Daily Sunshine

চাকরিহারা স্বামী এসকর্ট সার্ভিসে, জানতেই পারেননি স্ত্রী!

Share

করোনায় চাকরি হারাচ্ছে একের পর এক মানুষ। সেরকমই এক স্বামী করোনায় চাকরি খুইয়ে এসকর্ট সার্ভিসে নাম লেখান। আর তা জানার পর ডিভোর্স-এর আবেদন করেছেন স্ত্রী।

জানা গেছে, ভারতে ঘোষিত লকডাউনে কাজ খুইয়েছিলেন বেঙ্গালুরুর বিপিও কর্মী ওই যুবক (২৭)। আরও জানা গেছে ২০১৭ সালে কর্মস্থলেই আলাপ হয়েছিল ওই যুবক–যুবতীর। দু’বছর প্রেমের পর ২০১৯ সালে তারা বিয়ে করেন।

বিয়ের পর সুব্রমানিয়াম নগরে একটি ভাড়া বাড়িতে থাকতেন ওই নবদম্পতি। বিয়ের এক বছরের মধ্যেই করোনার জেরে চাকরি যায় যুবকের। এরপর চেষ্টা করেও নতুন চাকরি না পেয়ে অগত্যা এসকর্ট সার্ভিসে নাম লেখান ওই যুবক। তার স্ত্রী ২৪ বছরের ওই তরুণী এই ঘটনা জানতে পারেনি।

এরপর কয়েক মাস ধরে ওই তরুণী লক্ষ্য করেন, তার স্বামী সারাক্ষণ ল্যাপটপ ও ফোনে ব্যস্ত থাকছেন। আচমকা বাড়ি থেকে বেরিয়ে যেতেন। স্ত্রীকে কিছু বলতেন না। স্বামীর সন্দেহজনক কাজকর্ম বাড়তে থাকায় তথ্যপ্রযুক্তি সংস্থায় কর্মরত ভাইয়ের সাহায্য চান ওই তরুণী।

স্বামীর অনুপস্থিতিতে তার ল্যাপটপ ঘেঁটে একটি ফোল্ডার পান স্ত্রী। ওই ফোল্ডারে স্বামীর একাধিক উলঙ্গ ছবি দেখতে পান। এমনকি অর্ধনগ্ন নারীদের ছবিও ছিল তার ল্যাপটপে। জানা যায়, তার স্বামী পুরুষ সঙ্গীর কাজে যুক্ত হয়ে পড়েছে। শহরের বিভিন্ন জায়গায় সঙ্গিনী রয়েছে স্বামীর। প্রতি ঘণ্টায় চার্জ ৩ থেকে ৫ হাজার টাকা।

স্ত্রীর কাছে ধরা পড়ে যাওয়ার ভয়ে প্রথমে কিছুই স্বীকার করেননি ওই যুবক। এরপর কিছু ঘনিষ্ঠ বন্ধুর সঙ্গে আলোচনার পর নারী হেল্প লাইনে ফোন করেন ওই তরুণী।

এরপর স্বামী–স্ত্রীর কাউন্সেলিংয়ের ব্যবস্থা করা হয়। সেখানেই স্বামী স্বীকার করেন, কাজ হারানোর পর এসকর্ট সার্ভিসে যোগ দিয়েছে সে। তারপরই নিজেরা আলাদা হয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। সূত্র : ইন্ডিয়া টাইমস

এপ্রিল ১৪
১২:১২ ২০২১

আরও খবর