Daily Sunshine

হাসপাতালে ফিরিয়ে আনা হলো পালিয়ে যাওয়া করোনা রোগীদের

Share

 

সানশাইন ডেস্ক:যশোর জেনারেল হাসপাতাল থেকে পালিয়ে যাওয়া ১০ করোনা আক্রান্ত রোগীকে পুলিশের স্ব স্ব ইউনিটের মাধ্যমে শনাক্ত করে হাসপাতালে ফেরত আনার ব্যবস্থা করা হয়েছে। আক্রান্তদের মধ্যে অন্তত ৮ জনকে সোমবার রাতের মধ্যেই হাসপাতালে ফেরত আনা হয়। বাকি দুজনকে রাতেই অথবা মঙ্গলবার সকালে হাসপাতালে ফেরত আনা হবে।

যশোর জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. দিলীপ কুমার রায় এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, রাত পৌনে ১১ টার মধ্যেই পালিয়ে যাওয়া ৬ জনকে চিহ্নিত করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এরমধ্যে যশোরের ৪ জন এবং খুলনার দুইজন রয়েছেন। অপর দুজনকে আনা হয়েছে সাতক্ষীরা থেকে।

এর আগে, যশোরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিএসবি) মোহাম্মদ তৌহিদুল ইসলাম বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ভারত থেকে আসা ৭ জন এবং অভ্যন্তরীণ তিন জন এই মোট ১০ জনকে পুলিশের স্ব স্ব ইউনিটের মাধ্যমে শনাক্ত করা হয়েছে। তাদের সকলকেই বাড়ি থেকে যশোরে আনা হচ্ছে এবং যশোর জেনারেল হাসপাতালে ফের ভর্তির ব্যবস্থা করা হচ্ছে।

পাইকগাছার ধামরাইল গ্রামের এক রোগী পালিয়ে বাড়ি গিয়েছিলেন। তার পরিবার সদস্যরা জানিয়েছেন, রাতেই পুলিশ এসে রোগীকে অ্যাম্বুলেন্সে তুলে যশোর জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যায়।

পুলিশের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, হাসপাতালে ফিরতে বাকি দুই করোনা রোগীর একজন খুলনার ও অপরজন রাজবাড়ীর। তবে পলিয়ে যাওয়া রাজবাড়ীর ওই ব্যক্তিকে কুষ্টিয়ায় তার এক আত্মীয়ের বাড়িতে পাওয়া গেছে।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জানান, ভারত থেকে পালিয়ে আসাদের বিষয়ে বেনাপোল ইমিগ্রেশন থেকে তথ্য সংগ্রহ করা হয়। পরে স্ব স্ব জেলার সিভিল সার্জনকে অভিহিত করা হয়। স্ব স্ব এলাকার পুলিশ তাদের শনাক্তে কাজ করে। পরে তাদের সিভিল সার্জনের সহায়তায় অ্যাম্বুলেন্সে করে যশোর জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়।

এই ১০ জনের হাসপাতাল থেকে পালিয়ে যাওয়ার বিষয়ে যশোর জেনারেল হাসপাতালের জরুরি বিভাগের ব্রাদার তারক চন্দ্র বিশ্বাস বলেন, ‘২৩ ও ২৪ এপ্রিল ভারত থেকে করোনা আক্রান্ত হয়ে ৭ জন হাসপাতালে ভর্তি হন। তাদের সবাইকে তৃতীয় তলায় করোনা ওয়ার্ডে পাঠানো হয়। ২৫ এপ্রিল সকাল থেকে তাদের আর খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না।’ পলাতক বাকি তিন জন দেশ থেকেই সংক্রমিত হয়েছেন।’

পালিয়ে যাওয়াদের মধ্যে ৫ জন নারী ও ৫ জন পুরুষ। নারীদের সবাই বিবাহিত ও তাদের বয়স ১৯ থেকে ৫০ এর মধ্যে। পুরুষ ৫ জনের বয়স ১৭ থেকে ৫২-এর মধ্যে।

উল্লেখ্য, সম্প্রতি করোনার শক্তিশালী ভারতীয় ভ্যারিয়ান্ট আবিষ্কৃত হওয়ায় দেশটি ভ্রমণ করে আসা সব পাসপোর্টধারীকে বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টিনে রাখার প্রস্তাব চলছিল। এরইমধ্যে দেশটি থেকে আসা ৭ যাত্রীর শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হলে তাদের যশোর জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করা হয়। তবে বিস্তারিত পরীক্ষা-নিরীক্ষার আগেই তারা ২৫ এপ্রিল পালিয়ে যান। তাদের সঙ্গে দেশে আক্রান্ত তিন রোগীও পালান। বিষয়টি নিয়ে গণমাধ্যমে তুমুল আলোচনা ও আশঙ্কার সৃষ্টি হলে তাদের আবার হাসপাতালে চিকিৎসা দিতে ফিরিয়ে আনলো পুলিশ।
সানশাইন/২৭এপ্রিল/ইউ

 

এপ্রিল ২৭
১০:৫০ ২০২১

আরও খবর