Daily Sunshine

সীমান্ত এলাকায় উদ্ধার হচ্ছে মাদক, গ্রেফতার হচ্ছেনা আসামী

Share

স্টাফ রিপোর্টার,বাঘা : রাজশাহীর বাঘা সীমান্ত এলাকায় সীমান্তরক্ষীর দায়িত্বে নিয়োজিত বাংলাদেশ বর্ডার গার্ড (বিজিবি’র) মাধ্যমে মাঝে মধ্যে ফেন্সিডিল কিংবা ইয়াবা উদ্ধার হলেও আসামী গ্রেফতার হচ্ছেনা বলে অভিযোগ উঠেছে। সীমান্ত এলাকার লোকজন শুক্রবার(৩-সেপ্টেম্বর)সকালে বিজিবি কর্তৃক একটি টলার সহ ফেন্সিডিল উদ্ধারের ঘটনাকে কেন্দ্র করে স্থানীয় গণমাধ্যম কর্মীদের কাছে এই অভিযোগ করেন।

সংশ্লিষ্ঠ সূত্রে জানা গেছে, আমাদের দেশের সরকার প্রধান থেকে শুরু করে সকল আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী মাদক প্রতিরোধে ‘জিরো টলারেন্স’ঘোষণা করলেও ছোট্ট আকারের বড়ি ইয়াবা এবং প্লাষ্টিকের বোতলে প্যাকেটজাত করণ ফেন্সিডিল অপ্রতিরোধ্য হয়ে উঠেছে। এ দিক থেকে সীমান্তবর্তী বাঘা উপজেলায় থানা পুলিশ ও র‌্যাব কর্তৃক মাঝে মধ্যে আসামীসহ মাদক উদ্ধার মামলা হলেও বিজিবি এবং মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রন বাহিনী গুলোর তৎপরতা শুধু উদ্ধারের মধ্যেই সীমাবদ্ধ। সম্প্রতি উপজেলা আইন শৃঙ্খলা সভায় এমনটি অভিযোগ করেন সীমান্তর এলাকার তিন জনপ্রতিনিধি ।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে বাঘার আলাইপুর সীমান্ত এলাকার কয়েকজন ব্যাক্তি জানান, শুক্রবার সকালে উপজেলার আলাইপুর (বিজিবি) একটি নৌকা(টলার)সহ উপজেলার পদ্মা নদী থেকে বেশ কিছু ফেন্সিডিল জব্দ করেন। এ সময় মীরগঞ্জের রান্টু ও মনির এবং আলাইপুরের চপল তাদের চোখের সামনে দিয়ে নদীতে ঝাপ দিয়ে পালিয়ে যায়। অথচ বিজিবি সদস্যরা তাদের ধাওয়া না করে একবস্তা ফেন্সিডিল সহ টলারটি তাদের ক্যাম্পে নিয়ে আসেন।

এ বিষয়ে আলাইপুর বিজিবি ক্যাম্পের কম্পানী কমান্ডার মহাসিন রেজা এ প্রতিবেদককে জানান, আমাদের লোকজন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শুক্রবার সকালে ঐ টলার টিকে ধাওয়া করে। এ সময় আসামীরা নদীতে ঝাপ দিয়ে পালিয়ে যায়। অত:পর টলারটি নদীর কিনারে এনে তল্লাশী করলে একটি বস্তার মধ্যে ১৪৮ বোতল ফেন্সিডিল পাওয়া যায়।

এ প্রসঙ্গে সমাজের অভিজ্ঞ মহলের বক্তব্য, আমাদের দেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ৯ জানুয়ারি পুলিশ কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠকে মাদক নির্মূলের কথা বলেছেন। তিনি বলেছেন, মাদক আমাদের সন্তান তথা যুব সমাজকে ধবংস করছে। সুতারাং এটাকে “জিরো টলারেন্স’’ এ আনার কোন বিকল্প নেই।

এর আগে গত ২৪ ডিসেম্বর স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ কার্যালয়ে সীমান্ত এলাকার সাংসদদের নিয়ে বৈঠক করেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান। ওই বৈঠকে সব সাংসদই মাদক নির্মূলের ব্যাপারে জোর দাবি রাখেন।

কিন্তু বাস্তব অর্থে যেটি লক্ষনীয়, সকল সীমান্ত এলাকাতে মাদক দ্রব্য ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর নিয়মিত অভিযানে আসামী গ্রেফতারের চেয়ে মাদক উদ্ধারের তৎপরতা অনেক বেশী।

সেপ্টেম্বর ০৩
১৭:২১ ২০২১

আরও খবর

[TheChamp-FB-Comments]