Daily Sunshine

সৈয়দ আশরাফের মৃত্যুতে রাজশাহীজুড়ে শোক

স্টাফ রিপোর্টার : স্বাধীনতার মহান স্থপতি ও জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঘনিষ্ঠ সহচর, প্রবাসী সরকারের ভারপ্রাপ্ত রাষ্ট্রপতি ও চার শহীদ নেতার অন্যতম সৈয়দ নজরুল ইসলামের জেষ্ঠ্য পুত্র এবং সাবেক ছাত্রনেতা, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক, বর্তমান প্রেসিডিয়াম সদস্য ও জনপ্রশাসন মন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম এমপির ইন্তেকালে রাজশাহীর সর্বস্তরের মানুষ, বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও সংগঠন গভীর শোক প্রকাশ করেছেন।
গভীর শোক ও দু:খ প্রকাশ করেছেন রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন। বৃহস্পতিবার রাতে এক শোকবার্তায় তিনি এ শোক প্রকাশ করেন। শোকবার্তায় মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, জাতীয় চার নেতার অন্যতম শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলামের জ্যৈষ্ঠ সন্তান সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম ছিলেন বাংলাদেশের রাজনীতির উজ্জ্বল নক্ষত্র। তাঁর মৃত্যুতে রাজনৈতিক অঙ্গনে যে ক্ষতি হলো তা অপূরণীয়।
শোকবার্তায় জাতীয় চার নেতার অন্যতম শহীদ এএইচএম কামারুজ্জামানের সন্তান রাসিক মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন আরো বলেন, আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের অসামান্য অবদান এবং ১/১১ এর সময় তাঁর সাহসী ও বলিষ্ঠ ভুমিকা জাতি চিরকাল স্মরণ করবে।
এদিকে রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির অন্যতম সদস্য, রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি ও রাসিক মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন এবং রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার গভীর শোক প্রকাশ করেছেন। এক শোক বার্তায় নেতৃদ্বয় মহানগর আওয়ামী লীগের সকর নেতাকর্মীর পক্ষ থেকে মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন এবং তার শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেন।
জনপ্রশাসন মন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের মৃত্যুতে শোক বার্তা প্রকাশ করেছে রাজশাহী মহানগর যুবলীগ। শোক বার্তায় সৈয়দ আশরাফের রুহের মাগফেরাত কামনা করে তার শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান হয়েছে। শুক্রবার সংগঠনটির পক্ষ থেকে পাঠান এক বিবৃতিতে এই শোক প্রকাশ করা হয়।
মহানগর যুবলীগের সভাপতি রমজান আলী ও সাধারণ সম্পাদক বাচ্চুর পক্ষে সংগঠনটির দপ্তর সম্পাদক মাহামুদ হাসান খান চৌধুরী ইতুর দেয়া বিবৃতিতে বলা হয়, সৈয়দ আশরাফুলের মৃত্যুতে বাংলাদেশেল রাজনৈতিক অঙ্গনের অপূরণীয় ক্ষতি হলো। বর্তামন প্রেক্ষাপটে তার মতো রাজনীতিবিদের বিশেষ প্রয়োজন ছিল। তার মৃত্যুতে দেশ হারাল মহৎপ্রাণ ত্যাগী দেশপ্রেমিক একজন রাজনীতিবিদকে।
সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন রাজশাহী জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আলী সরকার। শুক্রবার বিকালে পরিষদের সকল সদস্য, সংরক্ষিত নারী ওয়ার্ডের সদস্য এবং কর্মকর্তা-কর্মচারীদের পক্ষ থেকে দেয়া এক শোকবার্তায় তিনি গভীর শোক প্রকাশ করেন। শোকবার্তায় চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আলী সরকার বলেন, বাংলাদেশের রাজনৈতিক অঙ্গনে সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম ছিলেন এক উজ্জ্বল নক্ষত্র। তার মৃত্যুতে দেশ এক নিবেদিতপ্রাণ, নির্লোভ রাজনীতিককে হারালো। বাংলাদেশ তার অবদান চিরকাল স্মরণ করবে। চেয়ারম্যান তার শোকবার্তায় সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের বিদেহী আত্মার শান্তিও কামনা করেন।
আরইউজের শোক: আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও জনপ্রশাসন মন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের মৃত্যুতে গভীর শোকপ্রকাশ করেছে রাজশাহী সাংবাদিক ইউনিয়ন (আরইউজে)।
শুক্রবার এক শোকবার্তায় রাজশাহী সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি কাজী শাহেদ এবং সাধারণ সম্পাদক তানজিমুল হক বলেন, সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের মৃত্যু গণতান্ত্রিক এবং মুক্তিযুদ্ধের চেতনার পক্ষের শক্তির জন্য অপূরণীয় ক্ষতি। তিনি ছিলেন দুঃসময়ের সাহসী সন্তান। ছিলেন দেশপ্রেমিক, সৎ ও আদর্শবান রাজনীতিবিদ। জাতির প্রতি তার দায়িত্ববোধ ছিলো অনুকরণীয়। তার মৃত্যুতে জাতি একজন শ্রেষ্ঠ সন্তানকে হারালো। তার অবদান বাঙালি জাতি শ্রদ্ধার সাথে স্মরণে রাখবে।
আরইউজে সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।
একইসঙ্গে সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের মৃত্যুতে বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) সহসভাপতি মামুন-অর-রশিদ, সদস্য আনু মোস্তফা ও জাবীদ অপু গভীর শোকপ্রকাশ করেছেন।

জানুয়ারি ০৫
০৩:৩৪ ২০১৯

আরও খবর

পত্রিকায় যেমন

বিশেষ সংবাদ

আলোকিত সিটি পেয়েছেন মহানগরবাসী

আলোকিত সিটি পেয়েছেন মহানগরবাসী

স্টাফ রিপোর্টার : রাজশাহী মহানগরীর শহীদ এ.এইচ.এম কামারুজ্জামান চত্বরে দাঁড়িয়ে আছে মাস্তুল আকৃতির মজবুত দুইটি পোল। প্রতিটি পোলের উপর রিং বসিয়ে তার চতুরদিকে বসানো হয়েছে উচ্চমানের এলইডি লাইট। আর সেই লাইটের আলোয় আলোকিত বিস্তৃত এলাকা। শুধু শহীদ এ.এইচ.এম কামারুজ্জামান চত্বর নয়, এভাবে মহানগরীর আরো গুরুত্বপূর্ণ ১৪টি চত্বর আলোকিত হয় প্রতি

বিস্তারিত




এক নজরে

আমাদের সাথেই থাকুন

চাকরি

সরকারি চাকরি প্রার্থীর বয়সে ছাড়

সরকারি চাকরি প্রার্থীর বয়সে ছাড়

সানশাইন ডেস্ক : করোনা মহামারিতে সাধারণ ছুটিতে স্বাভাবিক জীবনযাত্রার সঙ্গে স্থগিত ছিল সরকারি-বেসরকারি চাকরির নিয়োগ প্রক্রিয়া। এ কয়েক মাসে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি পায়নি দেশের শিক্ষিত বেকার জনগোষ্ঠী। অংশ নিতে পারেনি কোনো নিয়োগ পরীক্ষাতেও। অনেকেরই বয়স পেরিয়ে গেছে ৩০ বছর। স্বাভাবিকভাবেই সরকারি চাকরির আবেদনে সুযোগ শেষ হয়ে যায় তাদের। তবে এ দুর্যোগকালীন

বিস্তারিত