Daily Sunshine

তানোরে ক্ষতিগ্রস্থ আলুর জমি পরিদর্শনে বিএমডিএ প্রকৌশলী

ক্ষতিপূরণের আশ্বাস
স্টাফ রিপোর্টার : রাজশাহীর তানোর পানি ঢুকিয়ে ডুবিয়ে দেয়া কৃষকের আলুর জমি পরিদর্শনে গিয়ে ক্ষতিগ্রস্থ আলু চাষীকে ক্ষতিপূরণের আশ্বাস দিয়েছেন বিএমডিএ প্রকৌশলী। অপরদিকে স্থানীয় কৃষকদের বিভিন্ন অভিযোগ শুনে গভীর নলকুপটি সঠিকভাবে পরিচালনা ও জমিতে সেচ প্রদানের জন্য স্থানীয় কৃষকদের সমন্বয়ে একটি কমিটি গঠন করে দিয়েছেন প্রকৌশলী শরিফুল ইসলাম।
রোববার পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদ দেখে বরেন্দ্র বহুমুখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ তানোর জোনের সহকারী প্রকৌশলী শরিফুর ইসলাম দুপুর ১২টার দিকে ক্ষতিগ্রস্থ ঐ কৃষকের আলুর জমিতে পরিদর্শনে যান। আলুর জমি থেকে পানি কেটে নামানোর পাশাপাশি ক্ষতিগ্রস্থ আলু চাষীকে ক্ষতিপূরণের আশ্বাস দিয়ে ঐ নলকুপটি সুষ্ঠুভাবে পরিচালনা ও সঠিকভাবে কৃষকদের সেচ প্রদানের জন্য একটি কমিটি গঠন করে দেন।
এসময় এলাকার বেশ কিছু কৃষক উপস্থিত ছিলেন। কিন্তু নলকূপের অপারেটর গভীর নলকুপে তালা দিয়ে চলে যায়। ডেকে দীর্ঘসময় অপেক্ষা করলেও রহস্যজনক কারনে অপারেটর রেজাউল ইসলাম ঘটনাস্থলে উপস্থিত হননি। ঘটনাস্থলে উপস্থিত কৃষকরা বোরো চাষের জন্য জরুরী ভিত্তিতে জমিতে সেচ প্রদানের দাবি করলে বরেন্দ্র প্রকৌশলী গভীর নলকুপটি পরিচালনার জন্য উপস্থিত কৃষকদের সমন্বয়ে কমিটি গঠন করে দেন।
বরেন্দ্র বহুমুখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ তানোর জোনের সহকারী প্রকৌশলী শরিফুল ইসলাম ঘটনাটি সত্য বলে জানান। তিনি বলেন, পানি কেটে নামিয়ে দিলেও জমির আলু পুরোটাই ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্থ আলু চাষী আজিজুলের জমির নিচ দিয়ে যাওয়া পানির পাইপ ফেটে যাওয়ার পর বরেন্দ্র কর্তৃপক্ষ ও কৃষকদেরকে না জানিয়েই আলু চাষী আজিজুলকে ক্ষতিগ্রস্থ করতে ইচ্ছাকৃত ভাবেই ফেটে যাওয়া লাইন দিয়ে বোরো চাষীদের জমিতে সেচ প্রদান করছিলো।
তিনি আরও বলেন, গত ২দিন যাবত এ অবস্থার সৃষ্টি হলেও গভীর নলকুপ অপারেটর ও ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকরা কর্তৃপক্ষকে অবহিত করেনি। পত্রিকায় খবর দেখে ঘটনাস্থলে গিয়ে সত্যতা ভিত্তিতে সমাধানের ব্যবস্থা করেছেন বলে জানান তিনি।
জানা গেছে, থানায় দেয়া কৃষকের অভিযোগটি পুলিশ মামলা হিসেবে রেকর্ড করেনি। কোন ব্যবস্থাও গ্রহন করেননি। এ বিষয়ে ক্ষতিগ্রস্থ আলু চাষী আজিজুল ইসলাম বলেন, থানায় অভিযোগ দেয়ার পরও পুলিশ কোন ব্যবস্থাগ্রহণ করেনি।
তানোর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রেজাউল ইসলাম বলেন, অভিযোগ পেয়েছি, তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য এসআই আব্দুর রহিমকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হচ্ছে বলে জানান এসআই আব্দুর রহিম।
উল্লেখ্য, গত শুক্রবার সকাল ৯টার দিকে পূর্ব শক্রতার জের ধরে তানোর উপজেলার ধানুরা মৌজায় জে-এল নং ১৮১ ও ১৬৫৫ দাগে স্থাপিত বরেন্দ্র রহুমুখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের গভীর নলকুপের অপারেট ধানুরা গ্রামের মৃত আব্দুল হামিদের ছেলে রেজাউল ইসলাম একই গ্রামের মৃত তাহের আলীর ছেলে আজিজুল ইসলামের ৫ বিঘা আলুর জমিতে পানি ঢুকিয়ে ডুবিয়ে দেয়। এতে কৃষক আজিজুলের প্রায় ৮০ হাজার টাকা ক্ষতি হয়।

জানুয়ারি ২১
০৩:১৯ ২০১৯

আরও খবর