Daily Sunshine

বগুড়া শেরপুরে পুকুরে বিষ প্রয়োগে   মাছ নিধনের অভিযোগ 

Share
মিন্টু ইসলাম (শেরপুর বগুড়া) প্রতিনিধিঃ বগুড়ার শেরপুরে পূর্ব শক্রতার জেরধরে পুকুরে বিষ প্রয়োগ করে মাছ নিধন করেছে দুর্বৃত্তরা। এতে তিন লক্ষাধিক টাকার মাগুর মাছের পোনা মেরে ক্ষতিসাধন করা হয়েছে। এ ঘটনায় রবিবার (০৪ জুলাই) দুপুরে শেরপুর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দেওয়া হয়েছে।
অভিযোগ থেকে জানা যায়,বগুড়া শেরপুর  উপজেলার কুসুম্বী ইউনিয়নের ক্ষিকিন্দা গ্রামে সোহাগ আলমের ছত্রিশ শতক আয়তনের একটি পুকুর রয়েছে। ওই পুকুরটিতে তিন লাখ টাকার মাগুর মাছের পোনা ছাড়া হয়। বর্তমানে পোনা মাছগুলোর বয়স পঁচিশ থেকে ত্রিশদিন হবে। কিন্তু শনিবার (০৩জুলাই) দিনের বেলায় হঠাৎ মাছগুলো মরে পানিতে ভেসে উঠতে থাকে। একপর্যায়ে পুকুরের সব মাছই মরে যায়। এতে করে তিন লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। এদিন ভোররাত থেকে সকাল পর্যন্ত কোনো এক সময় তার পুকুরটিতে বিষ প্রয়োগ করে দুর্বৃত্তরা। এতে করে  উক্ত পরিমান টাকার মাগুরের পোনা মাছগুলো নিধন করা হয়েছে বলে অভিযোগে উল্লেখ করা হয়।
ভুক্তভোগী মাছ চাষি সোহাগ আলম অভিযোগ করে বলেন, প্রতিবেশি বাদশা সেখের ছেলে রনি সরকার আমার স্কুল পড়ুয়া মেয়েকে অপহরণ করে। পরবর্তীতে ওই চক্রটির বিরুদ্ধে মামলা করেছি। এরপর থেকে তাদের সঙ্গে চলা বিরোধ আরও মারাত্মক আকার ধারণ করেছে। এরইমধ্যে চার থেকে পাঁচদিন আগে রনিসহ অন্যান্য আসামিদের পক্ষ থেকে মামলাটি প্রত্যাহার করে নেওয়ার জন্য চাপ দেওয়া হয়। অন্যথায় পুকুরের মাছ ও ফসলের ক্ষতি সাধন করার হুমকি-ধামকিও দেন তারা। কিন্তু তাদের প্রস্তাবে রাজী না হওয়ায় পুকুরটিতে বিষ দিয়ে মাছগুলো মেরে ফেলা হয়েছে বলে দাবি করেন তিনি। তবে এসব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন রনি সরকার। তিনি বলেন, কে বা কারা পুকুরে বিষ প্রয়োগ করেছে। সেটি নিশ্চিত না হয়েই তাদের বিরুদ্ধে এই মিথ্যা অভিযোগ আনা হয়েছে। তাছাড়া সোহাগ আলমের মেয়েকে আমি অপহরণ করিনি। আমাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক ছিল। কিন্তু পারিবারিকভাবে মেনে না নেওয়ায় আমরা পালিয়ে বিয়ে করেছি। তাই সম্পুর্ণ হয়রানি করার জন্যই আমাদের ওপর একের পর এক মিথ্যা মামলা দেওয়া হচ্ছে দাবি করেন তিনি।
এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে বগুড়া শেরপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) সাচ্চু বিশ্বাস অভিযোগ পাওয়ার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। সেইসঙ্গে বিষ দেওয়া ওই পুকুরটির পানি পরীক্ষা নিরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে। অভিযোগটি গুরুত্বের সঙ্গে খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তদন্তপূর্বক আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
জুলাই ০৫
১৮:৩৫ ২০২১

আরও খবর