির্মমভাবে খুন করেছে। বেগম খালেদা জিয়াকে বিনা অপরাধে ১১ মাস জেলে রেখে অত্যাচার করছে। একজন দেশের সাবেক প্রাধানমন্ত্রীকে এ সরকার এভাবে রেখে অত্যাচার করলে দেশের মানুষ কখনো মেনে নেবে না।’
ফখরুলসহ ঐক্যফ্রন্ট নেতারা রাজপুরের খলাইঘাট এলাকায় নিহত ওয়ার্ড বিএনপি নেতা তোজাম্মেল হকের কবর জিয়ারত করেন। এরপর নিহতের পরিবারের সঙ্গে দেখা করে সমবেদনা জানান। নিহত নেতার স্ত্রীর হাতে নগদ একটি চেক তুলে দেন ফখরুল। পরে নিহত বিএনপি নেতার বাড়ির পাশে প্রতিবাদ সমাবেশে যোগ দেন ঐক্যফ্রন্টের নেতাকর্মীরা।
এ সময় ফখরুলের সঙ্গে ঐক্যফ্রন্টের নেতাদের মধ্যে ছিলেন কাদের সিদ্দিকী, আ স ম আব্দুর রব, জাফরুল্লাহ চৌধুরী, আসাদুল হাবিব দুলু, রোকন উদ্দিন বাবুল, একে এম মমিনুল হক প্রমুখ।

জানুয়ারি ২২
০৪:১৫ ২০১৯

আরও খবর

পত্রিকায় যেমন

বিশেষ সংবাদ

আলোকিত সিটি পেয়েছেন মহানগরবাসী

আলোকিত সিটি পেয়েছেন মহানগরবাসী

স্টাফ রিপোর্টার : রাজশাহী মহানগরীর শহীদ এ.এইচ.এম কামারুজ্জামান চত্বরে দাঁড়িয়ে আছে মাস্তুল আকৃতির মজবুত দুইটি পোল। প্রতিটি পোলের উপর রিং বসিয়ে তার চতুরদিকে বসানো হয়েছে উচ্চমানের এলইডি লাইট। আর সেই লাইটের আলোয় আলোকিত বিস্তৃত এলাকা। শুধু শহীদ এ.এইচ.এম কামারুজ্জামান চত্বর নয়, এভাবে মহানগরীর আরো গুরুত্বপূর্ণ ১৪টি চত্বর আলোকিত হয় প্রতি

বিস্তারিত




এক নজরে

আমাদের সাথেই থাকুন

চাকরি

সরকারি চাকরি প্রার্থীর বয়সে ছাড়

সরকারি চাকরি প্রার্থীর বয়সে ছাড়

সানশাইন ডেস্ক : করোনা মহামারিতে সাধারণ ছুটিতে স্বাভাবিক জীবনযাত্রার সঙ্গে স্থগিত ছিল সরকারি-বেসরকারি চাকরির নিয়োগ প্রক্রিয়া। এ কয়েক মাসে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি পায়নি দেশের শিক্ষিত বেকার জনগোষ্ঠী। অংশ নিতে পারেনি কোনো নিয়োগ পরীক্ষাতেও। অনেকেরই বয়স পেরিয়ে গেছে ৩০ বছর। স্বাভাবিকভাবেই সরকারি চাকরির আবেদনে সুযোগ শেষ হয়ে যায় তাদের। তবে এ দুর্যোগকালীন

বিস্তারিত