Daily Sunshine

সংরক্ষিত আসনের প্রার্থী প্রসঙ্গ

বিএনপি ও ঐক্যফ্রন্ট সংসদ সদস্যরা এখনো শপথ নেননি। ইতোমধ্যে তারা নির্বাচনে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ তুলে ফলাফল প্রত্যাখ্যান করেছেন। ঠিক একই ভাবে ফলাফল প্রত্যাখ্যান করেছে বাম গণতান্ত্রিক জোট ও ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ। এরই মাঝে এখন চলছেন একাদশ জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত আসনের নির্বাচন নিয়ে নানান কথা। সংসদে প্রতিনিধিত্বকারী দলগুলোর আনুপাতিক হিসেবে এই আসন সংখ্যা নির্ধারিত হয়। সে হিসেবে এবার আওয়ামী লীগ ও জাতীয় পার্টির বাইরে বিএনপি ঐক্যফ্রন্টের জন্যে ১টি এবং স্বতন্ত্র ও অন্যান্যদের জন্যে ২টি আসন রয়েছে।
সংরক্ষিত আসন নিয়ে আওয়ামী লীগের মধ্যে ব্যাপক আলোচনা হচ্ছে সর্বত্র। কে কোথায় এ জন্যে দলীয় মনোনয়ন পাচ্ছেন সে নিয়ে চলছে দলের ভেতর বাইরে নানান কথাবার্তা, সে সব বিভিন্ন পত্র পত্রিকায় এখন নিয়মিত প্রকাশিত হচ্ছে। এসব খবরে কারো কারো প্রার্থীতা পুরোটা না হলেও অনেকটা নিশ্চিত এমন অভাসও দেয়া হচ্ছে। কিন্তু তারপরেও কথা থেকে যায় সংসদীয় বোর্ড এবং দলের প্রধান কাকে মনোনয়ন দেবেন সে বিষয়টি। নিশ্চিয় সব দিক বিচার বিবেচনা করেই এক্ষেত্রে দলীয় সিদ্ধান্ত হবে এবং তা সময় মতো জানা যাবে। এ জন্যে তাই আমাদের অপেক্ষা করতেই হবে।
মহাজোট করে নির্বাচন করা জাতীয় পার্টি এবার জোট ছেড়ে বিরোধী দল হিসেবে সংসদে থাকবে সে ঘোষণা ইতোমধ্যে এসেছে। আর দলীয় প্রধান এরশাদের প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূতের পদটি বাতিল করে ইতোমধ্যে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে। ফলে জাপা এখন বিরোধী শিবিরে সেটা বোঝা যাচ্ছে। তাদের সংরক্ষিত আসনের প্রার্থী চূড়ান্ত হবে দলের প্রধানের ইচ্ছাতে। কারা এক্ষেত্রে মনোনয়ন পাচ্ছেন সেটা বোঝা যাবে এই নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর।
সংরক্ষিত আসনে বিএনপি ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থীর বিষয়টি সামনেই নেই যেহেতু তারা ফলাফলই প্রত্যাখ্যান করে এখনো শপথ নেয়নি। তবে স্বতন্ত্র ও অন্যান্যদের প্রার্থী কারা হবেন সেটাও পরিষ্কার নয়। যায় হোক একাদশ জাতীয় সংসদে সংরক্ষিত আসনে আওয়ামী লীগ জাতীয় পার্টি এবং অন্যন্যদের পক্ষে কারা সংসদে প্রতিনিধিত্ব করবেন তা বোঝা যাবে এ ব্যাপারে নির্বাচন কমিশনের নির্বাচনী তফষিল ঘোষণার পর।

জানুয়ারি ১৩
০৩:১০ ২০১৯

আরও খবর