সর্বশেষ সংবাদ :

যুক্তরাষ্ট্রের অনুরোধের পরও দেশ ছাড়ছেন না ইউক্রেন প্রেসিডেন্ট

ঢাকা অফিস: ইউক্রেনে শনিবার তৃতীয় দিনের মতো রাশিয়ার “বিশেষ সামরিক অভিযান” চলছে।  শনিবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) ভোরে দেশটির রাজধানী কিয়েভে বিস্ফোরণের শব্দ শোনা গেছে। রুশ এ হামলার ফলে শতাধিক হতাহতের খবর পাওয়া গেছে। এ পরিস্থিতিতে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কিকে রাজধানী কিয়েভ থেকে সরিয়ে নিতে যুক্তরাষ্ট্রের দেওয়া প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেছেন জেলেনস্কি। দেশের একাধিক শহরে বিস্ফোরণ ও গোলাগুলির মধ্যে জেলেনস্কি যুদ্ধবিরতির আবেদনও জানিয়েছেন এবং এক বিবৃতিতে তিনি বলেছেন, দেশটির একাধিক শহর আক্রমণের শিকার হয়েছে। তিনি বলেন, “ আমাদের দৃঢ়ভাবে ঘুরে দাঁড়াতে হবে। ইউক্রেনের ভাগ্য এখনই নির্ধারিত হচ্ছে।” মার্কিন সরকার জেলেনস্কিকে কিয়েভ থেকে সরিয়ে নেওয়ার প্রস্তাব দেয়। তবে তিনি এ প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেন।  এদিকে ইউক্রেনে রাশিয়ার “বিশেষ সামরিক অভিযানের” কারণে সৃষ্ট সহিংসতায় কমপক্ষে এক লাখের মতো মানুষ বাস্তুচ্যুত হয়েছেন বলে জানিয়েছে জাতিসংঘ। শুক্রবার জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক সংস্থা ইউএনএইচসিআর জানায়, ইতোমধ্যে জোরপূর্বক গণবাস্তুচ্যুতিও শুরু হয়েছে।

মতবিনিময়

ইউএনএইচসিআরের মুখপাত্র শাবিয়া মান্টু বলেছেন, “এক লাখের মতো মানুষ গৃহহারা ও দেশটির ভেতরে বাস্তুচ্যুত হয়েছেন বলে আমরা ধারণা করছি। এ অ আরও কয়েক হাজার মানুষ আন্তর্জাতিক সীমান্ত অতিক্রম করেছেন এই বিষয়েও আমরা নজর রাখছি। আর এটা আমরা লক্ষ করছি এই পরিস্থিতি শুরু হওয়ার পর থেকে।” তিনি বলেন, “গতকাল আমরা দেখেছি মোল্দোভায় পাঁচ হাজার শরণার্থীর আগমন ঘটেছে। এছাড়া অন্যরা পোল্যান্ড, রোমানিয়া, স্লোভাকিয়া ও রাশিয়ার দিকে যাচ্ছে।”

সাধারণ নাগরিক হত্যা

ইউক্রেনে রুশ সামরিক অভিযানের দুদিনে শতাধিক বেসমারিক নাগরিক নিহতের কথা জানিয়েছে ইউএন রাইটস ওএইচসিএইচআর। ওএইচসিএইচআরের মুখপাত্র রাভিনা শামদাসানি বলেছেন, ‘আমরা কমপক্ষে ১২৭ জন বেসামরিক নাগরিকের হতাহতের খবর পেয়েছি। তাদের মধ্যে ইউক্রেনে ২৫ জন নিহত এবং ১০২ জন আহত হয়েছেন।’

পুতিনের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের ঘোষণা

ইউক্রেনে রুশ হামলার পরিপ্রেক্ষিতে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেইহ লাভরভের ওপর সরাসরি লক্ষ্য করে নিষেধাজ্ঞা আরোপের ঘোষণা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপীয় মিত্ররা। হোয়াইট হাউসের প্রেস সচিব জেন সাকি বলেছেন,“যুক্তরাষ্ট্র, ইউরোপীয় ইউনিয়ন ও ব্রিটেনের এ পদক্ষেপ ‘পুতিনের কার্যক্রমের বিরুদ্ধে বিরোধীদের শক্তি সম্পর্কে একটি স্পষ্ট বার্তা।” ইউরোপীয় ইউনিয়ন পুতিনের সম্পদ জব্দের বিষয় এবং ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন তার দেশও পুতিন ও লাভরভের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করতে পারে এমন বিষয়ে জানানোর কয়েক ঘণ্টা পর যুক্তরাষ্ট্র এমন সিদ্ধান্তের কথা জানালো।


প্রকাশিত: ফেব্রুয়ারি ২৬, ২০২২ | সময়: ২:৪৭ অপরাহ্ণ | Daily Sunshine