Daily Sunshine

রাজশাহীতে চার হাজার ছাড়িয়েছে করোনা আক্রান্ত

Share

স্টাফ রিপোর্টার : রাজশাহী জেলা ও মহানগরে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা চার হাজার ছাড়িয়েছে। রবিবার পর্যন্ত এ জেলায় মোট ৪ হাজার ১৭ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন। এদের মধ্যে ২ হাজার ৩২৬ জন ইতোমধ্যে সুস্থ হয়েছেন। আর এ জেলায় এখন পর্যন্ত মারা গেছেন ৩২ জন।

রবিবার রাজশাহী বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. গোপেন্দ্রনাথ আচার্য্য এ তথ্য জানিয়েছেন। এতে বিভাগের অন্যান্য জেলার করোনার সংক্রমণের চিত্রও তুলে ধরা হয়। রাজশাহী বিভাগের আট জেলায় এ পর্যন্ত ১৫ হাজার ৫৪৭ জন প্রাণঘাতি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এর মধ্যে ১০ হাজার ২১৩ জন ইতোমধ্যে সুস্থ হয়েছেন। এখন হাসপাতালে আছেন ১ হাজার ৫৯০ জন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। আক্রান্ত বাকিরা আছেন হোম আইসোলেশনে।

এদিকে শনিবার পর্যন্ত বিভাগে নতুন শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ১৯৩ জন। এর মধ্যে ৬৮ জন বগুড়ার। এছাড়া রাজশাহীতে ৪৬ জন, চাঁপাইনবাবগঞ্জে ১৯ জন, নওগাঁয় ২৪ জন, জয়পুরহাটে ২০ জন এবং সিরাজগঞ্জের ১৬ জন শনাক্ত হয়েছেন। শনিবার বিভাগে ১৯৮ জন করোনা রোগী সুস্থ হয়েছেন।

এর মধ্যে সর্বোচ্চ ১১৪ জন সুস্থ হয়েছেন রাজশাহীতে। এছাড়া বগুড়ায় ৫৯ জন, সিসরাজগঞ্জে একজন এবং পাবনার ২২ জন সুস্থ হয়েছেন। এ পর্যন্ত রাজশাহীর ২ হাজার ৩২৬ জন, চাঁপাইনবাবগঞ্জের ৩৭২ জন, নওগাঁর ৯১৯ জন, নাটোরের ২৯২ জন, জয়পুরহাটের ২১৪ জন, বগুড়ার ৪ হাজার ৫৪৬ জন, সিরাজগঞ্জের ৮১৩ জন এবং পাবনার ৭৩১ জন করোনামুক্ত হয়েছেন।

শনিবার একদিনেই বগুড়ায় ছয়জন করোনা রোগীর মৃত্যু হয়েছে। বিভাগে এখন মোট মৃতের সংখ্যা ২১৪ জন। এর মধ্যে সর্বোচ্চ ১৩১ জনের মৃত্যু হয়েছে বগুড়ায়। এছাড়া রাজশাহীতে ৩২ জন,চাঁপাইনবাবগঞ্জে ১০ জন, নওগাঁয় ১৫ জন, নাটোরে দুইজন, জয়পুরহাটে চারজন, সিরাজগঞ্জে ১১ জন এবং পাবনায় ৯ জন মারা গেছেন।

সানশাইন/১৬ আগস্ট/এমওআর

আগস্ট ১৬
১৩:২৩ ২০২০

আরও খবর

পত্রিকায় যেমন

বিশেষ সংবাদ

আঁকাআঁকি থেকেই তন্বীর ‘রংরাজত্ব’

আঁকাআঁকি থেকেই তন্বীর ‘রংরাজত্ব’

আসাদুজ্জামান নূর : ছোটবেলা থেকেই আঁকাআঁকির প্রতি নেশা ছিল জুবাইদা খাতুন তন্বীর। ক্লাসের ফাঁকে, মন খারাপ থাকলে বা বোরিং লাগলে ছবি আঁকতেন তিনি। কারও ঘরের ওয়ালমেট, পরনের বাহারি পোশাক ইত্যাদি দেখেই এঁকে ফেলতেন হুবহু। এই আঁকাআঁকির প্রতিভাকে কাজে লাগিয়েই হয়েছেন ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা। তুলির খোঁচায় পরিধেয় পোশাকে বাহারি নকশা, ছবি, ফুল

বিস্তারিত




এক নজরে

আমাদের সাথেই থাকুন

চাকরি

জোরালো হচ্ছে সরকারি চাকরিতে ‘বয়সসীমা’ বাড়ানোর দাবি

জোরালো হচ্ছে সরকারি চাকরিতে ‘বয়সসীমা’ বাড়ানোর দাবি

সানশাইন ডেস্ক : সর্বশেষ ১৯৯১ সালে সরকারি চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা বাড়ানো হয়। এরপর অবসরের বয়স বাড়ানো হলেও প্রবেশের বয়স আর বাড়েনি। বেকারত্ব বেড়ে যাওয়া, সেশনজট, নিয়োগের ক্ষেত্রে দীর্ঘসূত্রতা, অন্যান্য দেশের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে চাকরিতে প্রবেশের সর্বোচ্চ বয়স বাড়ানোর দাবিতে আন্দোলন করে আসছেন শিক্ষার্থী ও চাকরিপ্রার্থীরা। তবে এ বিষয়ে উদ্যোগ নেয়নি

বিস্তারিত