Daily Sunshine

বাগমারায় বোরো বীজতলায় কোল্ড ইনজুরি

মাহফুজুর রহমান প্রিন্স, বাগমারা : অব্যাহত শীত ও ঘন কুয়াশার কারণে বোর বীজতলা নিয়ে বিপাকে পড়েছেন কৃষকরা। বীজতলা রক্ষা করতে বাগমারার কৃষকরা পলিথিন বিছিয়ে। পলিথিন দিয়ে কৃষকরা এখন বোরো চারা উৎপাদন করছে।
গত কয়েকদিনের অব্যাহত শীত ও ঘন কুয়াশার কারণে বোরো চারা উৎপাদন কষ্টসাধ্য হয়ে পড়েছে। এ কারনেই কৃষকরা চারা উৎপাদনে পলিথিন ব্যবহার করছে।
কৃষকরা জানান, ঘন কুয়াশা ও শৈত প্রবাহের কারণে কোল্ড ইনজুরিতে বোরো চারা হলুদ বর্ণ ধারন করছে। অনেকের চারা মারা যাচ্ছে। ওই মরা চারা জমিতে রোপন করলে আশনুরূপ ফলন পাওয়া যাবে না।
সরেজমিনে উপজেলার বেশ কিছু এলাকা ঘুরে দেখা যায়, চারা রোপনের বয়স হলেও শীতের কারণে জমিতে লাগাতে পারছে না কৃষক। অনেক চারা হলুদ ও লাল বর্ণ ধারন করেছে। অনেকের চারা হলুদ বর্ণ ধারন করে মরেও যাচ্ছে।
মাড়িয়ার কৃষক লুৎফর রহমান ও আসাদুল জানান, প্রচন্ড শীতে চারা ফেললে নষ্ট হয়ে যাবে। এ কারণে তারা জমিতে বীজ ফেল পলিথিন দিয়ে ঢেকে দিয়েছেন। যাতে চারা নষ্ট না হয়। এসব চারা তারা আলু তোলার পর রোপন করবেন।
হামিরকুৎসার বোরো চাষি মুঞ্জুর রহমান ও রফিকুল ইসলাম জানান, পলিথিন দিয়ে ঢেকে চারা উৎপাদন করলে চারার মান ভালো থাকে।
উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ রাজিবুর রহমান জানান, শীতের কারণে কিছু চারা হলুদ হয়েছে। তবে এতে তেমন ক্ষতি হবে না। এসব চারায় ছত্রাক নাশক স্প্রে করতে হবে। সেই সাথে সকালে কুয়াশ ঝেড়ে ফেলে দিতে হবে। তবে পলিথিন দিয়ে শুকনা বীজতলা করা খুবই উত্তম।

জানুয়ারি ১১
০২:৪২ ২০১৯

আরও খবর

পত্রিকায় যেমন

বিশেষ সংবাদ

ডিগ্রী থাকলেও মিলছেনা যোগ্য চাকরি

ডিগ্রী থাকলেও মিলছেনা যোগ্য চাকরি

শাহ্জাদা মিলন: বাংলাদেশের অন্যতম বিভাগীয় শহর রাজশাহী। সিল্কসিটি, আমের রাজধানী হিসেবে পরিচিত সারা দেশে রাজশাহী। তবে এসব পরিচয় ছাপিয়ে রাজশাহী ‘শিক্ষা নগরী’ হিসেবে সবচেয়ে বেশি পরিচিত। অসংখ্য নামিদামি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রয়েছে এখানে। এর সুফলে রাজশাহীতে বছর বছর বাড়তে ডিগ্রিধারী মানুষের সংখ্যা। তবে সেই অনুপাতে বাড়ছে না কর্মসংস্থান। রাজশাহীতে রয়েছে রাজশাহী

বিস্তারিত




এক নজরে

আমাদের সাথেই থাকুন

চাকরি

সরকারি চাকরি প্রার্থীর বয়সে ছাড়

সরকারি চাকরি প্রার্থীর বয়সে ছাড়

সানশাইন ডেস্ক : করোনা মহামারিতে সাধারণ ছুটিতে স্বাভাবিক জীবনযাত্রার সঙ্গে স্থগিত ছিল সরকারি-বেসরকারি চাকরির নিয়োগ প্রক্রিয়া। এ কয়েক মাসে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি পায়নি দেশের শিক্ষিত বেকার জনগোষ্ঠী। অংশ নিতে পারেনি কোনো নিয়োগ পরীক্ষাতেও। অনেকেরই বয়স পেরিয়ে গেছে ৩০ বছর। স্বাভাবিকভাবেই সরকারি চাকরির আবেদনে সুযোগ শেষ হয়ে যায় তাদের। তবে এ দুর্যোগকালীন

বিস্তারিত