Daily Sunshine

ফিড মিলের দুর্গন্ধ থেকে প্রতিকার চেয়ে ইউএনও কাছে এলাকাবাসীর লিখিত অভিযোগ

Share

আদমদীঘি (বগুড়া) প্রতিনিধি: বগুড়ার আদমদীঘিতে পরিবেশ দূষণ থেকে রক্ষার জন্য গোল্ডেন এগ্রো ইন্ডাস্ট্রিজ এন্ড ফিড মিলের বিরুদ্ধে উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর লিখিত অভিযোগ করেছেন এলাকাবাসী। মাছ ও মুরগির খাদ্য তৈরির ফলে দূষিত বাতাসের দূর্গন্ধে পরিবেশ দূষণ হচ্ছে এমন অভিযোগে

সোমবার (২৭ সেপ্টেম্বর) এলাকাবাসীর পক্ষে ছয়জন স্বাক্ষরিত একটি লিখিত অভিযোগ জমা দেন তারা। উপজেলার সান্তাহার ইউনিয়নে সান্দিড়া গ্রামের সাইলো রোড কুলিপাড়া বাজার এলাকায় অবস্থিত এই মিলটি। ওই ফিড মিলের স্বত্বাধিকারী বেলাল হোসেন।

উল্লেখ্য, গত ২২ তারিখে ” ফিড মিলের দূর্গন্ধে দূষিত হচ্ছে পরিবেশ; দূর্ভোগে এলাকাবাসী” শিরোনামে পিবিএ এজেন্সিতে রাজশাহী থেকে প্রকাশিত দৈনিক সানশাইন পত্রিকায় এ সংবাদ প্রকাশিত হয়েছিল। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ ওই ফিড মিলের বিরুদ্ধে কোন পদক্ষেপ না নেওয়ার কারণে এলাকাবাসী অতিষ্ঠ হয়ে ইউএনও বরাবর লিখিত অভিযোগ করেছেন।

অভিযোগ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গোল্ডেন এগ্রো ইন্ডাস্ট্রিজ এন্ড ফিড মিলে মাছ ও মুরগির খাদ্য তৈরির জন্য বিভিন্ন উপকরণ ডিআরবি ব্যান্ড, ময়দা আটা, ভুট্টা, আতব ব্যান্ড, শুটকি মাছ, খৈল, ঝিনুক ব্যবহার হয়ে থাকে। এতে করে বাতাসের সাথে দূর্গন্ধ ছড়িয়ে পরিবেশ দূষিত হচ্ছে। যার কারণে ওই পথ দিয়ে যাতায়াত করতে সমস্যায় পড়তে হচ্ছে ছোট ছোট শিক্ষার্থীসহ কয়েকটি গ্রামের লোকজনদের। ফলে জনগুরুত্বপূর্ণ ওই এলাকায় বসবাস করা অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। এছাড়া পরিবেশ দূষণের কারণে স্বাস্থ্য ঝুঁকিতেও আছেন তারা। এলাকাবাসী এ বিষয়ে মিলের স্বত্বাধিকারী বেলালকে অভিযোগ করে জানালেও তিনি কোন গুরুত্ব দেননা। বরং তিনি প্রভাবশালী ব্যক্তিদের ছত্রছায়ায় অবাধে তার ফিড মিলের কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন। যার ফলে এলাকাবাসী নিরুপায় হয়ে ওই ফিড মিলের দূষিত বাতাসের দূর্গন্ধ থেকে প্রতিকার পেতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। এবার ইউএনও জোড়ালো পদক্ষেপের মাধ্যমে একটি স্থায়ী সমাধান করবেন এমনটাই আশা এলাকাবাসীর।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার শ্রাবণী রায় বলেন, আমি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। পরিবেশ অধিদপ্তরে বিষয়টি জানানো হয়েছে। তাঁরা এসে আইনগত পদক্ষেপ নিবেন।

সেপ্টেম্বর ২৯
১৯:৩৩ ২০২১

আরও খবর

[TheChamp-FB-Comments]