Daily Sunshine

এমপিদের শপথঃ বিরোধী দলে থাকতে চায় এরশাদের জাপা

একাদশ জাতীয় সংসদের নির্বাচিত সদস্যরা (বিএনপি ঐক্যফ্রন্ট ছাড়া) গত বৃহস্পতিবার শপথ নিয়েছেন। তবে অসুস্থতার কারণে জাপা চেয়ারম্যান এইচএম এরশাদ ও সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম শপথ নিতে পারেননি। ওই দিন রাতেই ইন্তেকাল করেন আওয়ামী লীগ প্রেসিডিয়াম সদস্য সৈয়দ আশরাফ। তাঁর মৃত্যুতে দেশ একজন আদর্শবান রাজনৈতিক নেতা হারালেন। আমরা তাঁর মৃত্যুতে শোকাহত। তাঁর বিদেশী আত্মার মাগফেরাত কামনা করি।
সরকারে এবারে যাবে না হু মু এরশাদের জাতীয় পার্টি। গতকাল এমনি এক বিবৃতি গণমাধ্যমে পাঠিয়েছেন তিনি, যেখানে তাঁর দল বিরোধী দলের অবস্থান নেবে বলে জানিয়েছেন। তিনি হবেন বিরোধী দলের নেতা এবং উপনেতা হবেন পার্টির কো-চেয়ারম্যান জিএম কাদের। একাদশ সংসদে জাতীয় পার্টির সদস্য সংখ্যা ২২ জন। এখন দেখবার বিরোধীদল হিসেবে চলতি সংসদে কী ভূমিকা রাখে জাতীয় পার্টি।
আওয়ামী লীগের সাথে মহাজোট করে জাতীয় পার্টি ওই ২২ আসনে জয়ী হয়েছে। তারা অন্য যে সব আসনে প্রার্থী দিয়েছিল সমান্তরাল ভাবে আওয়ামী লীগের সাথে সে সব আসনে তাদের প্রার্থীরা পরাজিত হয়েছেন। তাই স্বাভাবিক ভাবেই সরকারের অংশ হবে জাতীয় পার্টি এমনটি ধারণা করা হচ্ছিল এবং সেটা শপথ নেয়ার পর জাপা সাংসদদের কণ্ঠেও গত সংসদের মতো উভয় ভূমিকাতে থাকবেন। কিন্তু এরশাদের বিবৃতির পর এখন রাজনীতিতে তাঁরা এটা নতুন করে কী মাত্রা যোগ করে সেটা সামনের দিনগুলোতে বোঝা যাবে বলে আমাদের বিশ্বাস।
দশম জাতীয় সংসদে বিএনপি’র অংশ গ্রহণ ছিল না মূলত: ৫ই জানুয়ারি ১৪‘র নির্বাচন বর্জন করার ফলে। ওই সংসদে জাতীয় পার্টি বিরাধীদলে বসলেও সরকারের মন্ত্রীও ছিলেন দলের ক’জন সাংসদ এবং মন্ত্রীর মর্যাদায় পার্টির চেয়ারম্যান ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূত। এমনি দ্বি-চারি ভূমিকা ছিল জাতীয় পার্টির। এবার সব নিবন্ধিত রাজনৈতিক দল নির্বাচনে অংশ নিয়েছে এবং মূলত দুটি জোট ভুক্ত হয়ে এই নির্বাচনে অংশ নেয় আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও জাতীয় পার্টি। এতে নিরস্কুশ সংখ্যাগরিষ্টতা পেয়েছে আওয়ামী লীগ। আর বিএনপি পেয়েছে ৫টি এবং তার জোটভুক্ত ঐক্যফ্রন্টের গণফোরাম পেয়েছে ২টি এর বাইরে বিএনপি’র একজন স্বতন্ত্র প্রাথী জয়ী হয়েছেন। তাই সব মিলিয়ে বিএনপি সমর্থন পাওয়া সাংসদ ৮ জন।
এই অবস্থায় সংগত কারণে জাতীয় পার্টি তার বিরাধী দলীয় মর্যাদা ধরে রাখতে চায়। হয়তো তাই সরকারে অংশ না হয়ে এবারের সংসদে পরিপূর্ণ বিরোধী দলের ভূমিকা নিতে চায় দলটি। এখন দেখবার বিষয় জাতীয় পার্টি কতটা সক্রিয় ভূমিকা রাখতে পারে।

জানুয়ারি ০৫
০৩:২২ ২০১৯

আরও খবর