Daily Sunshine

বাঘায় পুলিশ পরিচয়ে চেয়ারম্যান কাউন্সিলরের কাছে চাঁদা দাবি

স্টাফ রিপোর্টার, বাঘা : রাজশাহীর বাঘা থানা পুলিশের পরিচয় দিয়ে চেয়ারম্যান, পৌর কাউন্সিলর ও বিএনপির নেতাদের কাছে চাঁদা দাবি করা হয়েছে। চাঁদা না দিলে বিস্ফোরকদ্রব্য আইনে মামলা দিয়ে ফাঁসানো হবে বলে হুমকি দেয়া হয়েছে। সোমবার বেলা ১১টা থেকে শুরু করে বিকেল পর্যন্ত ৬ জনের কাছে থেকে বাঘা থানার সেকেন্ড অফিসার পরিচয় দিয়ে এ চাঁদা দাবি করা হয়। তবে যে মোবাইল নম্বর থেকে চাঁদা দাবি করা হয়েছে, সেই নম্বরে বাঘা থানায় কোন সেকেন্ড অফিসার নেই।
সুত্রে জানা যায়, বাঘা উপজেলার পাকুড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ফকরুল হাসান বাবলু, বাঘা পৌরসভার ১ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর আবদুস সালাম, ২ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর আলতাফ হোসেন, ৪ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর আসলাম হোসেন, বাঘা উপজেলা বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক আশরাফুদৌলা ও বাঘা পৌর বিএনপির সভাপতি কামাল হোসেন এর কাছে থেকে বাঘা থানার সেকেন্ড অফিসার পরিচয় দিয়ে ০১৭৫৫-২৯৬৭৩৯ নম্বর থেকে চাঁদা দাবি করা হয়। চাঁদা না দিলে বিস্ফোরক আইনে মামলা দেয়া হবে বলে হুমকি দেয়া হয়। তাদের মধ্যে কারো কাছে থেকে ৫০ হাজার আবার কারো কাছে থেকে এক লক্ষ টাকা পর্যন্ত চাঁদা দাবি করেন ওই ভুয়া পুলিশ কমকর্তা।
বাঘা পৌরসভার ১ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর আসলাম হোসেন বলেন, রোববার বেলা ১১টার দিকে আমাকে বাঘা থানার সেকেন্ড অফিসার পরিচয় দিয়ে ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করা হয়। এ টাকা ১০ মিনিটের মধ্যে না দিলে বিস্ফোরক আইনে মামলা দেয়া হবে বলেও হুমকি দেন ওই সেকেন্ড অফিসার। পরে খোঁজ নিয়ে জানলাম শুধু আমাকে নয়, আমার মতো অনেক কেই ওই নম্বর থেকে চাঁদা দাবি করে হুমকি দেয়া হয়েছে। তবে যে নম্বর থেকে চাঁদা দাবি করা হয়েছে, সেই নম্বরটি খোলা রয়েছে। বারবার ফোন দিলে ফোন না ধরে কেটে দিচ্ছেন।
বাঘা থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মহসীন আলী বলেন, যে নম্বর থেকে সেকেন্ড অফিসার হিসেবে পরিচয় দিয়ে চাঁদা দাবি করা হয়েছে। এ নম্বরের কোন ব্যক্তি বাঘা থানায় নেই। তবে এ নম্বরের ব্যক্তিকে খুঁজে বের করার চেষ্টা চলছে।

জানুয়ারি ১৫
০৩:৩০ ২০১৯

আরও খবর