Daily Sunshine

গোদাগাড়ীতে দুর্বৃত্তদের হামলায় ছয়টি দোকান ভাঙচুর, আটক ৩

গোদাগাড়ী প্রতিনিধি: রাজশাহীর গোদাগাড়ীতে ছয়টি দোকানে ভাংচুর, লুটপাট ও অগ্নিসংযোগের অভিযোগ উঠেছে। মঙ্গলবার দিবাগত রাতে উপজেলার গোগ্রাম ইউনিয়নের কুমোরপুর বাজারে অজ্ঞাত দুর্বত্তরা এ ঘটনা ঘটায়।
ব্যবসায়ীরা জানায় রাত ৯টার দিকে অধিককাংশ দোকান ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ হয়ে যায়। পিকআপ ভ্যান ও মাইক্রোবাস যোগে ২০-২৫ জনের একটি সন্ত্রাসী গ্রুপ এ সময় লাঠি সোটা ও দেশীয় অস্ত্র নিয়ে বাজারের বদর আলী ও টিয়ার ধানের আড়ৎ, বাহাদুরের কাপড়ের দোকান, শাহীন কামালের কীটনাশক সিনেজেন্টার বিক্রয় কেন্দ্র, আল-আমিনের ঔষুধের দোকান, নিশাতের পানের দোকান ও জুয়েল টেলিকমে ভাংচুর চালায়। এ সময় লুটপাট করা হয়েছে বলেও সংশ্লিষ্টরা দাবী করেন। পরে ধানের আড়তে অগ্নিসংযোগ করে দুর্বৃত্তরা বাজার ত্যাগ করেছে বলেও তারা জানান।
খবর পেয়ে গোদাগাড়ী দমকল বাহীনির সদস্যরা আগুন নিভিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ আনে। কিন্তু এর আগে ধনের আড়তের সব কিছুই পুড়ে ছাই হয়ে যায়। কাপড়ের দোকানদার বাহাদুর বলেন, দোকানে ১৬ লাখ টাকার মালামাল ছিল। আর শাহীন কামালের সোয়া ১ লাখ টাকার কীটনাশক লুট হয়ে যায়। বদর আলীর ৫ লাখ টাকার ধান পুড়েছে বলে দাবী করা হয়।
এ ঘটনায় এলাকা জুড়ে আতংক বিরাজ করায় দোকানপাট বন্ধ ছিল। বুধবার দুপুর সাড়ে ১১টার দিকে রাজশাহী রেঞ্জের উপমহা পুলিশ পরিদর্শক (ডিআইজি) খুরশিদ আলম, রাজশাহী জেলা পুলিশ সুপার শহিদুল্লাহ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে জড়িতদের আটক করে আইনের আওতায় আনার আশ্বাস দিলে বিকেল থেকে দোকানপাট খোলা শুরু করেছে ব্যবসায়ীরা। তবে ১০-১২টি দোকান বন্ধ ছিল।
এদিকে মঙ্গলবার দিবাগত রাতেই পুলিশ অভিযান চালিয়ে ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে ৩ জনকে আটক করে। আটককৃতরা হচ্ছে উপজেলার বিজয়নগর গ্রামের সাখোয়াত হোসেনের ছেলে শানওয়ার হোসেন বিদুৎ (৩০), তার ভাই সাগর হোসেন (২৭), রাজাবাড়ী গ্রামের মুসলেমউদ্দীনের ছেলে রুহুল আমিন (৩৩)।
গোদাগাড়ী মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) জাহাঙ্গীর আলম বলেন, এ ঘটনায় মামলা দায়ের প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।
সহকারী পুলিশ সুপার (গোদাগাড়ী সার্কেল) লুৎফর রহমান বলেন, এ ঘটনা কারা ঘটিয়েছে তা বের করতে পুলিশ তদন্ত করছে।

জানুয়ারি ০৩
০৩:৩৬ ২০১৯

আরও খবর