Daily Sunshine

বড় বিনিয়োগ নিয়ে আসছে আদানি ও উইলমার

দেশের অর্থনৈতিক অঞ্চলগুলোতে (ইজেড) নজর বাড়ছে বিদেশি উদ্যোক্তাদের। একের পর এক বিদেশি বড় কোম্পানি ইজেডে বিনিয়োগ প্রস্তাব নিয়ে আসছে। সাম্প্রতিক সময়ে ইজেডে কৃষি ও খাদ্য প্রক্রিয়াজাত শিল্পে বড় বিনিয়োগ করতে চায় সিঙ্গাপুরের উইলমার ও ভারতের আদানি গ্রুপ। দু’দেশের দুই শীর্ষস্থানীয় কোম্পানি ৪০ কোটি ডলার বা ৩৩৫০ কোটি টাকা যৌথ বিনিয়োগ 

করার পরিকল্পনা নিয়েছে। তাদের যৌথ 

বিনিয়োগ পরিচালনার জন্য এ দেশে একটি কোম্পানি গঠন হবে। 

চট্টগ্রামের মিরসরাই, ফেনী ও সীতাকুণ্ডে গড়ে ওঠা বঙ্গবন্ধু শিল্প নগরীর ১০০ একর জমিতে বিনিয়োগ করবে এ কোম্পানি। আলাদা শিল্প পার্ক তৈরি করে খাদ্য ও কৃষিজাত পণ্য উৎপাদন করবে তারা। এ লক্ষ্যে বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষের (বেজা) সঙ্গে জমি ইজারার বিষয়ে আজ চুক্তি সই করবে আদানি-উইলমার। বছরভিত্তিক ভাড়ার বিনিময়ে এ জমি ইজারা দেওয়া হচ্ছে। ইজারা নেওয়া জমি হস্তান্তরের ছয় মাসের মধ্যে উন্নয়ন কাজ শুরু করবে। উন্নয়ন কাজ শেষ করে আগামী তিন বছরের মধ্যে উৎপাদনে যাওয়ার পরিকল্পনা রয়েছে। এই শিল্প পার্কে ১১টি কারখানা স্থাপন করা হবে। এ কোম্পানি আমদানির বিকল্প পণ্য তৈরির পাশাপাশি রফতানির জন্য শিল্প স্থাপন করবে। পরিকল্পনা অনুযায়ী কম্পোজিট খাদ্য পণ্য উৎপাদনের জন্য এই শিল্প পার্ক স্থাপন হলে সাড়ে তিন হাজার লোকের কর্মসংস্থান হবে। তারা নিজস্ব উদ্যোগে বর্জ্য শোধনাগার তৈরি করবে। এ ছাড়া আলাদা লজিস্টিক ইয়ার্ড ও ওয়্যারহাউস নির্মাণ করবে। 

গত বছরের মার্চ মাসে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সিঙ্গাপুর সফরের সময় বিনিয়োগের জন্য মৌখিক প্রস্তাব দেয় উইলমার। উইলমার ইন্টারন্যাশনালের চিফ অপারেটিং অফিসার পুয়া সেক গুয়ানকে বিনিয়োগের জন্য মিরসরাইয়ে ৫০ একর জমি পরিদর্শনের আমন্ত্রণ জানান প্রধানমন্ত্রী। কোম্পানিটিকে শিল্প স্থাপনে জমি দেওয়ার 

আশ্বাস দেন তিনি। 

বেজার নির্বাহী চেয়ারম্যান পবন চৌধুরী জানান, সিঙ্গাপুরে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনার পরপরই গত বছরের এপ্রিলে উইলমার গ্রুপের চেয়ারম্যান ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা কুওক খন হং বঙ্গবন্ধু শিল্প নগরী পরিদর্শন করেন। শিল্প নগরীর পুরো ব্যবস্থা ও বিনিয়োগ সম্ভাবনা দেখে ৫০ একর থেকে বাড়িয়ে ১০০ একর জমি চান তারা। বিদেশি বিনিয়োগের মধ্যে এটি অনেক ভালো প্রস্তাব।

পবন চৌধুরী বলেন, বঙ্গবন্ধু শিল্প নগরীতে চীন, জাপান ও কোরিয়াসহ বিভিন্ন দেশের বড় বিনিয়োগ প্রস্তাব রয়েছে। বিনিয়োগ বাস্তবায়নে সেবা দেওয়া এখন বড় চ্যালেঞ্জ। সহজভাবে সেবা দিতে কাজ করছেন তারা। ইজেডে বিদেশি বিনিয়োগ সহায়ক পরিবেশ নিশ্চিত করা হবে। তিনি বলেন, আদানি ও উইলমারের বিনিয়োগ প্রস্তাব বাস্তবায়ন হলে ইজেডে উন্নতমানের খাদ্য ও কৃষি প্রক্রিয়াজাত শিল্পের পণ্য তৈরি হবে। এতে দেশের ভোক্তারাও উপকৃত হবেন। 

বর্তমানে উইলমার ও আদানির যৌথ বিনিয়োগে বাংলাদেশ ভোজ্যতেল শোধন ও বিপণন করছে বাংলাদেশ এডিবেল অয়েল লিমিটেড (বিইওএল)। জানা গেছে, ১৯৯৩ সালে শতভাগ বিদেশি মালিকানার প্রতিষ্ঠান হিসেবে বিইওএল বাংলাদেশে কার্যক্রম শুরু করে। সে সময় তাদের মূল নিয়ন্ত্রণকারী প্রতিষ্ঠান বা হোল্ডিং কোম্পানি ছিল লেভারিয়ান হোল্ডিংস প্রাইভেট লিমিটেড। সিঙ্গাপুরভিত্তিক এ প্রতিষ্ঠানের যৌথ অংশীদারত্বে ছিল উইলমার ইন্টারন্যাশনাল লিমিটেড ও সাইম ডারবি বারহাদ। ১৯৯৩ থেকে ২০১২ সাল পর্যন্ত এ দুটি প্রতিষ্ঠানের অংশীদারত্বেই লেভারিয়ান হোল্ডিংসের নিয়ন্ত্রণেই পরিচালিত হয় বিইওএল। ২০১২ সালের শেষ দিকে সাইম ডারবি বারহাদের অংশীদারত্ব কিনে নেয় ভারতের আদানি গ্রুপ। তখন থেকে উইলমারেরই যৌথ অংশীদারত্বে গড়ে ওঠে ভারতীয় প্রতিষ্ঠান আদানি উইলমার লিমিটেড। এখন বিইওএলের মূল নিয়ন্ত্রক প্রতিষ্ঠান এটি। ২০১৬ সালে বিদেশি কোম্পানি সেভেন সার্কেল বিটুমিন অ্যান্ড এডিবল অয়েলের বাংলাদেশের ভিওলা ব্র্যান্ডের কারখানা ১৫০ কোটি টাকায় কিনে নেয় বিইওএল। 

বর্তমানে দেশে রূপচাঁদা, মিজান, কিংস, ফরচুন, ভিওলা ও লাকির মতো ব্র্যান্ডের ভোজ্যতেল 

বিক্রি করছে বিইওএল। এর মধ্যে রূপচাঁদা 

সয়াবিন ও সরিষার তেল, কিংস সূর্যমুখী তেল বেশ জনপ্রিয়তা পেয়েছে।

জানুয়ারি ২১
১৩:৫২ ২০১৯

আরও খবর

পত্রিকায় যেমন

বিশেষ সংবাদ

সাহস সংগ্রাম নেতৃত্বে অবিচল

সাহস সংগ্রাম নেতৃত্বে অবিচল

সানশাইন ডেস্ক : মহামারি কোভিড-১৯ এর ধাক্কায় দুমড়ে-মুচড়ে যাচ্ছে বিশ্বব্যবস্থা। বৈশ্বিক এ মহামারির নিদারুণ প্রভাব পড়েছে বাংলাদেশেও। অথচ এমন ঘোর অমানিশার মাঝেও আশার প্রদীপ জ্বালিয়ে রেখেছেন তিনি। তিনি-ই সম্প্রতি রিজার্ভ ও রেমিট্যান্সে রেকর্ড গড়ার খবর দিয়েছেন। বিশ্লেষকরা মনে করেন, মহামারিকালে জরুরি ভিত্তিতে প্রায় এক লাখ কোটি টাকার প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা

বিস্তারিত




এক নজরে

আমাদের সাথেই থাকুন

চাকরি

অস্ত্র মামলায় সাহেদের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

অস্ত্র মামলায় সাহেদের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

সানশাইন ডেস্ক : রিজেন্ট গ্রুপ ও রিজেন্ট হাসপাতাল লিমিটেডের চেয়ারম্যান সাহেদ করিম ওরফে মোহাম্মদ সাহেদের বিরুদ্ধে অস্ত্র আইনে করা একটি মামলায় যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। সোমবার (২৮ সেপ্টেম্বর) ঢাকা মহানগর দায়রা জজ কে এম ইমরুল কায়েশ এ রায় ঘোষণা করেন। রায় ঘোষণার আগে সাহেদকে কারাগার থেকে আদালতে হাজির করা

বিস্তারিত