Daily Sunshine

মোহনপুরে নিহত মেরাজুলের পরিবারের দায়িত্ব নিলেন আয়েন

স্টাফ রিপোর্টার: একাদশ নির্বাচনের দিনে রাজশাহীর মোহনপুরে নির্বাচনী সহিংসতায় বিএনপি-জামায়াতের নেতাকর্মীদের হামলায় নিহত হন মেরাজুল। পরিবারটিতে এখন শোকের মাতম। এদিকে নৌকা প্রতীক নিয়ে নির্বাচনে বিজয়ী হয়েছেন বর্তমান সংসদ সদস্য আয়েন উদ্দিন।
বিজয়ের পর থেকেই চারিদিকে খুশির জোয়ার। সবাই ছুটে আসছেন সংসদ আয়েন উদ্দিনের কাছে শুভেচ্ছা দিতে। নেতাকর্মীদের ফুলেল ভালোবাসায় সিক্ত হচ্ছেন তিনি। বাড়ির সামনে নেতাকর্মীদের ভিড়। এক উৎসবমুখর পরিবেশ। সংসদ আয়েন উদ্দিনের এসবে মন নেই। রাতে যেতে না পারলেও ফোনে কয়েকবার খোঁজ নিয়েছেন তিনি। কোনভাবে রাত পার করে সকাল নিজের অতি গুরুত্বপূর্ণ কাজগুলো গুটিয়ে নিয়েই ছুটলেন নিহত মেরাজুল ইসলামের বাড়িতে। প্রিয় নেতাকে কাছে পেয়ে কান্নায় ভেঙে পড়েন নিহত মেরাজুল ইসলামের পরিবারের অন্য সদস্যরা।
আয়েন উদ্দিনও পালন করলেন তার কর্তব্য। নিহত পরিবারের দায়িত্ব নিলেন আয়েন উদ্দিন। নিহতের স্ত্রী শেফালীর হাতে তুলে দিলেন নগদ ২০ হাজার টাকা ও মোহনপুর সোনালী ব্যাংকে পাঁচ লাখ টাকার এফডিআর। শুধু তাই না, পরিবারটি যাতে চলতে পারে সেজন্য প্রতিমাসে পাঁচ হাজার টাকা দেয়ার প্রতিশ্রুতিও দেন তিনি।
সোমবার সাংসদ আয়েন উদ্দিন নিহত মেরাজুলের বাড়ি জাহানাবাদ ইউনিয়নের পাকুড়িয়ার পাইকপাড়াতে যান। সংসদ সদস্যকে কাছে পেয়ে মেরাজুলের স্ত্রী ও ৮ বছরের ছেলে সেফাত রহমান কান্নায় ভেঙে পড়েন। সেখানে হৃদয় বিদারক এক পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। এ সময় সংসদ সদস্য আয়েন উদ্দিনসহ উপস্থিত নেতাকর্মীরাও চোখের পানি ধরে রাখতে পারেননি।
সংসদ সদস্য আয়েন উদ্দিন বলেন, ‘বিএনপি-জামায়াতের বলি হয়েছে মেরাজুল ইসলাম। আমি আমার এলাকার প্রত্যেককে ভালবাসি। দলবল নির্বিশেষে সবার সেবা করতে চাই। দোয়া করি আল্লাহ মেরাজুলকে বেহেস্তবাসী করুন।’ তিনি আরো বলেন, ‘নিহত মেরাজুলের ছেলেকে শিক্ষিত করতে হবে। ছেলে সেফাতের শিক্ষা ও স্ত্রী শেফালীর সংসার খরচের জন্য আমি সব সময় তাদের পাশে আছি’।
তিনি স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও সাংবাদিকদের সামনে ঘোষণা দেন, ‘আজকে শেফালীর হাতে নগদ ২০ হাজার, মঙ্গলবার মোহনপুর সোনালী ব্যাংকে পাঁচ লাখ টাকার এফডিআর তুলে দেয়া হয়েছে। সেই সঙ্গে প্রতিমানে পাঁচ হাজার টাকা দেয়া হবে’। শুধু তাই না, সেফাত রহমানের লেখাপড়ারও দায়িত্ব নেন তিনি।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন, জেলা কৃষকলীগ সভাপতি রবিউল আলম বাবু, জাহানাবাদ ইউনিয়ন চেয়ারম্যান ও বিএনপি নেতা এমাজ উদ্দিন খান, সাবেক চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল লতিফ, জাহানাবাদ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি হযরত আলী, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আবুল হোসেন, মৌগাছি ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আল আমিন বিশ্বাস, উপজেলা যুবলীগ সভাপতি ইকবাল হোসেন, মোহনপুর থানার ওসি আবুল হোসেন প্রমুখ।

জানুয়ারি ০১
০৩:৩৮ ২০১৯

আরও খবর