Daily Sunshine

হঠাৎ জেগে উঠলো লাশ, অতপর মৃত্যু

বরেন্দ্র অঞ্চল প্রতিনিধি : মুত্যুর সংবাদ দিয়ে গ্রামে গ্রামে মাইকিং। কবর কাটা শেষ। লাশ গোসল করাই কাফনের কাপড় পরে তোলা হয়েছে খাটে। বাড়িতে চলছে কান্না ও শোকের মাতম। জানাযার জন্য লাশের খাট বাড়ি থেকে বের করতেই ঘটে বিপত্তি।
খাটে উঠানোর সময় একাধিক বার ঝাঁকনি দিয়ে নড়ে চড়ে উঠে লাশ। বেঁচে আছে ভেবে কাফন পড়ানো অবস্থায় লাশ নিয়ে ছুটেন রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে। কিন্ত শেষ রক্ষা হয়নি রামেকের জরুরি বিভাগে তাকে মৃত্যু ঘোষনা করেন চিকিৎসক।
সোমবার রাজশাহী তানোর উপজেলার মুণ্ডুমালা সাদিপুর উত্তরপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত ব্যক্তি আব্দুল খালেক (৩৮)। সে সাদিপুরর গ্রামের মৃত আরজেন আলীর ছেলে।
নিহতের পরিবার ও স্থানীয়দের তথ্য মতে, সোমরার সকালে মুণ্ডুমালা বাজারে আব্দুল খালেক ভটভটি চালানোর সময় মাথা ঘুরে মাটিতে পড়ে গিয়ে জ্ঞান হারায় ফেলেন। পরিবারের লোকজন তাকে উদ্ধার করে স্থানীয় চিকিৎসকের কাছে নিয়ে গেলে খালেক মারা গেছেন বলে জানান।
সে মোতাবেক তার দাফন করার জন্য পরিবারের লোকজন ও গ্রামবাসী সোমবার বিকাল চারটার সময় তার জানাযা হবে বলে গ্রামে গ্রামে মসজিদে মাইকিং করেন। কবর তৈরি। গোসল শেষে কাফন পরানো হয়। বিকাল চারটার জানাযা পড়ানোর আগ মুহুর্ত। বাড়ি থেকে লাশের খাট নিয়ে যাওয়ার প্রস্তুতি চলছে। যেতেই ঝাঁকনি দিয়ে নড়াচড়া করতে থাকে লাশ।
নিহতের বড় ভাই সাদিকুল ইসলাম বলেন, লাশের ঝাঁকুনি ও নড়াচড়া দেখে বেঁচে আছে এমনটা ভেবে প্রথমে মুণ্ডুমালা বাজারে একটি মিশন হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানের চিকিৎসক বলেন, তিনি বেঁচে আছেন তার পালস চলছে। তাকে দ্রুত মেডিকেলে নিয়ে যান। সে মোতাবেক তাক্বে মাইক্রোবাসে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে যায়। সেখানকার চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করেন।

জানুয়ারি ০৮
০৩:৩৩ ২০১৯

আরও খবর