Daily Sunshine

বিদেশি কোম্পানির প্যাকেটে নকল প্রসাধনী

Share

নকল প্রসাধনী কারখানায় যৌথ অভিযান

স্টাফ রিপোর্টার : নিম্নমানের ও ভেজাল রাসায়নিক পণ্য ও রং দিয়ে কথিত প্রসাধনী (কসমেটিক্স) তৈরি করে তা বিভিন্ন দেশের নামিদামি ব্রান্ডের প্রসাধনীর প্যাকেটের মধ্যে ঢুকিয়ে বাজারজাত করে আসছিল রাজশাহীর পুঠিয়া উপজেলার লতা কসমেটিক্স নামের একটি প্রতিষ্ঠান। এসব ভেজাল পণ্য বিদেশি ব্রান্ডের প্রসাধনী ভেবে ভোক্তারা অধিক মূল্য দিয়ে ক্রয় করে প্রতারিত হতেন, ব্যবহার করে পড়তেন স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে। বিষয়টি জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর ও র‌্যাবের নজরে আসে। এর পর ভোক্তাদের স্বার্থে যৌথ অভিযানে নামে এই দুইটি প্রতিষ্ঠান।

বৃহস্পতিবার সকালে পুঠিয়া উপজেলায় ভাড়োরা গ্রামের মুন্সিপাড়া এলাকায় অবস্থিত লতা কসমেটিক্সে অভিযান চালিয়ে নিম্নমানের ক্যামিক্যাল, রং, প্রসাধনী সামগ্রী সহ বিদেশি নামিদামি প্রসাধনী কোম্পানির প্যাকেটসহ অনুমোদনহীন পণ্যগুলো জব্দ করে প্রচলিত আইন অনুসারে পুড়িয়ে ফেলা হয় এবং প্রতিষ্ঠানটিকে দুই লাখ টাকা জরিমানা করা হয়।

রাজশাহী বিভাগের জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক হাসান-আল-মারুফ জানান, লতা কসমেটিক্স নামের এই প্রতিষ্ঠানটির প্রসাধনী তৈরির কোন অনুমোদন নেই, নেই কোন কেমিক্যাল ল্যাব, প্যাকেটের গায়ে উল্লেখ নেই পণ্যের দাম। তাছাড়া এই প্রতিষ্ঠানটি বিদেশি কম্পানির মোড়ক ব্যবহার করে তার মধ্যে নিম্নমানের ও ক্ষতিকার রাসায়নিক দ্রব্য দিয়ে নিজের তৈরি কথিত প্রসাধনী বানিয়ে তা বাজারজাত করে আসছিলেন। এসব প্রসাধনী ক্রয় করে ভোক্তারা একদিকে যেমন আর্থিক ক্ষতির সম্মুখিন হচ্ছিলেন, ঠিক তেমনি এসব নিম্নমানের প্রসাধনী ব্যবহার করে তারা স্বাস্থ্য ঝুঁকির মধ্যেও পড়েন।

অভিযান শেষে প্রতিষ্ঠানটির অনুমোদনহীন পণ্যগুলো জব্দ করা হয় এবং তা প্রচলিত আইন অনুসারে ধ্বংস করে ফেলা হয়। একই সাথে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইনের তিনটি ধারায় প্রতিষ্ঠানটির কাছ থেকে দুই লাখ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়। ভোক্তাদের স্বার্থে এধরণের অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে নিশ্চত করেছেন হাসান-আাল-মারুফ।

 

সানশাইন/০৫ আগস্ট/রনি

আগস্ট ০৫
২০:১৩ ২০২১

আরও খবর

[TheChamp-FB-Comments]